৭ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮ , ১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

UMo

রাজনীতি ও কারাগার-৪

ফাঁসির সেলে ছিলাম : আনোয়ার প্রধান


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০৪ পিএম, ২০ মার্চ ২০১৮ মঙ্গলবার


ফাঁসির সেলে ছিলাম : আনোয়ার প্রধান

গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া একটি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে রয়েছেন। তার মুক্তির দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালন করছে দলটি। খালেদা জিয়ার সাজা হবার আগে গত ৫ ফেব্রুয়ারি তিনি নারায়ণগঞ্জের উপর দিয়ে সিলেট যান। তার সফর ও রায়কে কেন্দ্র করে গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে নারায়ণগঞ্জে ধরপাকড় শুরু করে পুলিশ। এতে দলের প্রায় অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী গ্রেফতার হন।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার সিলেট যাত্রাকে স্বাগত জানিয়ে নারায়ণগঞ্জে মিছিল করতে গিয়ে খালেদা জিয়ার গাড়ির সামনে থেকেই গ্রেফতার হয়েছিলেন মহানগর বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট আনোয়ার প্রধান। পরে তাকে সদর থানার একটি নাশকতা ও বিস্ফোরক মামলায় আসামী হিসেবে দেখিয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ। প্রায় ১১ দিন কারাগারে থাকার পর ১৫ ফেব্রুয়ারি কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জের ‘রাজনীতি ও কারাগার’ শীর্ষক ধারাবাহিক সাক্ষাৎকারের চতুর্থ পর্বে থাকছে কারাগার ও রাজনীতি নিয়ে আনোয়ার প্রানের সাথে আলোচনার কিছু চুম্বক অংশ।

প্রশ্ন : আপনি গ্রেফতার হলেন কবে এবং কিভাবে ?
আনোয়ার প্রধান : নারায়ণগঞ্জের উপর দিয়ে সিলেট যাত্রাকালে খালেদা জিয়ারকে স্বাগত জানাতে আমরা লিংক রোডে গিয়েছিলাম। সেখানে কোন অপরাধ করিনি তবুও খালেদা জিয়ার গাড়িবহর পার হতেই আমাদেরকে গ্রেফতার করেন একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

প্রশ্ন : কোন মামলাতে গ্রেপ্তার হলেন?
আনোয়ার প্রধান : ৩ তারিখের একটি নাশকতা ও বিস্ফোরক মামলায় আমাদেরকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছিল যদিও মামলার এজাহারে আমাদের নাম ছিলনা। মামলায় যে ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে সে সম্পর্কে আমরা কিছুই জানিও না।

প্রশ্ন : কারাগার থেকে বের হয়ে নিস্ক্রিয় মনে হচ্ছে আপনাকে, কারণ কি?
আনোয়ার প্রধান : কারাগার থেকে বের হয়েই দলের সকল কর্মসূচীতে অংশ নিচ্ছি আমি। দলের কর্মসূচীগুলো পালন করে যাচ্ছি, আরো করবো। নিস্ক্রিয় হবার কোন সুযোগ নেই আর হবোও না। সিনিয়রদের সাথে আলোচনা করে সকল কর্মসূচীই পালন করবো।

প্রশ্ন : কারাগারের দিনগুলি কেমন ছিল?
আনোয়ার প্রধান : কারাগারের দিনগুলি ছিল খুবই দুঃখের। আমরা যেদিন কারাগারে প্রবেশ করি সেদিন প্রবেশ করেই দেখি আমাদেরকে একটি সেলে দেয়া হলো যেখানে লেখা রয়েছে ফাঁসির সেল। জেলের ভেতর জেল সেটি হচ্ছে সেল। সেলের সেই ফাঁসির সেল লেখাটি পরে আমাদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পরিবর্তন করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, আমরা কারাগারে ছিলাম কিন্তু হাঁটতে পারিনি কারো সাথে কথা বলতে পারিনি, কারো সাথে আমাদের দেখাও করতে দেয়া হয়নি। আমাদেরকে সাত খুনের আসামী ও সরকারের সর্বোচ্চ অপরাধের আসামীদের পাশেই রাখা হয়েছিল। আমরা হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলাম এসব আসামীদের দেখে।

প্রশ্ন : রাজনীতি নিয়ে আপাতত ও আগামী পরিকল্পনা কি?
আনোয়ার প্রধান : রাজনীতি নিয়ে পরিকল্পনা হচ্ছে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্তি ও তাকে মুক্তির জন্য আন্দোলন চালিয়ে তাকে মুক্ত করার মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্র উদ্ধারের আন্দোলনকে চালিয়ে যাওয়া ও দেশের মানুষের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেয়া।

প্রশ্ন : রাজপথে কি দেখা পাওয়া যাবে আপনার ও আপনাদের সহকর্মীদের?
আনোয়ার প্রধান : অবশ্যই দেখা যাবে এবং আমরা রাজপথেই থাকবো। শহরটা ছোট, আমরা এই শহরেই এবং আদালতেই থাকি থাকবো। কোথাও যাবোনা। ভয় পাইনা কাউকেই, দেশের জন্য কাজ করি।

প্রশ্ন : নারায়ণগঞ্জে তো খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য কোন মিছিলও হয়নি, কারণ কি বলে মনে করছেন?
আনোয়ার প্রধান : মিছিল তো আসলে হয়েছে আলাদা আলাদাভাবে। আমরা সংগঠিত হয়ে একতাবদ্ধভাবেই সামনের দিনে মাঠে নামবো। এখন অবস্থা বুঝে দলের সকলের সাথে আলোচনা করেই আমরা সামনের দিনগুলিতে কার্যক্রম চালিয়ে যাবো।

প্রশ্ন : বিরোধী দলের রাজনীতিতে কারাগারে যেতেই হয়, আবারো যদি কারাগারে যেতে হয় সেক্ষেত্রে দলের হয়ে, দলের জন্য, দলের পক্ষে কাজ করবেন তো নাকি নিস্ক্রিয়ই থাকবেন?
আনোয়ার প্রধান : যতবার যেতে হয় যাবো। আমরা তো অপরাধী নয়, আমাদের মিথ্যা মামলায় কারাগারে নিতে পারবে কিন্তু আন্দোলন সংগ্রাম রাজপথ থেকে আমাদেরকে সরাতে পারবেনা।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ