ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডাবল রেল লাইনের কাজ শুরু

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৭ পিএম, ২৯ জুলাই ২০১৯ সোমবার

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডাবল রেল লাইনের কাজ শুরু

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেল লাইন ডাবল করার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। এর ধারাবাহিকতায় রেল লাইনের আশে পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হচ্ছে। ফলে একদিন দুই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। যা চলবে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এ উচ্ছেদ অভিযানের ফলে চাষাঢ়া থেকে কেন্দ্রীয় রেল স্টেশন পর্যন্ত লাইনের দুই পাশের পরিধি বৃদ্ধি করা হবে।

২৯ জুলাই সোমবার সকাল থেকে বিকেলে পর্যন্ত শহরের  চাষাঢ়া রেল স্টেশন এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। একটি ৪ তলা ও ২টি ৫ তলা ভবনের কিছু অংশ সহ টং দোকান, টিনের ঘর, আধা পাকা ঘর ভেঙে গুড়িয়ে দেয়া হয়।

চাষাঢ়া রেল স্টেশনের একজন কর্মকর্তা জানান, ‘ঢাকা-কমলাপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ পর্যন্ত ডাবল রেল লাইনের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল নগরবাসীর। এরজন্য বিভিন্ন সময় সভা সমাবেশ ও মানববন্ধন সহ নানা কর্মসূচি পালন করেছে। বর্তমান সরকার নারায়ণগঞ্জকে অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে উন্নয়নের জন্য গুরুত্ব দিয়েছে। ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য ডাবল রেল লাইন করা হচ্ছে। এতে করে খুব সহজে ও কম সময়ে ঢাকা পৌছাতে পারবে নারায়ণগঞ্জবাসী। একই সঙ্গে অর্থনেতিক সমৃদ্ধি হবে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বন্দর নগরী হিসেবে নারায়ণগঞ্জ ঐতিহ্যবাহী শহর। এখান থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাট, রঙ, সুতা, তেল, চিনি, আটা ময়দা, ডাল, ভূষামাল নিয়ে যাওয়া হতো। ফলে নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে ছিল দেশের বিভিন্ন জেলার সঙ্গে ট্রেন সংযোগ। পরবর্তীতে ধীরে ধীরে ট্রেনের যোগাযোগ শুধু মাত্র ঢাকার সঙ্গে হওয়ায় বাণিজ্যিক প্রসারও কমে আসে। এক পর্যায়ে শুধু মাত্র ঢাকা নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল শুরু করে। কিন্তু সেটাও ধীরে ধীরে বেহাল দশা দেখা যায়। ট্রেনের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত আসন না থাকা, সিডিউল বিপর্যয়, ফ্যান, বাথরুম সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা না থাকালেও ভাড়া কম হওয়ায় সাধারণ মানুষের প্রধান বাহন ছিল ট্রেন। এর ধারাবাহিকতায় সড়ক পথে যানজট হওয়ায় ডাবল ট্রেনের দাবি উঠে নগরবাসীর মধ্যে থেকে। যার প্রেক্ষিতে ডেমো ট্রেন যাতায়ত শুরু করে। সেটাও যখন যাত্রীদের চাহিদা পূরণে ব্যর্থ তখন নতুন করে ডাবল রেল লাইনের দাবি উঠে। দীর্ঘদিন এরজন্য অপেক্ষা করলেও নতুন করে কাজ শুরু হয়েছে। ফলে নগরবাসীর আশা পূরণে একধাপ এগিয়ে গেছে।

সোমবার সরেজমিনে দেখা যায়, অভিযানের শুরুতে চাষাঢ়া রেল স্টেশনের দুইপাশের শতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। পরে ধীরে ধীরে উচ্ছেদ চলে কেন্দ্রীয় রেলওয়ে স্টেশন অভিমুখে। চাষাঢ়া রেললাইন সংলগ্ন জাতীয় পার্টি নেতা আল জয়নালের মালিকানাধীন আল জয়নাল ট্রেড সেন্টার নামে ৪ তলা ভবনের পশ্চিম দিকের ১০ ফুট জায়গা ভেকু দিয়ে ভেঙ্গে দেওয়া হয়। এছাড়া রেল লাইনের পশ্চিম দিকে অবস্থিত বাগানবাড়ি রেস্টুরেন্ট গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছেন, রেললাইনের দুই পাশে রেলওয়ের ভূমি উদ্ধারে অভিযান চলছে। এতে অবৈধভাবে দখলে রাখা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। ৪ তলা ভবনের ১০ ফুট জায়গা রেলওয়ের নিজস্ব সম্পত্তি তাই ভেঙে দেয়া হয়েছে। পাশের বেইলি টাওয়ার ভাঙতে গেলে এর মালিক কাশেম জামাল রাজউক ও রেলওয়ের বিরুদ্ধে মামলার নথি উপস্থাপন করলে তাদের একদিনের সময় দেওয়া হয়।

রেলওয়ে পুলিশের (জিআরপি) নারায়ণগঞ্জ স্টেশন ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আলী আকবর বলেন, ৫ ঘণ্টায় দুই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। যার মধ্যে ১টি ৪ তলা ও ২টি ৫ তলা ভবনের কিছুটা অংশ, টং দোকান, টিনের ঘর, রিকশার গ্যারেজ, আধা-পাকা ঘর রয়েছে। অভিযান সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলবে।

তিনি বলেন, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডাবল রেললাইনের কাজ শুরু হয়েছে। ওই কাজের অংশ হিসেবে রেল লাইনের পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হচ্ছে। এজন্য ১০ দিন আগে সবাইকে চিঠি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও দুইদিন আগে থেকে মাইকিং করা হয়েছে। এ অভিযানে কেন্দ্রীয় রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত চলবে। তবে উচ্ছেদ অভিযানে কোন বাধা আসেনি। স্থানীয় লোকজনও সহযোগিতা করছে।

আলী আকবর বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই ডাবল রেল লাইনের দাবি জানিয়েছিল। ডাবল রেল লাইনের কাজ শুরু হয়ে গেছে। নারায়ণগঞ্জ অংশে কাজ খুব দ্রুত শুরু হবে। এজন্যই উচ্ছেদ অভিযান করা হচ্ছে। রেল লাইনের কাজের জন্য আগে কাঠামো ঠিক করতে হবে। এছাড়াও নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো কঠোর করা হবে। যাতে কেউ পুনরায় দখল না করতে পারে।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও