১০ আষাঢ় ১৪২৫, রবিবার ২৪ জুন ২০১৮ , ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

গভীর ড্রেনের পরেও কেন সরছে না পানি : খতিয়ে দেখছে নাসিক


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩৮ পিএম, ৪ জুন ২০১৮ সোমবার | আপডেট: ০২:৩৮ পিএম, ৪ জুন ২০১৮ সোমবার


গভীর ড্রেনের পরেও কেন সরছে না পানি : খতিয়ে দেখছে নাসিক

অল্পবৃষ্টি হলেই তলিয়ে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জের অন্যতম প্রধান বঙ্গবন্ধু সড়ক। শুধু বঙ্গবন্ধু সড়ক নয় এর আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার সড়কগুলোও একই অবস্থা। পানি নিষ্কাশনের ড্রেনগুলো দিয়ে দ্রুত পানি নামছে না। বিশাল ড্রেন করার পরও কেন পানি দ্রুত সরে যাবে এ বিষয়ে খতিয়ে দেখতে শুরু করেছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন।

৪ জুন সোমবার সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন এলাকার সংযোগ ড্রেনগুলোর অনুসন্ধানে নামে সিটি করপোরেশনের কর্মীরা। আর এতে খুঁজে পান সমস্যা আদ্যোপান্ত। ড্রেন থেকে ময়লা আবর্জনা কম প্লাস্টিক, পলিথিন, ময়লা আবর্জনার বস্তা সহ ইলেক্ট্রিক তার পাওয়া যাচ্ছে। এসব পরিস্কার করতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময় পার করছে শ্রমিকেরা।

সরেজমিনে শহরের ২ নং রেল গেট এলাকার ড্রেনের পরিস্কার কার্যক্রমে দেখা গেছে, সিটি করপোরেশনের কর্মীরা ড্রেনের মধ্যে গলা পর্যন্ত পানিতে নেমে কাজ করছে। ওইসব ড্রেন থেকে অন্য কোন ময়লা আবর্জনা নয় বেশি বের হচ্ছে ইলেকট্রিক তার, পলি, বড় প্লাস্টিক ও বস্তা। ড্রেন থেকে এসব বের করে ড্রেনের কাছেই স্তূপ দেওয়া হচ্ছে। আর এ দৃশ্য নগরীর প্রায় বিভিন্ন এলাকার ড্রেনের মুখগুলোতে।

পরিচ্ছন্ন কর্মী জহিরুল বলেন, ‘সকাল থেকে দেওভোগ এলাকা থেকে সৈয়দ আলী চেম্বার পর্যন্ত প্রধান ড্রেনের ময়লা পরিস্কার করছি। কিন্তু এসব ড্রেন অন্য কোন ময়লা নেই। যা আছে সব পলিথিন ব্যাগ, বস্তা, বড় প্লাস্টিক এসব কিছু। এছাড়াও কারেন্টের তার, ডিসের তার এসব কিছুও ড্রেনে ফেলেছে। যার জন্য ড্রেনের মুখগুলো আটকে গিয়ে বন্ধ হয়ে গিয়েছি। ভালো ভাবে পানি নিষ্কাশন হচ্ছিল না। এগুলো পরিস্কার করার সঙ্গে সঙ্গে পানি নামতে শুরু করেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘কয়েকটি এলাকায় ড্রেনের মধ্যে ইট বালিও পাওয়া গেছে। বিশেষ করে যেসব এলাকায় ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। সেইসব এলাকার ড্রেনগুলোতে এসমস্যা।’

সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মী গোবিন্দ বলেন, ‘বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় এনিয়ে পত্রিকায় লেখালেখি হয়েছে। এ জন্য ড্রেনের কোথায় সমস্যা এগুলো ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। সোমবার সকাল থেকে শহরের কালীরবাজার রোডের ড্রেন, গলাচিপা এলাকার ড্রেন, দেওভোগ এলাকার ড্রেন, উকিলপাড়া এলাকার ড্রেন সহ বিভিন্ন ড্রেনগুলো পরিস্কার কাজ চলছে। এছাড়াও ধারাবাহিক ভাবে অন্যান্য এলাকার ড্রেনগুলোও দেখা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘সব ড্রেনই পরিষ্কার ছিল। কিন্তু ড্রেনের ভিতরে পলি ফেলার কারণে সেগুলো বন্ধ হয়ে রয়েছে। পানি ঠিক ভাবে নিষ্কাশন হতে পারছে না বলেই শহরের জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। বিশেষ করে এভাবে ড্রেনের ভিতরে এতো পলি কোথায় থেকে আসলো আমরা জানি না।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা আলমগীর হিরণ বলেন, ‘ড্রেনগুলোতে পলিথিন, বালি সহ বিভিন্ন কিছ্ ুপাওয়া যাচ্ছে কর্মীরা জানিয়েছেন। কিন্তু এ পলিথিনের বিষয়ে ব্যবস্থা নিবেন জেলা প্রশাসন। তারা পলিথিনের বিরুদ্ধে অভিযান করবেন। তবে আমরা প্রায় সময় সচেতনতার জন্য আহবান জানাই আবার অনেক সময় অভিযান চালিয়ে জরিমানাও করা হয়। এছাড়াও বিষয়টি ঊর্ধ্বতনদের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

প্রসঙ্গত গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টিতে নগরীরে হাটু সমান পানিতে তালিয়ে যায় নগরী। ঈদের কেনাকাটা ও পথচারীদের চলাচলে ভোগান্তির শিকার হয়েছে সবাইকে। অনেক জায়াগ দ্রুত পানি সরে গেলেও অনেক জায়াগ গত কয়েকদিনও পানি সরেনি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ