৫ শ্রাবণ ১৪২৫, শুক্রবার ২০ জুলাই ২০১৮ , ২:২৪ অপরাহ্ণ

১৬ জুনের বোমা হামলার বিচার না হওয়া : ব্যর্থতা আওয়ামী লীগের!


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৬:২৩ পিএম, ১৫ জুন ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ০৫:৩৭ পিএম, ১৭ জুন ২০১৮ রবিবার


১৬ জুনের বোমা হামলার বিচার না হওয়া : ব্যর্থতা আওয়ামী লীগের!

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলার বিচার কাজ শেষ হয়েছে মাত্র পৌনে ৩ বছরে। সাক্ষী ছিল ১২৭জন। মাত্র ৩৮টি কার্য দিবসেই শেষ হয় সাক্ষ্য গ্রহণ, যুক্তিতর্ক সহ বিচারিক আনুসাঙ্গিক কাজ। কিন্তু বহুল আলোচিত চাষাঢ়া আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলায় ২০ জনের নিহতের বিচার হয়নি ১৭ বছরেও। ৭খুনের প্রধান আসামী নূর হোসেনকেও ভারত থেকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয় দেড় বছরের মাথায়। আর ২০ হত্যার অন্যতম দুই আসামীকে বছরের পর বছর ঘুরলেও আনা হয়নি ভারতেরই কারাগার থেকে। এরই মধ্যে চাষাঢ়ায় আওয়ামীলীগ দলীয় কার্যালয়ে বোমা হামলার বিচার শেষ হওয়ার আগেই সিলেটে ব্রিটিশ হাই কমিশনারের উপর হামলার মামলায় ফাঁসিতে ঝুলতে হয়েছে তাকে।

সংশ্লিষ্ট অনেকেই মনে করছেন, চাষাঢ়ায় বোমা হামলার বিচার না হওয়ার দায় ক্ষমতাসীন দলের নেতারাও এড়াতে পারবেন না। কারণ ২০০১ সালের ঘটনার পর ওই বছরের অক্টোবরে ক্ষমতার পালাবদল হলেও ২০০৮ সালের ২৮ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে। টানা দ্বিতীয়বার তথা ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে এমপি হন শামীম ওসমান। সে নির্বাচনেরও সাড়ে ৩বছর ইতোমধ্যে অতিবাহিত হয়েছে। আর এর আগের ৫ বছর। সে হিসেবে আওয়ামী লীগের সাড়ে ৯ বছরেও চাষাঢ়া আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলার মামলার বিচার না হওয়াটা যেমন দুঃখজনক তেমনি শামীম ওসমান ওই ঘটনায় আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ার পরে বিচার কাজে ধীরগতি বেশ বেদনাদায়ক নিহত পরিবারের জন্য। শামীম ওসমান নিজেও ওই বোমায় মারাত্মক আহত হন। তিনি নিজেও বলেন, তার পায়ে স্পিন্টার রয়েছে। সে ব্যাথায় প্রায়শই তিনি কাতর থাকেন।

মামলার বাদী মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী খোকন সাহা জানান, আমরাও চাই মামলাটির দ্রুত নিস্পত্তি হউক। জটিলতা এড়িয়ে যাতে দ্রুত কাজ শেষ হয় সে দাবী আমাদের।

নারায়ণগঞ্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ওয়াজেদ আলী খোকন জানান, ১৬ জুনের বোমা হামলার ঘটনার প্রধান আসামী হরকাতুল জিহাদ নেতা মুফতি আবদুল হান্নানের বিরুদ্ধে সারাদেশে ৫১টি মামলা থাকায় যথা সময়ে তাকে নারায়ণগঞ্জ হাজির করা হয়নি। এতে করে বার বার সাক্ষ্য গ্রহণ পেছায়। আমরা চেষ্টা করছিলাম হান্নানকে নারায়ণগঞ্জ কারাগারে রেখে নারায়ণগঞ্জের বোমা হামলার মামলাটি যেন দ্রুত শেষ করা যায়। এর মধ্যে মুফতি হান্নানের একটি মামলায় ফাঁসি হয়েছে। আমরা চাই দ্রুত চাঞ্চল্যকর এ মামলার বিচারও যেন শেষ হয় সে প্রচেষ্টা চলছে।

ওয়াজেদ আলী খোকন আরো জানান, আমরা সরকারের কাছে আবেদন করেছি যেন দ্রুত ভারতের কারাগারে থাকা দুইজনকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।

দুই পা হারানো চন্দন শীলের বক্তব্য

১৬ জুন বোমা হামলায় দুই পা হারানো মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি চন্দন শীল জানান, ইতোমধ্যে মুফতি হান্নানের ফাঁসির আদেশ হলেও আমি তত খুশি হতে পারিনি। আমি আরো বেশী খুশি হতাম যদি আমাদের ১৬ জুন বোমা হামলা মামলায় তার সাজা হতো। তার পরেও বিচার তার নিজস্ব গতিতে চলছে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ