দাপুটে স্বাচিপ নেতা গরহাজির, রোগী দেখেন সহকারী!

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৬ পিএম, ২৬ আগস্ট ২০১৯ সোমবার

দাপুটে স্বাচিপ নেতা গরহাজির, রোগী দেখেন সহকারী!

নারায়ণগঞ্জ ৩০০শয্যা বিশিষ্ট খানপুর হাসপাতালের বহির্বিভাগে শিশু বিশেষজ্ঞ হিসেবে নিয়োজিত আছেন স্বাধীনতা চিকিতসক পরিষদ (স্বাচিপ) নারায়ণগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. বিধান চন্দ্র পোদ্দার। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে হাসপাতাল না এসে নিজের সহকারীকে দিয়ে প্রতিনিয়ত কোমলমতি শিশুদেরকে চিকিৎসা করাচ্ছেন তিনি। এতে করে ভয়ংকর ঝুঁকিতে আছে হাসপাতালটিতে চিকিৎসা নিতে আসা শিশুরা।

সোমবার ২৬ আগস্ট রোগীদের অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় এমন ভয়ংকর চিত্র। হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় ডা. বিধান চন্দ্র পোদ্দারের চেম্বারের সামনে দেখা যায় অসুস্থ শিশুদের নিয়ে লম্বা সারিতে দাঁড়িয়ে আছেন অভিভাবেকরা। দরজা খুলে ভেতরে ঢুকে দেখা যায় ডা. বিধান চেম্বারে নেই। সেখানে যিনি বসে আছেন তিনি অন্য কেউ। সেই ব্যক্তি শিশুদেরকে দেকছে এবং বিভিন্ন রোগীদেরকে ওষুধ ও পরীক্ষা লিখে দিচ্ছে। তবে প্রতিটি প্রেসক্রিপশনে ডা. বিধানের নাম সংবলিত সীল মেরে দেওয়া হচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালে তার চেম্বারের এক কর্মী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘‘স্যার (ডা. বিধান) সব সময় রোগী দেখেন না। মাঝে মাঝে আসে আবার চলে যায়। কখন আসেন কখন চলে যায় তা বলা যায় না। এখন যিনি রোগী দেখে তার নাম সজিব।’’

ডা. বিধান চন্দ্র পোদ্দার আওয়ামী লীগ সমর্থিত চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর নারায়ণগঞ্জ শাখার কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। প্রায় চার বছর পর সেই কমিটি বিলুপ্ত করে গত ৩০ এপ্রিল নতুন কমিটি ঘোষণা করা হলে তাকে সাধারণ সম্পাদকের পদ দেওয়া হয়। একই সাথে তিনি খানপুর ৩০০শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে শিশু বিশেষজ্ঞ হিসেবে নিযুক্ত আছেন।

কিন্তু ৩০০শয্যা হাসপাতালে নিযুক্ত থাকলেও খুব কম সময় তাকে হাসপাতালে পাওয়া যায়। তার জায়গায় বসে হাসপাতালের রোগীদেরকে দেখেন তার কম্পাউন্ডার সজিব। আর দীর্ঘদিন ধরেই এমন অনিয়ম করে রোগীদেরকে ঠকিয়ে আসছিলেন তিনি। এতে করে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা কি পরিমাণ সেবা পাচ্ছেন সেটা নিয়েও দেখা দিয়েছে প্রশ্ন।

তবে এ প্রসঙ্গে ৩০০শয্যা বিশিষ্ট খানপুর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা মো. আবু জাহেরকে প্রশ্ন করতেই তিনি এই নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

খানপুর হাসপাতালের শিশু বিশেসজ্ঞ ডা. বিধান চন্দ্র পোদ্দারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মানুষের কি কাজ থাকে না। আপনি অফিসে আসেন সেখানে কথা বলব। এই বলে তিনি ফোন কেটে দেন।


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও