নারায়ণগঞ্জে পৈশাচিকতার নির্মমতায় সামাজিক অবক্ষয়

৫ ভাদ্র ১৪২৫, সোমবার ২০ আগস্ট ২০১৮ , ৩:১৬ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জে পৈশাচিকতার নির্মমতায় সামাজিক অবক্ষয়


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:২৯ পিএম, ১০ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ১০:১৯ পিএম, ১০ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার


নারায়ণগঞ্জে পৈশাচিকতার নির্মমতায় সামাজিক অবক্ষয়

পৈশাচিকতা, মধ্যযুগীয় বর্বরতা, পরকীয়া, অনৈতিক কর্মকান্ডে মানুষের মূল্যবোধ দিন দিন কমে যাচ্ছে। নারায়ণগঞ্জে এসব নির্মম ও অনৈতিক ঘটনার ভয়াবহতা একটি অন্যটির চেয়ে কোন অংশে কম নয়। তবে সৎ মা ৫ বছরের শিশু সন্তানকে গোপণাঙ্গে ছ্যাকা দেয়ার ঘটনা ও পরকীয়ার জেরে নিজ সন্তানকে পাষন্ড মা নিজ হাতে খুনের ঘটনায় মধ্যযুগীয় বর্বরতা ও পৈশাচিকতাকে হার মানিয়েছে। অন্যদিকে শাশুড়ির গোসলের ভিডিও প্রকাশ ও স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে অশ্লীল আচরণের ঘটনা নৈতিকতার শেষ গন্ডিটুকু পার করেছে।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জে বর্বর নির্যাতন ও অনৈতিক কর্মকান্ডের মত ঘটনা অহরহ ঘটছে।

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে শাশুড়ির গোসলের চিত্র ভিডিও করে প্রচারের অভিযোগে তথ্য প্রযুক্তি আইন মামলার আসামী জামাতা আসামী শাওনকে (৩৫) তিন দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। ৯ মে বুধবার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃত শাওনকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর পুনরায় তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠায়।

বন্দর থানার ওসি শাহীন মন্ডল জানান, শাওনের সঙ্গে স্ত্রী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের বনিবনা হচ্ছিল না। এ কলহের কারণে স্ত্রীর সঙ্গে শাওনের বিচ্ছেদ ঘটে। এর জের ধরে শাওন ক্ষিপ্ত হয়ে কোন এক সময়ে শাশুড়ির গোসলের ভিডিও চিত্র ফেসবুক সহ ইন্টারনেটে আপলোড করে ছড়িয়ে দেয়। শনিবার শাওনের শ^শুর তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় বন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বন্দরে বিছানায় প্রশ্রাবের জের ধরে প্রবাসী বড় সতিনের মেয়ে ফাতেমা আক্তারকে (৫) হাত পা বেঁধে গোপনাঙ্গে খুনতি দিয়ে ছা্যাঁকা দেওয়ার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে ছোট সতিন মুন্নী বেগমের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি বন্দর উপজেলার দক্ষিন ঘারমোড়া এলাকায় এ নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, বন্দর থানার দক্ষিন ঘারমোড়া এলাকার মহিউদ্দিন মিয়ার ছেলে রোমান মিয়া ৮ বছর পূর্বে নরসিংদী জেলায় শেফালী বেগমের সাথে ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক বিয়ে হয়। বিয়ে পর তাদের সংসারে ফাতেমা (৫) ও রাজ (৭) নামে ২টি সন্তান রয়েছে। সংসারের অভাব অনাটনের কারনে প্রথম স্ত্রী শেফালী বেগম ২ সন্তানকে স্বামীর কাছে রেখে সৌদিআরবে পাড়ি  জমায় । বিদেশ যাওয়ার ১ বছরের মাথায় ওই সুযোগে স্বামী রোমান নেত্রকোনা জেলায় মুন্নী নামে এক মেয়েকে ২য় বিয়ে করে। বিয়ের পর ২য় স্ত্রী মুন্নী বেগমের সংসারে সন্তানের জন্ম হয়। ২ সংসারে ছেলে মেয়েদের লালন পালন নিয়ে বেশ বিপাকে পরে ২য় স্ত্রী মুন্নী বেগম। এর ধারাবাহিকতায় গত ৩০ এপ্রিল সকালে ছোট সতিন মুন্নী বেগম ক্ষিপ্ত হয়ে বড় সতিন প্রবাসী শেফালী বেগমের অবুঝ শিশু মেয়ে ফাতেমাকে (৫) হাত পা বেধে গরম খুনতি দিয়ে গোপন অঙ্গে ও বাম হাতে ছ্যাকা দিয়ে জ্বলসে দেয়।

এদিকে আড়াইহাজার উপজেলায় পরকীয়ার জের ধরে কম্বল মুড়িয়ে দুই সন্তানের গায়ে দেওয়া আগুনে দগ্ধ হয়ে একজনের মৃত্যু ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ ওই দুই সন্তানের মা শেফালি আক্তারকে (২৮) গ্রেফতার করেছে। ১৩ এপ্রিল শুক্রবার ভোরে উপজেলার উচিৎপুরা ইউনিয়নের বাড়ৈইপাড়া গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। নিহতের নাম হৃদয় হোসেন (৯)। সে ৩৫নং বাড়ৈপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। দগ্ধ তার ছোট ভাই জিহাদ হোসেন শিহাব (৭) একই স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র। তাদের বাবার নাম আনোয়ার হোসেন। সে দীর্ঘদিন ধরে লিবিয়া প্রবাসী।

ফতুল্লা কাশীপুর হাটখোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের আবুল খায়ের নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের সঙ্গে অশ্লীল আচরণের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দুটি পোস্ট নিয়ে তোলপাড় শুরু হলে। স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত শিক্ষককে নৈতিকতা বিরোধী কর্মকান্ডের অভিযোগে চাকরি থেকে বহিষ্কার করে।

ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসের ভিত্তিকে ওই স্কুলে গিয়ে জানা যায়, এই শিক্ষক ১৪ বছর যাবত এই স্কুলে শিক্ষকতা করে আসছেন। এর মধ্যে স্কুলের সদ্য এসএসসি পরীক্ষা দেয়া এক ছাত্রীকে পঞ্চম শেণি থেকে তিনি বাসায় গিয়ে প্রাইভেট পড়াতেন। ওই ছাত্রীর সঙ্গেই অশালীন আচরণের অভিযোগ এতে গত ৩০ এপ্রিল ছাত্রীর স্বজনরা ও এলাকাবাসী আবুল খায়েরের বাসায় হানা দেয়। এবং তার ল্যাপটপে অপ্রীতিকর ছবি ও ভিডিও পায়। এরপর ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী আবুল খায়েরকে মারধর করে। এ বিষয়ে জানাজানি হলে স্কুল কর্তৃপক্ষ তাকে চাকরি থেকে বহিষ্কার করে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ