৭ আশ্বিন ১৪২৫, শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৫:৫৪ অপরাহ্ণ

লাশের বহর নারায়ণগঞ্জে


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০৬ পিএম, ১১ জুলাই ২০১৮ বুধবার


লাশের বহর নারায়ণগঞ্জে

নারায়ণগঞ্জে হত্যা, আত্মহত্যা, পানিতে ডুবে মৃত্যু ও সড়ক দুর্ঘটনায় লাশের বহর বাড়ছে। নৃশংস খুনের ঘটনা অতীতের পৈশাচিকতাকে হার মানিয়েছে। অন্যদিকে অভিমানে আত্মহত্যার ফলে স্বজনরা তাদের প্রিয়জনদের হারাচ্ছে। আর পানিতে ডুবে অনাকাংখিত মৃত্যুর ঘটনায় স্বজনদের চোখে কান্নার ঢল নামে। তবে সড়ক দুর্ঘটনা অকালে কেড়ে নিচ্ছে প্রাণ। প্রিয়জনরা যেভাবেই প্রাণ হারাকনা কেন; স্বজনদের বেদনাঘন কান্নায় ভারী হয়ে উঠছে পরিবেশ।

জুলাইয়ের প্রথম দিকে জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া নানা ঘটনায় নারায়ণগঞ্জে লাশের বহর বৃদ্ধি পাচ্ছে।

নিখোঁজের ২১ দিন পর  ৯ জুলাই রাত ১১ টায় শহরের আমলপাড়া এলাকার একটি ভবনের সেপটিক ট্যাংক থেকে নারায়ণগঞ্জ শহরের কালিরবাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ২১ দিন পর জানা গেলে প্রবীর চলে গেছে না ফেরার দেশে। তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু পিন্টু। টুকরো টুকরো করে লাশ ফেলে দেওয়া হয় একটি ভবনের সেপটিক ট্যাংকে। পঁচন ধরে যায় লাশের মধ্যে। প্রবীরকে হত্যা করা হয়েছে মাথা, পা, দুই হাত, কোমর ও শরীরকে বিচ্ছিন্ন করে। হত্যার পর অংশগুলো ব্যাগে ভরে ফেলে দেওয়া হয়।

প্রবীর নিখোঁজের ঘটনায় বাবা ভোলানাথ দাস বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় জিডি করেছিল। ওই জিডির তদন্ত পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে দেওয়া হয়। ডিবি পুলিশ বিষয়টির তদন্ত করে পিন্টু ও বাবু নামের দুইজনকে আটক করে। তার মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং ও ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে পিন্টু স্বীকার করে প্রবীর ঘোষের বিষয়টি। পরে তার দেখানো মতেই সোমবার রাতে শহরের আমলপাড়া এলাকার ঠান্ডু মিয়ার ভবনের সেফটিক ট্যাংক থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। কয়েকটি ব্যাগে করে ট্যাংকিতে লাশ টুকরো টুকরো করে ফেলা হয়।

১০ জুলাই নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে যাত্রীবাহী ট্রলার থেকে পরে ৫ জন নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় চারজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ওই দিন সকাল ৯টায় শহরের ফায়ার খেয়াঘাট থেকে ২ জন ও সেন্ট্রাল খেয়াঘাটের ৫০০ গজ দূর থেকে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া সকাল সাড়ে ১০টায় একই স্থান থেকে আরো একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। মৃতরা হলেন মদনগঞ্জ এলাকার ছালা পাগলনি বাড়ি এলাকার কালাচাঁন মিয়ার ছেলে দ্বীন ইসলাম (৩৫), মদনগঞ্জের ইসলামপুর এলাকার রমিজ উদ্দিনের ছেলে রায়াত আহমেদ ইমন (২২), একই এলাকার মৃত জিয়াবুল হকের চেলে আনোয়ার হোসেন ফালান (৩৫) ও মদনগঞ্জ এলাকার ফকির চানের ছেলে জনি। তারা প্রত্যেকে হোসিয়ার কারখানার শ্রমিক।

১১ জুলাই রূপগঞ্জ উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ট্রাকের সঙ্গে পিকআপ ভ্যানের সংঘর্ষে চালক ও হেলপার দুইজন মারা গেছে। বুধবার সকালে উপজেলার গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের আধুরিয়া এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো, শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে চালক আবিদ হাসান (২২) ও পটুয়াখালী উত্তর মুরদিয়া এলাকার সাইজউদ্দিনের ছেলে হেলপার মিজানুর রহমান (৪৫)।

৯ জুলাই নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় বখাটে সোহানের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী সুমি আক্তারকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে তর্কে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে সুমি’র বাবা অভিযোগ করেছেন। ৯ জুলাই রাতে ফতুল্লার পূর্ব ধর্মগঞ্জ ঢালিপাড়া এলাকা থেকে পুলিশ সুমি আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের শেষে মঙ্গলবার বিকেলে সুমির লাশ দাফনের জন্য তার গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সুমির বাবা রূপ মিয়া জানান, সাত বছর পূর্বে সুমিকে ফতুল্লার পূর্ব ধর্মগঞ্জ ঢালিপাড়া এলাকার জুলহাস ভূইয়ার ছেলে সোহানের কাছে বিয়ে দেই। বিয়ের পর তাদের একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। বিয়ের পূর্বে সোহানকে তার বাবা ও মা আমাদের কাছে ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়েছে। বিয়ের পর জানতে পারি সোহান বখাটে। কোন কাজ কর্ম করেনা। প্রায় সময় সুমিকে মারধর করে আমার কাছ থেকে টাকা নেয়াতো। বিদেশ যাওয়ার কথা বলে এক লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়েছে। এরপর মুরগির ব্যবসা করবে বলে ২০ হাজার টাকা নিয়েছে। বিয়ের পর থেকে এভাবেই সুমিকে দিয়ে টাকা আনাতো। সম্প্রতি সুমিকে বাড়ি থেকে ২০ হাজার টাকা এনে দিতে চাপ দেয়। এতে সুমি রাজি না হওয়ায় সুমির হাতের ও কানের স্বর্ণালংকার খুলে নিয়ে বিক্রি করে অন্যত্রে আরেকটি বিয়ে করে। দ্বিতীয় বিয়ের বিষয়টি সোহানের কাছ থেকে নিশ্চিত হয়ে সুমি আমাকে ফোন করে জানান কিন্তু ওই মেয়েটির নাম বলতে পারিনি। আমার ধারনা সুমি এনিয়ে তর্ক করায় তাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর ঘরের বাহিরে ফেলে দিয়ে পালিয়েছে সোহান। সুমির গলায় ফাস লাগানোর কোন দাগ নেই। আমি এ হত্যার বিচার চাই।

৭ জুলাই আড়াইহাজারে দুর্গম চরাঞ্চল কালাপাহাড়িয়ায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের একজন করে দুজন নিহত হওয়ায় ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলায় ৬০ জনকে আসামী করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই এক পক্ষের ১০নং আসামী রোজিনা এবং অপর পক্ষের সুজন মৃত্যুবরণ করায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ফলে পুলিশের ধর পাকড় এড়াতে মধ্যারচর গ্রামটি জনশূন্য হয়ে পড়েছে।

৯ জুলাই নারাযণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় বিদ্যুৎপৃষ্টে কাউছার (২৭) নামের বিদ্যুৎ মিস্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার খাগকান্দা ইউনিয়নের তাতুয়াকান্দা গ্রামের এই ঘটনাটি ঘটে। নিহত কাউছর ওই গ্রামের জজ মিয়ার ছেলে। জানা গেছে, কাউছার ওই এলাকাতে বিদ্যুতের মেরামতে কাজ করে থাকে। সোমবার সন্ধ্যায় সে তাতুয়াকান্দা মসজিদের বাতি মেরামতের কাজ করতে যায়। এক পর্যায়ে কাউছর বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে পড়ে যায়। এ সময় মসজিদের মুসল্লীরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

৯ জুলাই রাতে বন্দর ফাঁড়ি পুলিশ অজিত চৌধুরী (২৫) নামে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। বন্দর বাবুপাড়াস্থ টিটু মিয়ার ভাড়াটিয়া বাড়ী থেকে ওই লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে পুলিশ। এ ব্যাপারে বন্দর ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ আলী জানান, ঘটনার রাতেই বাবুপাড়াস্থ টিটু ভাড়াটিয়া বাড়ী থেকে অজিতের লাশ উদ্ধার করা হয়। অজিতের আত্মহত্যার কারন জানতে পারেনি তার স্বজনরা। আত্মহত্যার কারন জানার জন্য নিবিড় তদন্ত করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে বন্দর থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

৭ জুলাই জেলার সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল রসুলবাগ এলাকায় মুন্নী আক্তার (২০) নামে তরুণী আত্মহত্যা করেছে। ওই দিন সন্ধ্যায় গোদনাইলের রসূলবাগ এলাকার হিমাংশু সাহার ভাড়াটিয়া বাড়িতে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় মুন্নী আক্তারের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। পরিবারের বরাত দিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার (এসআই) রেজাউল করিম জানান, রাতে নিহত তরুণীর সাথে মোবাইল ফোনে তার দুলাভাইয়ের কথা কাটাকাটি হয়। এরই প্রেক্ষিতে শনিবার বিকেলে ঘরের দরজা বন্ধ করে আড়ার সাথে ফাঁস দিয়ে ওই তরুণী আত্মহত্যা করে।

৪ জুলাই বন্দরের কুমারপাড়া এলাকায় প্রেমে বাধা দেওয়ার জের গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে ময়না (১৬) নামে প্রেমিকা। আত্মহত্যার সংবাদ পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করেছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বন্দর কুমারপাড়া এলাকার পলু মিয়ার বাড়ি ভাড়াটিয়া বাবুল মিয়ার মেয়ে ময়না সাথে একই থানার তিনগাও এলাকার  অটোরিক্সা চালক হৃদয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্কে গড়ে উঠে। প্রেমের বিষয়টি পরিবারের লোকজন জানতে পেরে প্রেমিকা ময়নাকে মারধর করে এবং হৃদয়ের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন  করার জন্য চাপসৃষ্টি করে। সেই সূত্রধরে ঘরের ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

২ জুলাই সিদ্ধিরগঞ্জে সন্তান নেয়া না নেয়ার কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে জন্মবিরতিকরণ পিল সেবন করে স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। নিহত শারমিন আক্তার (২০) ভোলা জেলার সোনাপুর এলাকার ইসমাইল হোসেনের মেয়ে। তার স্বামী ইউসুফ (২২) পটুয়াখালি জেলার ছোট বিঘা এলাকার নূর মোহাম্মদ হাওলাদারের ছেলে। তারা সিদ্ধিরগঞ্জের আইলপাড়া সুমিলপাড়া এলাকার খলিল মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

এদিকে গত ৬ জুলাই সন্ধ্যায় বন্দরের মদনগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা মো: সুমন পুত্র সন্তানের খবরে আনন্দে ভাসছিলেন। প্রায় ৫-৬ বছর ধরে তার কোন সন্তান হচ্ছিল না। বহুদিন পর তিনি একজন পুত্র সন্তানের বাবা হতে যাচ্ছেন। স্বভাবতই তিনি খুশিতে বিভোর ছিলেন। কিন্তু তার সেই আনন্দ মুহূর্তের মধ্যেই মাটি করে দিল হাসপাতালের ডাক্তার।  শহরের মেডিস্টার জেনারেল হসপিটালের ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় আলোর মুখ দেখতে পারেনি নবজাতক। ৬ জুলাই সন্ধ্যা ৭ টায় এই ঘটনা ঘটে।

৭ জুলাই বিকেল সাড়ে ৫টায় রূপগঞ্জ উপজেলার তারাব এলাকার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ডেমরা ব্রীজের পূর্ব ঢালে নামার সময় যাত্রীবাহী বাসের চাপায় অজ্ঞাত পরিচয়ে (৪০) পথচারী নিহত ও সিএনজি চালক সহ আরো দুই পথচারী আহত হয়েছে। এ ঘটনায় বাস চালক সুজনকে আটক করা হয়েছে।

৭ জুলাই নারায়ণগঞ্জ শহরের ফকিরটলা মসজিদের সামনে ঢাকাগামী একটি ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি (৪০) নিহত হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহ জানান, শনিবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকা কমলাপুরগামী ট্রেনের ধাক্কায় একজন নিহত হয়। নিহতের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।

৬ জুলাই দুপুরে মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জে মটরসাইকেল চালকের মাথার উপরে সিমেন্ট বোঝাই কাভার্ডভ্যানের চাকা তুলে দিয়েছে চালক। এতে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়েছে মটরসাইকেলের চালক শাহরিয়ার বুলবুল (৩০)। সে বেক্সিমকো ফার্মাসিটিক্যালসের মার্কেটিং প্রতিনিধি। জয়পুরহাট জেলার কালাই থানার বেগুন গ্রাম এলাকার মোঃ খলিলুর রহমান চৌধুরী ছেলে বুলবুল নারায়ণগঞ্জ শহরের জামতলায় বসবাস করতেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘দুর্ঘটনার ঘটনা অহরহ ঘটলেও মর্মান্তিক খুনের ঘটনা পুরো নারায়ণগঞ্জকে উত্তপ্ত করে তুলেছে। এর মধ্যে শীতলক্ষ্য নদীতে ডুবে যাওয়া ৪ জনের লাশ উদ্ধারে উত্তপ্ত নারায়ণগঞ্জ যেন লাশের ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। আর এসব ঘটনায় স্বজনদের কান্নায় পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ