ঝুঁকিপূর্ণ হাবিব কমপ্লেক্সে এবার রঙের ছোয়া

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪৩ পিএম, ১৫ জুন ২০১৯ শনিবার

ঝুঁকিপূর্ণ হাবিব কমপ্লেক্সে এবার রঙের ছোয়া

নারায়ণগঞ্জ শহরের হাবিব কমপ্লেক্স সহ আশেপাশে অনেক মার্কেটের ভবনকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন। এ ঘোষণাকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে প্রকাশ্যে বাঁশ লাগিয়ে ভবনকে রঙ ছোয়া লাগানো ব্যবস্থা করছে মালিকের মালিক ও দোকানদার।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রাইসিস সভায় হাবিব কমপ্লেক্স, রিভারভিউ কমপ্লেক্স সহ শহরের কয়েকটি মার্কেটকে ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ করে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। এ ঘোষনা পর থেকে মার্কেটগুলোর মালিক ও দোকান মালিকদের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হয়। সে কারণে ভবনের ভাঙ্গা অংশগুলো মেরামত ও ভবনকে ঝকঝক করার জন্য রঙ লাগানোর জন্য কাজ চালু করেছে।

৩০ এপ্রিল দুপুর সাড়ে ১২টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রাইসিস কমিটি অঞ্চল-১,২,৩ এর সভায় শহরের রিভারভিউ কমপ্লেক্স এবং হাবিব কমপ্লেক্সের নাম উল্লেখ করে এমপি সেলিম ওসমান বলেন, মার্কেট দুটিতে নামে বেনামে হাজার হাজার প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। যারা গার্মেন্টস ও নীটওয়্যার নাম দিয়ে তারা বিভিন্ন ব্রান্ডের নাম ব্যবহার অবৈধভাবে পন্য বিদেশে পাচার করছে। এরা বিকেএমইএ, বাংলাদেশে হোসিয়ারী অ্যাসোসিয়েশন বা নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের কোন সদস্য পদ নেই। সম্পূর্ণ অবৈধভাবে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আমরা যারা বৈধভাবে ব্যবসা করছি তাদেরকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। দেশের রপ্তানি আয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। অথচ খোঁজ নিলে দেখা যাবে এরা কোন প্রকার ইউডি প্রদান করেনা, এদের কোন টিন সার্টিফিকেট নাই, কারখানাগুলোতে অগ্নি নির্বাপক কোন ব্যবস্থা নেই। নেই জরুরি অবতরণ ব্যবস্থা। এখানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রতিদিন কয়েক হাজার পাইকার সমাগম হয়। তারা হয়তো জানেনই না মার্কেটের কোথায় কি রয়েছে। এখানে যদি রানা প্লাজা বা চকবাজারের মত ঘটনা ঘটে তাহলে কয়েক হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটবে। মানুষের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে রেখে পয়সা উপর্জান করবে এটা কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়। তাই ঈদের পর উক্ত দুটি মার্কেট সহ নারায়ণগঞ্জে যেখানে যেখানে নীটওয়্যার বা গার্মেন্টস নাম দিয়ে অবৈধভাবে ব্যবসা করে দেশের রপ্তানি বাণিজ্যকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক। আর যদি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় তাহলে যারা বিকেএমইএ, বাংলাদেশ হোসিয়ারী অ্যাসোসিয়েশন এবং নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের সদস্য নয় এদের কোন দায়িত্ব এই সংগঠন গুলো নিবেনা।

এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিকেএমইএ এর পক্ষ থেকে একটি লিখিত আবেদন জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন জমা দিয়েছেন।

অপরদিকে শহরের নয়ামাটি ও উকিলপাড়া হোসিয়ারী শিল্প এলাকা দুটিকেও ঝুকিপূর্ণ এলাকা উল্লেখ করে তাদেরকে অন্যত্র স্থানান্তরের ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা উল্লেখ করেছেন বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও