গর্ভবতীদের ক্লিনিক খোলা রাখা গাইনী ডাক্তার করোনায় প্রাণ হারালেন

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৬:৪৮ পিএম, ২৬ মে ২০২০ মঙ্গলবার

গর্ভবতীদের ক্লিনিক খোলা রাখা গাইনী ডাক্তার করোনায় প্রাণ হারালেন

নারায়ণগঞ্জ শহরের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনি ও অবস্) আমেনা খাতুন (৬৩) করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে মারা গেছেন।

২৬ মে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

আমেনা খাতুন শহরের ডনচেম্বার এলাকার ডা. আবু বকর সিদ্দিকের স্ত্রী। তিনি শহরের আমেনা জেনারেল হাসপাতাল ও সাইনবোর্ড এলাকার প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ছিলেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন নারায়ণগঞ্জ জেলার আজীবন সদস্য।

নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, ‘সকাল সাড়ে ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে আমেনা খাতুন মারা যান। তিনি কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়ে ছিলেন।’

আমেনা খাতুনের ছেলে অ্যাডভোকেট এম আবুল বাশার সিদ্দিক বলেন, ‘১৫ দিন আগে মায়ের জ্বর, শ্বাসকষ্ট, গলা ব্যথা সহ অসুস্থ বোধ করে। প্রায় ৯ দিন আগে আইইডিসিআর থেকে পাঠানো রিপোর্টে মায়ের কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়। তারপর থেকে তিনি বাসায় আইসোলেশনে থেকে করোনার বিশেজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ সেবন করছিল। কিন্তু এছাড়াও মায়ের সিবিআর-এজমার সমস্যা ছিল। যার জন্য প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। গত মঙ্গলবার মাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি। সেখানে আইসিইউতে ভেন্টিলেটার সুবিধা দেয়া হয়। এর মধ্যে আজ সকালে মা মারা যান।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মাকে বার বার নিষেধ করেছি যাতে ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়। কিন্তু তিনি সেটা শুনেননি। তিনি বলেছেন, এসব গর্ভবতী রোগীরা কোথায় যাবে। তাদের চিকিৎসার প্রয়োজন। তাই তিনি কোন রোগীকে ফেরত দেননি। ধারণ করছি সেখান থেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে পরিবারের আর কেউ করোনায় আক্রান্ত না। মা আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই আলাদা ছিলেন।’


বিভাগ : স্বাস্থ্য


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও