মহিলা কলেজ ছাত্রীদের গায়ে মবিল লেপন

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:০৯ পিএম, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সোমবার

মহিলা কলেজ ছাত্রীদের গায়ে মবিল লেপন

২০১৮ সালে নিরাপদ সড়কের দাবীতে ছাত্রদের যৌক্তিক আন্দোলনের মাধ্যমে সংশোধিত আইন মেনে না নিয়ে ৪৮ ঘন্টার অবরোধ করার মত অযৌক্তিক আন্দোলন করতে দেখা গেছে পরিবহন শ্রমিক নামধারী মবিল সন্ত্রাসীদের। ২৮ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া পরিবহন শ্রমিকদের অবরোধে স্থবির হয়ে পরে সারাদেশ। একই প্রবাহ দেখা দেয় নারায়ণগঞ্জেও। বাস ট্রাক থেকে শুরু করে সকল পরিবহন শ্রমিকেরা সর্বস্তরের ড্রাইভারদের বাধ্য করে অবরোধ পালন করতে।

২৮ অক্টোবর অবরোধের প্রথমেই দেখা দেয় মবিল সন্ত্রাসীদের তান্ডব। প্রাইভেট কার, লেগুনা , সিএনজি চালকদের জোর পূর্বক নামিয়ে পোড়া মবিল লেপন করে দেয়। কোথাও কোথাও মারধরের অভিযোগ পাওয়া যায়। রেহাই পায়নি মোটরবাইক আরোহীরাও। হেলমেট খুলে নিয়ে লেপন করা হয় মবিল। এছাড়া লেগুনার যাত্রীদের গায়েও মবিল ছুড়ে মারে পরিবহণ শ্রমিকরা। এহেন কার্যক্রমে সারাদেশে প্রতিবাদ ও নিন্দা ছড়িয়ে পরে সর্বত্র।

একই দিন নারায়ণগঞ্জের শিমরাইলে সরকারী মহিলা কলেজের বাসের উপর হামলা চালায় পরিবহন শ্রমিকেরা। বাস ভাংচুর করে বাসের চালক ও মেয়েদের গায়ে মবিল লেপন করে মবিল সন্ত্রাসীরা। পরিবহণ শ্রমিকদের কারও কারও কাছ থেকে জানা যায় ছাত্র আন্দোলনের প্রতিশোধ হিসেবেই এই দুর্বৃত্তায়ন শুরু হয়।

শিক্ষার্থীরা জানায়, দুপুর ১২টায় সাইনবোর্ড এলাকা পার হওয়ার সময় হঠাৎ শ্রমিকরা বাসটি থামিয়ে চালককে মারধর করে ও তার মুখে শরীরে কালি লেপে দেন। পরে এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে কয়েকজন ছাত্রীকেও কালি লেপে দেন শ্রমিকরা। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও শুরু করেন। পরে বাসের কয়েকটি গ্লাস ভাঙচুর করে বাস থেকে সবাইকে নামিয়ে দেওয়া হয়।

দুদিনের টানা অবরোধে ব্যবসা বাণিজ্যে মন্দা দেখা দেয়। মবিল ছুড়ে ও মারধর করে আতংক সৃষ্টি করলেও পুলিশ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে। এছাড়া ছাত্রীর গায়ে মবিল দেয়ার ঘটনায় সারাদেশে আলোচনার ঝড় উঠলেও প্রশাসনের দৃষ্টান্তমূলক কোন পদক্ষেপ দেখতে পায়নি নারায়ণগঞ্জ বাসী।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও