৪ কার্তিক ১৪২৫, শুক্রবার ১৯ অক্টোবর ২০১৮ , ৬:১৫ অপরাহ্ণ

UMo

৭ খুনের মামলা ডিপ ফ্রিজে : সাখাওয়াত, বিষয়টি উচ্চ আদালতের : পিপি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:০২ পিএম, ২৬ এপ্রিল ২০১৮ বৃহস্পতিবার


৭ খুনের মামলা ডিপ ফ্রিজে : সাখাওয়াত, বিষয়টি উচ্চ আদালতের : পিপি

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের ঘটনার পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে ২৭ এপ্রিল। এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ আদালতের রায়ের পর উচ্চ আদালতেও প্রধান আসামী নূর হোসেন ও র‌্যাবের তিন কর্মকর্তা সহ ১৫ জনের মৃত্যদন্ড বহাল রেখেছে। আর ৪ বছর পূর্তিতে দ্রুত এ রায় কার্যকর করার দাবি জানিয়েছেন নিহতের পরিবারের সদস্যরা। তাদের দাবি আগামী নির্বাচনের আগেই এ রায় কার্যকর করা হোক।

২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল আদালত থেকে ফেরার ফথে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুর ইসলাম সহ ৫জন এবং আইনজীবী চন্দন সরকার ও তার ড্রাইভারকে অপহরণ করা হয়। এর তিনদিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় দুটি মামলা হয়। একটি মামলার বাদী নিহত আইনজী চন্দন সরকারের মেয়ে জামাতা বিজয় কুমার পাল ও অপর বাদী নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি।

হত্যকান্ডের শিকার সাত জন হলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম, আইনজীবী চন্দন সরকার, নজরুলের বন্ধু মনিরুজ্জামান স্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন, গাড়িচালক জাহাঙ্গীর আলম ও চন্দন সরকারের গাড়িচালক মো. ইব্রাহীম।

২০১৭ সালের ১৬ জানুয়ারি এ মামলায় ২৬ জনের মৃত্যুদন্ড আর নয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন নারায়ণগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ আদালত। কারাগারে থাকা মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্তরা ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে অপিল করেন। এর প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের ২২ আগস্ট হাইকোট ১৫ জনের মৃত্যুদন্ড বহাল রেখে বাকি ১১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়। তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়। অন্যদায়ে আরো দুই বছরের সাজা ভোগ করার নির্দেশ দেন। এছাড়া নয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডের রায় হাইকোর্টও বহাল রয়েছে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, বর্তমানে মনে হয় মামলাটি ডিপ ফ্রিজে চলে গেছে। এখনও পর্যন্ত পেপার বুক তৈরি হয়নি। এতে আমাদের সন্দেহ হচ্ছে। কারণ আসামীরা হচ্ছে প্রভাবশালী তারা হয়তো প্রভাবিত করছে। আমরা মনে করেছিলাম এ মামলা দ্রুত আপিল নিষ্পত্তি হবে। সাবেক প্রধান বিচারপতি আমাদের আশ্বস্ত করেছিলেন দ্রুত পেপার বুক তৈরি করে দ্রুত শুনানী করে দ্রুত রায় কার্যকর করা হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তারা নাগরিকদের হত্যা করেছে। নিহত সাত পরিবার ক্ষতিপূরণ পাবে ও পৃষ্ঠপোশক কিংবা আর্থিক অনুদান দিবে সরকার। কিন্তু বর্তমানে পরিবারগুলো খুব খারাপ অবস্থায় আছে। সরকারের কাছে দাবি দ্রুত এ রায় কার্যকর করা হোক এবং সাত পরিবারকে ক্ষতিপূরণ বা আর্থিক সহযোগিতা করা হোক।’

নারায়ণগঞ্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ওয়াজেদ আলী খোকন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘এখন প্রসিকিউশন হচ্ছে হাইকোর্টের ডিজি, এজি ও অ্যাটর্নি জেনারেল এ বিষয়ে তারা বক্তব্য দিবেন। যেহেতু উচ্চ আদালতে কয়েকজনের সাজা কমিয়ে দেওয়ার পর বাদী পক্ষ কোন অপিল করেন নাই সেহেতু মহামান্য আদালত এখন যে কার্য বাকি আছে সেটা দ্রুত সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করে দেন তাহলে বাদী পক্ষের কাঙ্খিত দাবি দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করা সম্ভব হবে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ