করোনাতেও থামছেন না তিন নারী ইউএনও

হাফসা আক্তার || স্পেশাল করেসপনডেন্ট ১১:২৪ পিএম, ২২ মার্চ ২০২০ রবিবার

করোনাতেও থামছেন না তিন নারী ইউএনও

করোনা ভাইরাসের ভয়ে যেখানে মানুষ নিজ নিজ কাজকর্ম থেকে ছুটি নিতে চাইছেন, সেখানে জনগণের স্বার্থে ছুটির দিনেও নিজের পরিবারকে সময় না দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ জেলার তিন নারী উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা। তাঁরা হলেন, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক, বন্দর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার এবং রূপগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম।

নাহিদা বারিক

২০ মার্চ (শুক্রবার) ফতুল্লা এবং পাগলায় বিকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালায় সদর উপজেলার ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক। এ সময় অতিরিক্ত মূল্য আদায়ের অভিযোগে পৃথকভাবে ৪টি দোকানকে ৪৮ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং তা আদায় করেন। একই দিনে বিয়ের অনুষ্ঠান করায় একটি কমিউনিটি সেন্টারকে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেন তিনি। এবং ফতুল্লায় পৃথক দুটি ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করেন তিনি।

পরের দিন ২১ মার্চ (শনিবার) করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ফতুল্লায় দুটি কমিউনিটি সেন্টার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেন তিনি। এছাড়া দুটি বাজারে দ্রব্যমূল্য বেশি রাখায় ৫ টি দোকানে মোট ৮৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন তিনি।

নাহিদা বারিক নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘আমরা এই সংকটময় পরিস্থিতিতে বিন্দুমাত্র ঝুঁকি নিতে পারি না। এ সময় দেখা যাচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীরা সুযোগে বেশি মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীগুলো বিক্রি করছে। আমরা দেখেছি শিশু খাদ্য তারা দ্বিগুন মূল্যে বিক্রি করছে, যা অত্যন্ত অমানবিক। জনগনের মধ্যে যাতে ভিতি সৃষ্টি না হয় সে কারণে এ সংকাটময় পরিস্থিতি সামাল দিতে আমরা সকলকে একত্রিত হয়ে কাজ করছি।’

শুক্লা সরকার

২১ মার্চ (শনিবার) দুপুরে বন্দরের নবীগঞ্জ বাগবারি এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালায় বন্দর উপজেলার ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার। এ সময় অবৈধভাবে ওষুধ মজুদ রাখায় বন্দরের এক ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

শুক্লা সরকার নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘করোনায় উদ্ভুত এ পরিস্থিতিতে আমরা ছুটির কথা ভাবতে পারি না। এ ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতিতে আমরা সকলে মিলে একত্রে কাজ করে যাচ্ছি। ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানের পাশাপাশি আমরা জনগনকে সচেতন করার চেষ্টা করছি। আমরা সর্বক্ষন এটা বলছি এ সময় প্রয়োজন সতর্কতা অবলম্বন করা। প্রয়োজন ছাড়া যাতে কেউ বাড়ি থেকে বের না হয়, সে বিষয়েও আমরা সবাইকে ব্রিফিং দিচ্ছি।’

মমতাজ বেগম

২০ মার্চ (শুক্রবার) সকালে রূপগঞ্জ উপজেলার রূপসী এলাকার ইতালি প্রবাসী জামাতা ও তার শ^শুরকে এ জরিমানা ও আইসোলেশন রাখার নির্দেশ প্রদান করেছেন ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মমতাজ বেগম।

২১ মার্চ (শনিবার) ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ভুলতার করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় দুইজনকে জরিমানা করেন। এক জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কঠোর নির্দেশ দেন তিনি।

মমতাজ বেগম নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘এ সময় আমরা পরিবার বা ব্যক্তিগত জীবনকে সময় দেয়ার চেয়ে সম্পূর্নরুপে করোনা ভাইরাসের ফলে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তাকে গুরুত্ব দেয়া বেশি প্রয়োজন মনে করছি। বর্তমানে প্রত্যেকের ব্যক্তিগত জীবনের চেয়ে করোনা ভাইরাসের কারণে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে সেখানে জনস্বার্থ দেখা বেশি গুরুত্বপূর্ন। সকলে সতর্ক হলে এ পরিস্থিতিকে জয় করা সম্ভব, ফলে আমরা সে চেষ্টাই করছি।’


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও