৩০০ শয্যায় ডেঙ্গুর ফ্রী পরীক্ষা বন্ধে আক্রান্ত রোগীর দুর্ভোগ

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০১ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৯ মঙ্গলবার

ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

শহরের খানপুরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্তদের বিনামূল্যে ডেঙ্গুর এনএস ১ পরীক্ষার কার্যক্রম শুরু হতে না হতেই কীট (উপাদান) শেষ হয়ে পড়ায় আবারো বন্ধ হয়ে গেছে বিনামূল্যে ডেঙ্গুর এনএস ১ পরীক্ষার কার্যক্রম। সোমবার থেকে পরীক্ষাটি বন্ধ হয়ে পড়ায় রোগীদের ছুটতে হচ্ছে বাইরের ডায়াগনষ্টিক সেন্টারগুলোতে। এতে করে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

জানা গেছে, এনএস ১ নামের পরীক্ষায় সহজেই ডেঙ্গু শনাক্ত করা যায়। শরীর থেকে রক্ত নিয়ে এই পরীক্ষা করা হয়। রাসায়নিক ব্যবহার করে রক্তে ভাইরাস শনাক্ত করা হয়। রক্ত নেওয়ার চার ঘণ্টার মধ্যে ফলাফল জানানো সম্ভব। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়ার ছয় ঘণ্টা পর রক্ত নিলেও ফলাফল জানা সম্ভব। তবে নারায়ণগঞ্জে বেসরকারী ডায়াগনষ্টিক সেন্টারগুলোতে ডেঙ্গুর এনএস ১ নামের পরীক্ষা হলেও সরকারি কোন হাসপাতাল কিংবা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এই পরীক্ষাটি ছিলনা। বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল ও ১০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালসহ বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ছিলনা এনএস ১ নামের পরীক্ষার কোন ব্যবস্থা। পরে ডেঙ্গুর প্রকোপ ছড়িয়ে পড়তে শুরু করলে সরকার বিভিন্ন সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিনামূল্যে এনএস ১ নামের পরীক্ষাটি চালু করার লক্ষ্যে কীট (উপাদান) সরবরাহ করে।

সম্প্রতি শহরের খানপুরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে বিনামূল্যে এনএস ১ নামের পরীক্ষাটি চালু হয়। তবে কয়েকদিনের ব্যবধানে কীট (উপাদান) শেষ হয়ে পড়ায় বন্ধ হয়ে যায় বিনামূল্যের এনএস ১ নামের পরীক্ষাটি। যে কারণে আগত রোগীদের সকলকেই বাহির থেকে পরীক্ষাটি করাতে হচ্ছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ১ জুলাই থেকে ২০ আগষ্ট পর্যন্ত শতাধিক ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছিল। তাদের মধ্যে ৬-৭ জনকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছিল। বর্তমানে ২২ জন ভর্তি রয়েছে। চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন শতাধিক রোগী।

এ বিষয়ে হাসপাতালের সুপার ডা. আবু জাহেরের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, মঙ্গলবার পর্যন্ত অত্র হাসপাতালে ২২ জন ভর্তি রয়েছেন। যার মধ্যে মঙ্গলবার ৪ জন নতুন রোগী। তিনি জানান, বিনামূল্যের এনএস ১ নামের পরীক্ষাটির জন্য স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক প্রেরিত কীট (উপাদান) শেষ হয়ে যাওয়ায় পরীক্ষাটি আপাতত বন্ধ রয়েছে। সরকারিভাবে নির্দেশনা এসেছে অত্র হাসপাতালের আয় দ্বারা আমরা বাহির থেকে কীট সংগ্রহ করতে পারবো। আশা করছি দু’একদিনের মধ্যে বিনামূল্যের এনএস ১ নামের পরীক্ষাটি চালু করা সম্ভব হবে।


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও