গাড়ি বানিয়ে আকাশের খ্যাতি এখন আকাশ ছোঁয়া

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৪ পিএম, ১৭ জুন ২০১৯ সোমবার

গাড়ি বানিয়ে আকাশের খ্যাতি এখন আকাশ ছোঁয়া

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার লামাপাড়ায় ল্যাম্বোরগিনির আদলে গাড়ি নির্মান করে সারাদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে আকাশ। এনিয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিউজ নারায়ণগঞ্জে সংবাদ প্রকাশিত হবার পরপরেই সারাদেশে ভাইরাল হয়ে পড়ে খবরটি। স্থানীয় জাতীয় দৈনিক থেকে শুরু করে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও খবর প্রকাশিত হয়। দেশ বিদেশের বিভিন্ন গাড়ি নির্মাতা এবং আমদানীকারকদের নজরে আসে আকাশের নাম।

গত ১৩ জুন প্রথমবার প্রকাশিত হয় আকাশের নিজ হাতে নির্মিত পরিবেশবান্ধব গাড়ির খবর। সেদিনই নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান পুত্র অয়ন ওসমান তাকে এক লাখ টাকা অনুদান প্রদান করেন। গাড়িটি নির্মাণে প্রায় ৩লাখ টাকা ব্যয় হলেও তার এই অনুদান আকাশের কাজকে অনুপ্রাণিত করবে বলে বিশ্বাস আকাশ ও তার পরিবারের। শখের বশে তৈরী করা ল্যাম্বোরগিনি আদলের গাড়িটি নিয়ে সারাদেশে এতটা মাতামাতি হবে তা হয়ত আকাশ নিজেও কল্পনা করেনি।

বর্তমানে আকাশ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ইন্টারভিউ আর শুভাকাংখীদের শুভেচ্ছাতেই সিক্ত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত। কেউ কেউ আকাশের সাথে গাড়িতে চড়ে দেখতে চাচ্ছেন। কেউবা নির্মাণের অর্ডার দিচ্ছেন আবার কেউ তার বানানো গাড়িটি দেখেই কেনার প্রস্তাব দিচ্ছেন। তবে নিজের হাতে তৈরী করা গাড়িটি বিক্রি করতে মোটেও আগ্রহী নন আকাশ। বরং নিজের হাতে ছোট একটি গাড়ি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান তৈরী করতেই বেশী আগ্রহ তার।

আকাশ জানায়, আমার গাড়ীর প্রযুক্তি বা নকশা আমি বাইরে কারও কাছে বিক্রি করতে চাই না। আমি চাই আমার বাবার গ্যারেজের কাছেই একটি গাড়ি নির্মাণ কারখানা দিতে। এতে করে আমার স্বল্প লাভ হলেও আমি তাতেই পরিবার পরিজন নিয়ে থাকতে চাই। বেশি লাভের আশায় দূরে গিয়ে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হতে চাইনা। সরকার যদি অটো রিক্সার মত এই অটো গাড়ীটি বাজারজাত করার অনুমতি দেয় তাহলেই আমি সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞ।

তার বাবা নবী হোসেনের মুখেও একই সুর। ছেলের দুর্ঘটনা হবার ভয়ে বাইক কিনতেও সায় দেননি তিনি। একই ভাবে গাড়ির জন্যেও ছেলেকে বিদেশে বা দূরে পাঠাবো না আমি। আমার ছেলে আমার সাথে থেকেই যা পারবে করবে। ছেলেকে দূরে চলে গেলে আমার নিজের গ্যারেজের কাজ বন্ধ হয়ে যাবে। এই ছেলে ছাড়া আমার গ্যারেজে অন্য কেউ কাজ করেনা।

উল্লে¬খ্য, আকাশের তৈরী পরিবেশবান্ধব এই গাড়ীটিতে প্রায় ৫টি ব্যাটারি লাগানো হয়েছে। যেটি প্রায় ১০ ঘণ্টা রাস্তায় চলতে সক্ষম। আর এই ব্যাটারি পূর্ণ চার্জ হতে লাগবে ৫ ঘণ্টা। আর রাস্তায় নামলে ২জন আরোহীকে নিয়ে ঘণ্টায় ৪৫ কিলোমিটার বেগে ছুটতে পারবে গাড়িটি। পুরো এই গাড়িটি তৈরি করাতে তার ব্যয় হয়েছে ৩ লাখ টাকা। তবে গাড়ির বডি কার্বন ফাইবারে নিয়ে আসলে ৩ লাখ টাকাতেও বানানোও যাবে বলে জানায় আকাশ।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও