ডাক্তারদের গিফট বাণিজ্য

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৫ পিএম, ২ জুন ২০১৯ রবিবার

ছবি প্রতিকী
ছবি প্রতিকী

সরকারী বেসরকারী হাসপাতালের চিকিৎসকদের হাত ধরে ওষুধ কোম্পানীগুলো নিজ নিজ কোম্পানীর ওষুধ প্রেসক্রিপশন লেখিয়ে থাকেন। এর ফলে ওষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধিরা চিকিৎসকদের কাছে অনেকটা জিম্মি হয়ে পড়ে। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চিকিৎসকরা এককালীন, মাসিক কমিশন বাণিজ্যের পাশাপাশি ঈদের মত বড় উৎসবগুলোতে গিফট বাগিয়ে নেয়। আর ওষুধ কোম্পানিগুলো নানা রকম গিফট দিয়ে চিকিৎসকদের মন রক্ষার্থে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

সম্প্রতি চিকিৎসকদের গিফট বাণিজ্যের নানা তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। যদিও এসব ঘটনা নতুন কিছু নয়। দীর্ঘদিন ধরে ধারাবাহিকভাবে চলামান এসব লেনদেনের ঘটনা অনেকটা ওপেন সিক্রেটে পরিণত হয়েছে।

জানা গেছে, ‘প্রতিটি সরকারী ও বেসরকারী হাসপাতালে, বিশেষ করে সরকারী হাসপাতালের রোগীদের প্রেসক্রিপশনে নির্দিষ্ট কোম্পানির ওষুধ লিখে দেয়ার জন্য ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা চিকিৎসকদের শরনাপন্ন হয়। এজন্য প্রতিনিধিরা প্রায় নিয়মিত সময় করে চিকিৎসকদের সাথে দেখা সাক্ষাৎ করে থাকেন। এছাড়া তাদের লোক দিয়ে চিকিৎসকের কক্ষ থেকে বের হওয়া রোগির প্রেসক্রিপশন দেখতে রীতিমত যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়। এতে রোগীও তার স্বজনার হয়রানির শিকার হয়। ওষুধ কোম্পানীর সাথে মৌখিক চুক্তি হওয়া চিকিৎসকেরা রোগির প্রেসক্রিপশনে সেসব ওষুধ লিখে বিভিন্ন মেয়াদে কমিশন হাতিয়ে নেয়। এককালীন, মাসিক, বাৎসরিক বিভিন্ন মেয়াদের কমিশন হাতিয়ে নেয়। এছাড়া ঈদ, পূজো, পহেলা বৈশাখ সহ বিভিন্ন উৎসবে বিভিন্ন ধরণের গিফট হাতিয়ে নেয়। এক্ষেত্রে চিকিৎসকরা অনেক সময় গিফট দাবি করে থাকেন। আর ওষুধ প্রতিনিধিরা বাধ্য হয়ে তাদের মন রক্ষার্থে গিফট দিয়ে থাকেন।

ওষুধ প্রতিনিধি বলেন, ‘চিকিৎসকদের সাথে আমাদের লেনদেন অনেক দিনের। আমাদের ওষুধ ভাল হলে আমাদেরটা লিখবে এতে বলার কি আছে। তবে অনেক সময় চিকিৎসকরা যাতে ভুলে না যায়। সে জন্য তাদের সাথে সাক্ষাৎ করে থাকি। আর চিকিৎসকদের অনুপ্রাণিত করতে কোম্পানির মার্কেটিংয়ের অংশ হিসেবে মাঝে মধ্যে বিভিন্ন ধরণে গিফট দিয়ে থাকি।’

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ওষুধ প্রতিনিধি বলেন, চিকিৎসকরা আমাদের কোম্পানির ওষুধ প্রেসক্রিপশনে লেখার ফলে বিভিন্ন মেয়াদে কমিশন দেয়া হয়। এটা অবশ্য চিকিৎসকের ডিপার্টমেন্ট, পদ ও জনপ্রিয়তার উপর ভিত্তি করে কমিশনের হার নির্ধারণ করা হয়। আর ঈদের মত বড় বড় উৎসবগুলোতে বিভিন্ন ধরণের গিফ্ট দেয়া হয়। তবে অনেক সময় চিকিৎসকরা গিফ্ট দাবি করে বসে। এতে অনেক সময় বিপাকে পড়তে হয়। তবে চিকিৎসকদের মন রক্ষার্থে বাধ্য হয়ে কোম্পানির কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে গিফ্ট ম্যানেজ করতে হয়।

মার্কেটিয়ের আরেক প্রতিনিধি বলেন, ‘পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের একজন জনপ্রিয় চিকিৎসককে এক ওষুধ কোম্পানী তাদের ওষুধ ৫ বছর যাবত লেখার জন্য উত্তরায় একটি বাড়ি ও একটি গাড়ি গিফট করেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘ওষুধ কোম্পানির সাথে চিকিৎসকদের কমিশন ও গিফটের মাধ্যমে একটা লেনদেনের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। এতে করে চিকিৎসকরা কমিশন বাণিজ্যে মেতে উঠে । আর বিভিন্ন উৎসবের সময়ে গিফট বাণিজ্যে মেতে উঠে। এই বিষয়গুলো এখন ওপেন সিক্রেটে পরিণত হয়ে উঠেছে। তবে এসব কারণে রোগীরা হয়রানীর শিকার হচ্ছেন।’


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও