নতুন রূপে সাজবে চাষাঢ়ার বিজয় স্তম্ভ

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০০ পিএম, ১০ জুলাই ২০১৯ বুধবার

নতুন রূপে সাজবে চাষাঢ়ার বিজয় স্তম্ভ

প্রতিটি শহরের নিজস্ব কিছু চিহ্ন বা স্থাপনা রয়েছে। যা দেখলে সেই শহরকে চেনা যায়। বাংলাদেশের ধনী জেলার উপাধিপ্রাপ্ত নারায়ণগঞ্জের স্থাপনাটি হচ্ছে প্রাণ কেন্দ্র চাষাঢ়া গোল চত্তরের বিজয় স্তম্ভ। এই স্তম্ভটিই নারায়ণগঞ্জের পরিচয় সমগ্র বাংলাদেশে তুলে ধরে।

জানা গেছে, জাতির বীর সন্তান মহান মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে এই স্মৃতিস্তম্ভটি স্থাপন করা হয়। তিন খুঁটি বিশিষ্ট স্থাপনাটির ভেতরের অংশে রয়েছে মুক্তিযোদ্ধাদের নাম ফলক। প্রতিবছর বিজয় দিবস ও মহান স্বাধীনতা দিবসে নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ বিজয় স্তম্ভে ফুল দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন। যা এই স্থাপনাটির গুরুত্ব আরো কয়েকগুণে বাড়িয়ে দেয়।

দীর্ঘ বছর আগে বিজয় স্তম্ভটি করা হলেও জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে নির্মাণের পর একবারও সংস্কার করা হয়নি। যে কারণে স্থাপনাটির বিভিন্ন জায়গায় ভেঙ্গে গিয়েছিল। বিজয় স্তম্ভের গায়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সংগঠনের মিছিল সমাবেশের রঙ দিয়ে লেখা ও ব্যানার পোস্টার টাঙানোর কারণে এর সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। তবে এবার জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বিজয় স্তম্ভকে নতুন ভাবে সাজানোর পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। যার বাজেট ধরা হয়েছে ৩০লাখ টাকা। এবার বিজয় স্তম্ভের চার পাশে গাছ লাগানো হবে। রাতে যাতে আরো সুন্দর দেখায় সে জন্য বিভিন্ন রঙের লাইট লাগানো হবে। সৌন্দর্য বর্ধণের জন্য স্থাপন করা হবে পানির ফুয়ারা বা ঝরনা।

এ প্রসঙ্গে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ১৯৯০-৯১ সালে  জেলা পরিষদের নিজস্ব অর্থায়নে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে এই বিজয় স্তম্ভটি স্থাপন করা হয়। এটি তৈরীর পর থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো সংস্কার করা হয়নি। তবে এবার বড় ধরনের বাজেট নিয়ে সংস্কার কাজ ধরা হয়েছে। বাজেট ৩০লাখ টাকা। এই টাকায় না হলে বাজেট আরো বাড়ানো হবে।

তিনি আরো বলেন, চারদিক ঘেরাও করে দেয়াল দেওয়া হবে। দুই পাশে প্রবেশ পথ রেখে অন্য জায়গায় গাছ লাগানো হবে। এছাড়া সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য পানির ফুয়ারা বা ঝরনা স্থাপন করা হবে। একই সাথে রাতে যাতে আকর্ষনীয় লাগে সে জন্য লাইটিং করা হবে। প্রায় ১মাস হয়েছে সংস্কার কাজ চলছে। এখন কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। কারণ ঘনঘন বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির জন্য কাজ করা যাচ্ছে না। তবে ডিসেম্বরে যাতে আমরা বিজয় দিবস পালন করতে পারি সেই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করা হচ্ছে। এখনো অনেক সময় আছে তাই মনে হয় ডিসেম্বরের আগেই কাজ শেষ হবে।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও