৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, বুধবার ২২ নভেম্বর ২০১৭ , ৩:২৪ অপরাহ্ণ

সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীর সিদ্ধান্ত আগামী বছরের জুনে : সেলিম ওসমান


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৪১ পিএম, ৬ জুলাই ২০১৭ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৮:২৪ পিএম, ৮ জুলাই ২০১৭ শনিবার


সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীর সিদ্ধান্ত আগামী বছরের জুনে : সেলিম ওসমান

সেবা ও উন্নয়ন দিয়ে এলাকার জনগনকে সন্তুষ্ট করতে পারলে তবেই আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া নিয়ে চিন্তা করবেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। আর এ ব্যাপারে আগামী ২০১৮ সালের জুন মাসে সাধারণ মানুষের সাথে আলোচনা করে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে নিজের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের কথা বলে জানাবেন তিনি। এর আগে মুহূর্ত পর্যন্ত তিনি এলাকার মানুষের জন্য উন্নয়ন কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকতে চান সেলিম ওসমান। পাশাপাশি যারা নির্বাচনে প্রার্থী হতে চান ইতোমধ্যে স্থানীয় পত্রিকার মাধ্যমে যাদের নাম প্রকাশ পেয়েছে তাদের প্রতি নিজ নিজ এলাকায় উন্নয়ন কাজ চালিয়ে যেতে আহবান রেখেছেন এমপি সেলিম ওসমান।

বৃহস্পতিবার ৬ জুলাই বিকেল ৩টায় বন্দর ইউনিয়নের পুরান বন্দর এলাকায় অবস্থিত নাসিম ওসমান মডেল হাইস্কুলের সম্মেলন কক্ষে তার ব্যক্তিগত অর্থায়নে নির্মিত ৭টি স্কুলকে পর্যায়ক্রমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের নাসিম ওসমান মডেল হাইস্কুলের পরিচালনা পর্ষদের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, নাসিম ওসমান মডেল হাইস্কুলের নির্মাণ কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। স্কুলটিতে সাইন্সল্যাব, কম্পিউটার ল্যাব, মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম তৈরি করা হয়েছে। স্কুলটির শিক্ষা ব্যবস্থা শুধু পাঠ্য পুস্তকের উপর সীমাবদ্ধ থাকবে না। এখানে কারিগরি ও কৃষির উপর শিক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে। স্কুলের শিক্ষকদের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে আরো দক্ষতা বাড়িয়ে স্কুলটিকে একটি মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা হবে। ভবিষ্যতে এটিকে স্কুল এন্ড কলেজে রূপান্তর করা হবে। এই কাজ গুলো সম্পন্ন হলে আমার স্কুলটির জন্য তখন আর আমাকে প্রয়োজন পড়বে না। তখন স্কুল পরিচালনা কমিটিকে স্কুলটি রক্ষা এবং সুষ্ঠু ও সুন্দর ভাবে পরিচালনার দায়িত্ব নিতে হবে। পাশাপাশি এলাকার প্রতিটি মানুষকে এ ব্যাপারে সহযোগীতা করতে হবে। কিন্তু কোন অবস্থাতেই আপনার এটাকে রাজনীতিতে জড়াবেন না। এটা আমার নিজের বা আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি, বিএনপি দলীয় প্রতিষ্ঠান নয়। এটা ভবিষ্যত প্রজন্মকে আলোর পথ দেখাবে। স্কুলটি নির্মানে আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি সহ সকল দলের নেতাকর্মী এবং এলাকার মানুষ আমাকে সর্বাত্মক সহযোগীতা করেছেন। যার কারনে ভবন নির্মান সহ অন্যান্য কাজের ব্যাপারে কোন টেন্ডার দেওয়ার প্রয়োজন হয়নি। এলাকার মানুষ স্বেচ্ছায় স্কুলটির জন্য শ্রম দিয়েছেন। আমি আশা রাখবো ভবিষ্যতেও যেন স্কুলটি এভাবেই পরিচালিত হয়। সবাই মিলে মিশে স্কুলটির জন্য কাজ করবেন। আপনারা নিজেরা কোন প্রকার রেশারেশি করবেন না তাহলে আমাকে আর পাবেন না।

সেলিম ওসমান আরো বলেন, বন্দরে আমি বিগত দিনে আপনাদের সহযোগীতা নিয়ে যেসকল উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সর্ম্পৃক্ত করেছি তার কোনটিই রাজনৈতিক চিন্তা বা নির্বাচনে ভোটের কথা মাথায় রেখে করিনি। বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে সারাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছিলো তখন এই বন্দর অনেকটাই পিছিয়ে ছিল। আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর সরকারী বরাদ্দের পাশাপাশি  আমার নিজ তহবিল থেকে উন্নয়ন করে বন্দরকে দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। আপনার আমাদের সন্তান যারা দেশের ভবিষ্যত প্রজন্ম তাদের এগিয়ে যাওয়ার পথকে সুগম করতে আপনাদের সাথে নিয়ে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছি। তাই আমি নিজেকে কোন দলের সংসদ সদস্য মনে করিনি। আমি আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি সহ সকল রাজনৈতিক দলের সবাইকে নিয়ে কাজ করেছি। কিন্তু আমার নিজেরও একটি দলীয় পরিচয় আছে। আমার মার্কাটি লাঙ্গল। আর জাতীয় পার্টির প্রতিটি নেতাকর্মী আমার সহকর্মী।

সেলিম ওসমান বলেন, স্থানীয় পত্রিকার মাধ্যমে আগামী নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অনেকেরই নাম শোনা যাচ্ছে। আবার কেউ কেউ আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি বলে বিভাজন সৃষ্টি করতে চাইছে। কিন্তু উনারা হয়তো ভুলে গেছেন আওয়ামীলীগের সভানেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে লাঙ্গলকে নৌকার মাঝে তুলে নিয়েছেন। অতএব আগামী নির্বাচনে কে প্রার্থী হবেন সেটা নির্ধারন প্রধানমন্ত্রী নিজেই নির্ধারন করে দিবেন। তাই এখনই নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া নিয়ে চিন্তা করে সময় নষ্ট করতে চাই না। আগামীতে নির্বাচনে আমি প্রার্থী হবো কি হবো না সেটা ২০১৮ সালের জুন মাসে এলাকার সাধারণ মানুষের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিবো ততক্ষন পর্যন্ত আমি সাধারণ মানুষের চাহিদা মোতাবেক উন্নয়ন কাজ গুলো চালিয়ে যেতে চাই। আর যারা আগামীতে প্রার্থী হতে চান তাদের প্রতিও আমার আহবান আপনার নিজ নিজ অবস্থান থেকে উন্নয়নের কাজ চালিয়ে চান।

জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবুল জাহের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম.এ রশিদ, মহানগর জাতীয় পার্টির আহবায়ক সানাউল্লাহ সানু, বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম, বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন, বন্দর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি সামসুদ্দিন সাবা, স্কুল পরিচলনা কমিটির সদস্য হুমায়ন কবির, ইউপি সদস্য চাঁন শরীফ সহ কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং এলাকার গন্যমান্যব্যক্তিরা।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ