লক্ষাধিক শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াবে সিটি কর্পোরেশন

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:১৬ পিএম, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বৃহস্পতিবার

লক্ষাধিক শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াবে সিটি কর্পোরেশন

এবার জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইনে লক্ষাধিক শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াবেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। শনিবার ৯ ফেব্রুয়ারী সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৩৪০টি কেন্দ্রে এ কার্যক্রম পরিচালনা করবে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। ক্যাম্পেইন চলাকালে জনসাধারণের মাঝে বিভিন্ন স্বাস্থ্য ও পুষ্টিবার্তা প্রচার করা হবে। বুধবার বেলা ১১টায় নগর ভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনেএসব কথা জানানো হয়।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ এফএম এহতেশামুল হক বলেন, আগামী ৯ ফেব্রুয়ারী শনিবার সারা জেলায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ক্যাম্পেইন উদযাপিত হবে।

এদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত, ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী প্রায় ২০ হাজার ৩শ ১৪ জন এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের একটি করে ১ লক্ষ ৮ হাজার ১শ ২১ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

তিনি বলেন, ভিটামিন ‘এ’ যে শুধুমাত্র অপুষ্টিজনিত অন্ধ্যত্ব থেকে শিশুদের রক্ষা করে তাই নয়, ভিটামিন ‘এ’ শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, ডায়রিয়ার ব্যাপ্তিকাল ও জটিলতা কমায় এবং শিশু মৃত্যুর ঝুকি কমায়। বাংলাদেশ ভিটামিন ‘এ’ এর অভাব জনিত সমস্যা প্রতিরোধে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন একভুত হয়ে বছরে দুই বার জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন পালন করে থাকে।

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য মাত্রা সর্ম্পকে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরো বলেন ৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের মধ্যে ভিটামিন ‘এ’ এর অভাব জনিত রাতকানা রোগের প্রাদূর্ভাব এক শতাংশের নীচে কমিয়ে আনা এবং তা অব্যাহত রাখা এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে অপুষ্টি জনিত মৃত্যু প্রতিরোধ করা।

৯০ শতাংশএর বেশি শিশু যাদের বয়স ১২ থেকে ৫৯ মাস, তারা বছরে দুইবার লাল রংয়ের ভিটামিন‘এ’(দুইলক্ষ্য আই ইউ) ক্যাপসুল পাবে। এবং যাদের বয়স ৬ থেকে ১১ মাস তারা বছরে একবার নীল রংয়ের ভিটামিন ‘এ’ (এক লক্ষ্য আই ইউ) ক্যাপসুল পাবে।

অভিবাবকদের প্রতি এক প্রয়োজনীয় বার্তায় তিনি বলেন ভিটামিনক্যাপসুল ভরা পেটে খাওয়াতে হবে,এটা শিশুর জন্য সম্পূর্ন নিরাপদ,পাশর্^ প্রতিক্রিয়া হওয়ার তেমন কোনঝুঁকি নেই, যদি কোন সমস্যা দেখা দেয় তাহলে নারায়ণগঞ্জের দুটি হাসপাতালেই প্রয়োজনীয় সেল খোলা হয়েছে।সিটি কর্পোরেশনএলাকায় ৩শ ৪০টি কেন্দ্র থাকলেও পুরো জেলায় ১ হাজার ৪শ ১টি কেন্দ্রে এই ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সেনেটারী ইন্সপেক্টর সাহাদাৎ হোসেন, সেনেটারী ইন্সপেক্টর শাহিদা বেগম, ই পিআই সুপারভাইজার মুরশিদা আক্তার, সিটিকর্পোরেশনের মেডিক্যাল অফিসারডাঃ শেখ মোস্তফা আলী এবং জেলা ইপিআই সুপারভাইজার লুৎফর রহমান।

এর আগে নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোঃ এহসানুল হক জানান, জাতীয় ভিটামিন "এ"প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলায় ‘এ’ ক্যাপসুলের জন্য উদ্দিষ্ট শিশু ৬-১১ মাসের ৩৬ হাজার ৭৯ জন শিশুকে নীল রংয়ের এবং ২ লাখ ৭৪ হাজার ৩৫৪ জন শিশুকে (১৫-২৯ মাস বয়সি) লাল রংয়ের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। স্থায়ী ও অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র থাকবে ১ হাজার ৫৬টি, ইউনিয়নে ভ্রাম্যমান কেন্দ্র থাকবে ১৫টি সর্বমোট ১ হাজার ৭১টি কেন্দ্র। এসব টিকাদান কেন্দ্রে সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সংস্থার ২ হাজার ১৪২ জন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মী, শিক্ষক ও স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে জাতীয় ভিটামিন "এ"প্লাস ক্যাম্পেইন সম্পন্ন করা হবে বলে কর্মশালায় জানানো হয়।


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও