২৯ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৪১ অপরাহ্ণ

UMo

যাত্রী সংকটে হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ ফেরি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৬ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বুধবার


যাত্রী সংকটে হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ ফেরি

বন্দরবাসীর যাতায়াতের সুবিধার্থে নবীগঞ্জ-হাজীগঞ্জ পয়েন্টে ফেরি চালু করা হয়। কিন্তু পর্যাপ্ত যাত্রীর অভাবে থমকে গেছে বন্দরবাসীর প্রত্যাশিত আশা। ফেরি দিয়ে পারাপার হতে অনেক সময় অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে ঘণ্টাখনেক। ফলে বাধ্য হয়ে অনেকেই আগের মত মোটর বাইক, স্কুটি কিংবা সাইকেল নিয়ে নৌকা ভাড়া করে নদী পার করছেন।

বন্দরবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল এই ফেরী। কিন্তু এমন সেবায় অনেকটাই হতাশ তারা। কর্তৃপক্ষ বলছেন গাড়ি সংখ্যা কম। তাই ফেরি পারাপারে দেরি হচ্ছে। ফেরি না পরিপূর্ণ ছাড়া যায় না, তেলের অপচয় হবে। তাই গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতেই হয়। বন্দরবাসী এমন এক অবস্থায় আছেন যে কাউকে কিছু বলতেও পারছেন না তারা। বন্দরবাসীরা অনেকটা হতাশা নিয়ে এর সাথে এক মত প্রকাশ করেন। তাই নিরবেই এমন ভোগান্তি মেনে নিতে হচ্ছে তাদেরকে। তাদের দাবি এখানে যতদিন পর্যন্ত সেতু না হবে ততদিন পর্যন্ত ভোগান্তি কমবে না। এইভাবেই ভোগান্তির মধ্যেই চলতে হবে।

এর আগে গত ১৪ জুন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমান ফেরি উদ্বোধন করেন। এ সময় বন্দরবাসীর প্রত্যাশা ছিল হয়তো এবার তাদের ভোগান্তি লাঘব হবে। কিন্তু ফেরি চালু হবার পর থেকেই তাদের সেই ধারণা ভেঙ্গে যায়। দুইটি ফেরি উদ্বোধন করলেও চলাচল করতে থাকে মাত্র একটি ফেরি। তাও অপেক্ষায় থাকতে হয় দীর্ঘ সময়। বন্দরে বাণিজ্যিক অঞ্চল না থাকায় এবং গার্মেন্টস ও এধরনের শিল্প প্রতিষ্ঠান খুব একটা না থাকায় যান চলাচল খুব কম। যে কারণে ফেরির জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হয় বলে জানায় এলাকাবাসী।

বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় বন্দরবাসীর ভোগান্তির চিত্র। শহর থেকে বন্দরমুখি যানবাহন থাকলেও নেই বন্দর থেকে শহরমুখি পর্যাপ্ত যানবাহন। যে কারণে নদীর ওই পারের ঘাট থেকে এই পাড়ে আসতে প্রচুর সময় লাগছে।

হাজীগঞ্জ ঘাটে ফেরির জন্য প্রায় ১ ঘন্ট অপেক্ষায় থাকা ভোগান্তির শিকার ট্রাক ড্রাইভার রুবেল জানান, ঘন্টা খানেক এইখানে দাঁড়াইয়া আছি। এক ঘন্টায় মাত্র একবার ফেরী আসছে। আমার সামনে গাড়ি ছিল, পিছন থেইকাও কয়েকটা গাড়ি আমারে ওভারটেক করছে। তাই ফেরিতে উঠতে পারি নাই। এখন আবার দাড়ায়া আছি। কে জানে কতক্ষন লাগবে।

বন্দরবাসী সৈকত মিয়া অনেকটা ক্ষোভ নিয়ে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমাদের ভোগান্তি শেষ হবে না। যতদিন পর্যন্ত এখানে সেতু নির্মাণ করা না হবে ততদিন আমাদের ভোগান্তিতেই থাকতে হবে। এমপির কাছে অনুরোধ আমাদের অবস্থাটা একটু বিবেচনায় নিয়ে দ্রুত সেতুর ব্যবস্থা করেন।

এ প্রসঙ্গে ফেরির চালক বাতেন ফারুকি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, গাড়ির সংখ্যা কম আবার ফেরিতে উঠা নামা করতেও প্রচুর সময় লাগে। গাড়ি উঠানোর সময় ঠিকমত নির্দেশনা দেওয়া হয় না। আবার অনেকে নির্দেশনা মানে না। যে কারণে দেরি হয়।

ফেরির মেরামতের দায়িত্বে থাকা সড়ক ও জনপথ বিভাগের মেকানিক বিভাগের সহকারি মেকানিক আবুল বাশারের সঙ্গে এই প্রসঙ্গে কথা হলে তিনি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, দেরির ব্যপার মূলত গাড়ি কম। গাড়ি থাকুক কিংবা না থাকুক প্রতিবার নদী পারাপারের জন্য একি পরিমান তেল খরচ হয়। গাড়ি না থাকলে তো আর পোষায় না। তাই গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে হয়।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

ফিচার -এর সর্বশেষ