নারায়ণগঞ্জে ডেঙ্গুতে প্রাণ গেল ৬ জনের

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৮ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৯ মঙ্গলবার

নারায়ণগঞ্জে ডেঙ্গুতে প্রাণ গেল ৬ জনের

নারায়ণগঞ্জে প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। আর এ জ্বর থেকে রেহায় পাচ্ছে না নারী, পুরুষ, শিশু সহ কোন বয়সের মানুষ। সেই হারে শিশু সহ মারাও যাচ্ছেন অনেকে। এখনও পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন শতাধিক আর নিহতের সংখ্যা ৫ থেকে বেড়ে ৬ হয়েছে। যার মধ্যে জেলা শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে একজন, অপর ৫জন রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

জানা গেছে, ১৯ আগস্ট সোমবার দুপুরে রাজধানীর মিটফোড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার ফাতেমা আক্তার নামে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়।

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রন্ত হয়ে গুরুতর অবস্থায় গত রোববার রাতে ফাতেমা আক্তার হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার দুপুরে মারা যান। তবে তিনি ডেঙ্গু জ্বরের পাশাপাশি লিউকেমিয়া (রক্ত ক্যান্সর) রোগী ছিলেন।

এর আগে ১২ আগস্ট শহরের আমলাপাড়া এলাকায় এগারো বছরের শিশু অভিজিৎ সাহা ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর গেন্ডারিয়ার ধুপখোলায় আজগর আলী নামে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

অভিজিৎ সাহা আমলাপাড়া এলাকার মন্টু সাহা ও পদ্মা সাহার ছেলে। সে চাষাঢ়ায় ইংরেজি মাধ্যম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাউন্টেন একাডেমীর পঞ্চম শ্রেনির ছাত্র।

৮ আগস্ট রাতে তিন বছরের শিশু মেহরিমা ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। সে রূপগঞ্জের ভাওয়ালিয়া এলাকার মোজাম্মেল বেপারীর মেয়ে। ঘটনার চারদিন আগে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ঢাকার ধানমন্তির রেনেসাঁ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল শিশুটি।

২৮ জুলাই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় ফতুল্লার বক্তাবলীল ছমিরনগর এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলে শান্ত। ঈদের পর তার কোরিয়া যাওয়ার কথা ছিল।

২৫ জুলাই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর মহাখালী এলাকার একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয় ফতুল্লার দেলপাড়া এলাকার আইডিয়াল স্কুলের প্রধান শিক্ষক বেলাল হোসেন মিন্টুর।

১২ জুলাই  শহরের বালুর মাঠ এলাকায় ইসলাম হার্ট সেন্টারে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে নারায়ণগঞ্জ কণ্ঠমালা আবৃত্তি সংগঠনের আবৃত্তি শিল্পী শাওন কবির (৩২) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের ৩০০শয্যা হাসপাতাল ও নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, এখনও পর্যন্ত ২২ জন রোগী ভর্তি আছে। এর মধ্যে চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছে প্রায় শতাধিক। তবে এখনও পর্যন্ত দুই হাসপাতালে নিহতের সংখ্যা নেই। এছাড়া হাসপাতাল থেকে এখন ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষা সহ অন্যান্য রক্ত পরীক্ষাও বিনামূল্যে করা হচ্ছে। তবে ঈদের আগে থেকেই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ধীরে ধীরে কমে আসছে।


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও