ডাক্তারের পরামর্শে ৩০০ শয্যা থেকে ক্লিনিকে গিয়ে প্রসূতি মৃত্যু

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:২৭ পিএম, ৫ মে ২০১৯ রবিবার

ডাক্তারের পরামর্শে ৩০০ শয্যা থেকে ক্লিনিকে গিয়ে প্রসূতি মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর এলাকার ৩শ’ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে সিজারের জন্য গিয়েছিলেন সিদ্ধিরগঞ্জের সৈয়দপুর এলাকার বাসিন্দা রাসেলের প্রসূতি স্ত্রী কবিতা। কিন্তু সেই সিজারই যেন তার জীবনের শেষ সিজার হিসেবে পরিণত হল।

ডাক্তারের ব্যবসায়িক মনোভাব আর ভুল চিকিৎসার কারণে কবিতার শেষ পরিণতি হলো মৃত্যু। সন্তানের আলোকিত মুখ আর দেখা হলো না কবিতার। ৫ মে রোববার সন্ধায় শহরের খানপুর এলাকার ইউনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এই ঘটনা ঘটে।

কবিতার বড় ভাই তাজুল ইসলাম জানান, সিজারের জন্য তারা কবিতাকে প্রথমে খানপুর ৩ শ’ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তখন হাসপাতালের গাইনি বিশেষজ্ঞ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এখানে সিজার হবে না। আপনারা প্রসূতিকে খানপুরের ইউনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভর্তি করেন। আমি সেখানে সিজার করাবো।

ডাক্তার জাহাঙ্গীরের কথামতো কবিতাকে ইউনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভর্তি করেন। ভর্তির সাথে সাথেই আমাদেরকে বলা হয় রোগীর অবস্থা বেশি ভাল না। ১ ঘণ্টার মধ্যে সিজার করতে হবে। আপনারা সবকিছু ব্যবস্থা করেন। কিন্তু পরবর্তীতে ৩ থেকে ৪ ঘন্টা পর সিজার করা হয়। এরপর আমাদের বলা হয় বাচ্চা ও বাচ্চার মা সুস্থ্য আছে। তখনও বলা হয়নি রক্ত লাগবে।

কিন্তু কিছুক্ষণ পর হঠাৎ করে বলা হয় রক্ত লাগবে, রক্তের ব্যবস্থা করেন। তাদের কথামতো রক্তের ব্যবস্থা করা হলে বলা হয় মারা গেছে। তারা রক্তের ব্যবস্থা করার কথা বলে মৃত্যুর বিষয়টি গোপন করতে চাইছিল। ডাক্তারদের ভুল চিকিৎসার কারণেই প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে।


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও