প্রচন্ড তাপদাহে শীতলক্ষ্যার পাড়ে

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৭ পিএম, ১৩ জুন ২০১৯ বৃহস্পতিবার

প্রচন্ড তাপদাহে শীতলক্ষ্যার পাড়ে

প্রচন্ড গরম থেকে কিছুটা স্বস্তি পেতে শীতলক্ষ্যা নদী পাড়ে ভিড় জমাচ্ছে সদর ও বন্দরবাসী। ১৩ জুন বৃহস্পতিবার প্রচন্ড তাপদাহ বৃদ্ধি পর বিকাল সূর্য তেজ কমানো পর থেকে বন্দরের রূপালী ও শহরের নদীর ওয়ার্কওয়েতে আবাসিক ও কর্মজীবী মানুষরা। শিশু-কিশোর বৃদ্ধ ও কর্মজীবী বিভিন্ন বয়সী মানুষদের উপচে ভিড়ে ঈদে মত আনন্দ বয়ে যাচ্ছে ওই এলাকাগুলোতে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বন্দর রূপালী মন্দির এলাকার শীতলক্ষ্যা নদী পাড়ে বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে এক বনভোজনের মত এলাকাবাসী আনন্দ প্রকাশ করে। তারা ঈদ মত আনন্দ বয়ে আনতে সকলের মধ্যে আলোচনা ও শিশুদের খেলা চালু করা হয়। রূপালীর নিপা রানী দাস জানান, প্রচন্ড গরমে সন্তানদের নিয়ে সকাল থেকে ঘরে বন্দী হয়ে পড়ে ছিলাম। ফ্যানের বাতাসেও গরমে তাপ চারিদিক ঘরে ছড়িয়ে পড়েছিল। সময় অতিক্রম শেষে দুপুরে সূর্য কিছু তেজ কমতে থাকলে, বাড়ি সামনে নদীর পাড়ে সন্তানদের নিয়ে বসে সময় কাটিয়ে গরমের সেই তাপ থেকে মুক্ত থাকতে চাচ্ছি।

অপরদিকে শহরের মোঃ লাভলু হোসেন জানান, রিভারভিউ মার্কেটে হোসিয়ারী কাজ করি। সকাল থেকে প্রচন্ড গরমে অসুস্থ হয়ে পড়ে ছিলাম। স্যালাইন খেয়েও গরম থেকে মুক্ত থাকতে পারছি না। দুপুরে খাবারও খেতে পারিনি, হোসিয়ারীর বন্ধু পরামর্শে শীতলক্ষ্যা নাসিকে ওয়ার্কওয়ে-কে সময় কাটাচ্ছি। কবে নাগাদ এই গরম থেকে বাচঁবো আল্লাহ ভালো জানে।

এদিকে সেন্ট্রাল খেয়াঘাটের দায়িত্বরত মোঃ দিদার খন্দকার জানান, গরমে অনেকে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে দিক ছুটছে। ঘাট দিয়ে অনেক অসুস্থ লোকদের পাড় করা হয়েছে। সকালে এক মহিলা অসুস্থ হয়ে পড়েছিল, তাকে সুস্থ করে ঘাটের লোকজনেরা। নাসিকের ওয়ার্কওয়ে দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত অনেক লোকজনদের বসে থাকতে দেখা গেছে, তা কখনো এভাবে দেখা যায়নি।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও