‘আইভী ফাইনান্স করতে চেয়েছিল’

৩১ শ্রাবণ ১৪২৫, বুধবার ১৫ আগস্ট ২০১৮ , ১:২১ অপরাহ্ণ

‘আইভী ফাইনান্স করতে চেয়েছিল’


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৪:১০ পিএম, ৮ জুন ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ১০:১০ এএম, ৮ জুন ২০১৮ শুক্রবার


‘আইভী ফাইনান্স করতে চেয়েছিল’

এ রোজার মাসেও নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে বিরাজ করছে উত্তাপ। দুটি ইফতার পার্টি করেছে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যেটা নিয়ে এখন সর্বত্র আলোচনা। আছে গ্রুপিং কোন্দলও। এসব নিয়ে কী করছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই যিনি ছিলেন জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক। নিউজ নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে আলাপকালে তুলে ধরেছেন সাম্প্রতিক চিত্র। ভবিষ্যৎ করণীয় জানিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে আলোচনার কিছু উল্লেখযোগ্য অংশ তুলে ধরা হলো।

গত ২৯ মে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব লিমিটেড মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামী লীগের ইফতার নিয়ে ঘটেছে নানা ঘটনা। একটি পক্ষ ওই ইফতার বয়কট করেন। এ প্রসঙ্গে আব্দুল হাই বলেন, ‘সবার সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে অনুষ্ঠান করা হয়েছে। ক্লাব পাওয়া মুসকিল ছিল। পরে আমরা মৌখিকভাবে ক্লাব ভাড়া করি। পরে প্রধান অতিথি নিয়ে কথা বলি সেখানে কেউ রাজি হচ্ছিল না। কেউ কেউ বলেন গ্রুপিং আছে আবার কেউ মূলত তারাবির নামাজ ধরতে সমস্যা হবে বলে। পরে প্রধান অতিথি হিসেবে করা হয় সিনিয়র অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার সাহেবকে। তিনি জেলা আওয়ামীলীগের সম্মান রক্ষা করেছেন।  তিনি অসুস্থ্য ছিলেন তারপরও সেক্রেটারী নিজে গিয়েছে এবং আমি ফোনে কথা বলায় তিনি আসতে রাজি হন।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে মেয়র আইভীকে ফোনে বলা হয় ইফতার পার্টির আয়োজন করা হয়েছে। তখন তিনি জানতে চেয়েছে কে আয়োজন করছে? পরে বললাম, আমি আর সেক্রেটারী আয়োজন করছি। তখন তিনিও বলেন যে তিনি ফাইনান্স করবেন। তখন আমি বললাম সাধুবাদ জানাই। তখন আমি তারও সম্মতি পেয়েছি। কিন্তু এর পর কি হয়েছে সেটা আমি বলতে পারছি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘কার্যকরী কমিটির প্রেসিডেট সেক্রেটারী এক মত হয়ে যেকোন অনুষ্ঠান করতে পারে। সেটা শুধু মাত্র আমাদের দলে না সব দলের বেলায় প্রযোজ্য। আর এটাই নিয়ম।’

পরে বন্দরে ৪ জুন এককভাবে ইফতার পার্টি করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান যেখানে জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ছিলেন প্রধান অতিথি। ওই ইফতার ছিল ‘কাউন্টার’ ইফতার মনে করছেন অনেকে। এ প্রসঙ্গে আবদুল হাই বলেন, ‘না। এটা তিনি একক ব্যক্তিগতভাবে অনুষ্ঠান করতেই পারেন। এটা পাল্টাপাল্টি অনুষ্ঠান না। কারণ সে নিজেও এটা না করেছে।’

ঠাৎ দুটি গ্রুপ হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটা আমিও বুঝতে পারছি না। আর এটা হওয়া উচিত হয় নাই। এটা দলের ক্ষতি হবে। ইতোমধ্যে ক্ষতি হয়েছেও। সমস্যা সমাধানে আমরা এ বিষয়ে কথা বলছি।’

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি সম্পর্কে তিনি বলেন, দুইটা ভাগ থাকবে না সামনে এক হয়ে যাবে। এখনই সবাই বলছে ৫টি আসনে নৌকা চাই। আবার বলছে মনোনয়ন যিনি পাবেন তার পক্ষে কাজ করবেন। নির্বাচন কেন্দ্রীক কাজ করা হচ্ছে। বিএনপি ছোট দল না তাদের ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। বিএনপি এখন নিরব আছে তারা কোন কথা বলছে না। নির্বাচনে ভোটের সুযোগ পেলে (বিএনপি নির্বাচনে আসলে) তারাও ভোট দিবেন। আমাদের যেমন ব্যাংক ভোট আছে তাদেরও ব্যাংক ভোট আছে। তাদের ছোট করে দেখার অবকাশ নেই। কথা আছে শত্রুকে কখনো ছোট করে দেখতে নেই। এক কথায় নির্বাচন কেন্দ্রিক জেলা আওয়ামীলীগ কর্মকান্ড এগিয়ে যাচ্ছে।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ