বাবার হাতটি ধরে...

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:১৬ এএম, ৫ জুন ২০১৯ বুধবার

বাবার হাতটি ধরে...

সকলেই ছোট থেকেই বড় হয়। ছেলে থেকে বাবা হয়, আর সেই ছেলেকে বড় করতে গিয়ে নিজের পুরোনো সৃষ্টিকে হাতরে বেড়ায়। ঈদের দিন বাবার সাথে জোর করে বায়না ধরে পাঞ্জাবি টুপি পড়ে ঈদগাহে যাওয়াটাই যেন ঈদের দিনের সুচনা। ঈদের নামাজ আদায়ের ঈদগাহে এমন দৃশ্য চোখে পড়লে প্রায় সকলেই ছোটবেলার সৃতি মনে নাড়া দিয়ে উঠে।

বুধবার (৫ জুন) নারায়ণগঞ্জের কেন্দ্রীয় ঈদগাহে বাবার হাত ধরে ছোট্ট শিশু আরহান এসেছিলেন ঈদের নামাজ আদায় করতে। বাবার হাতটি ধরে সে ঈদগাহে যেমন প্রবেশ করেছিল সেভাবেই বাবার হাতটি ধরেই ঈদগাহ থেকে হাসিমুখে খুশিমনে বের হয়ে যায়। যেতে যেতে নানা প্রশ্নও জুড়ে দেয়, বাবা এটা কেন সেটা কেন।

ঈদ মানেই খুশি, ঈদ মানেই আনন্দ। এই আনন্দ বাচ্চাদের মনে অন্যরকম আবহের সৃষ্টি করে। ছোট বয়সে প্রায় সকলেই বাবার হাতটি ধরেই মসজিদে, ঈদের নামাজে যায়। এবার বৃদ্ধ বয়সে এই বাবাকেই হাতে ধরে মসজিদে নিয়ে যায় সন্তান।

ঈদগাহে আসা আরহানের বাবা সবুজ জানান, ছেলেকে সাথে করে নিয়ে এসেছি ঈদগাহে। সকাল থেকেই সে বায়না ধরেছে ঈদগাহে যাবে আমার সাথে প্রস্তুত হয়ে বসে আছে। পরে আমার হাত ধরে ঈদগাহে এসে আমার সাথে নামাজ আদায় করলো। এবার ও স্কুলে ভর্তি হয়েছে মাত্র।

শহরের কলেজরোড এলাকার বাসিন্দা হাবিবুর রহমান জানান, যখন ছোট ছিলাম তখন বাবার হাতটি ধরে ঈদের নামাজ আদায় করতে আসতাম। তখন দিনগুলো আমার কাছে ছিল অনেক আনন্দের। এখন বাবার বয়স হয়েছে বাবাকে হাতে ধরে নিয়ে এসেছি ঈদের নামাজ আদায় করতে। আমারও ছোট্ট সন্তান হয়েছে ৬ মাস বয়স। আগামি ঈদে হয়তো সেও আমার হাত ধরে আমাদের সাথে নামাজ পড়বে আসবে। এটি অন্যধরনের এক সময় আনন্দ। এই আনন্দ কখনো ভাষায় প্রকাশ করে বুঝানো যাবেনা। ছেলে থাকাটাও আনন্দের বাবা হওয়াটাও আনন্দের।

পৃথিবীর সকল বাবা মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা ভালোবাসা ও দোয়া রইলো যোগ করেন হাবিবুর রহমান।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও