১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , ৫:৫১ পূর্বাহ্ণ

rabbhaban

‘হিংস্র’ সরকারের পায়ের তলার মাটি নড়বড়ে : রফিউর রাব্বি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:১৭ পিএম, ৪ জুলাই ২০১৮ বুধবার


‘হিংস্র’ সরকারের পায়ের তলার মাটি নড়বড়ে : রফিউর রাব্বি

নারায়ণগঞ্জ সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহবায়ক ও নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা রফিউর রাব্বী বলেছেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরে কোটা সংস্কার আন্দোলনকে দমানোর জন্য বর্বর নৃশংস পথ বেছে নিয়েছে সরকার ও তাদের নিজস্ব দল ও পুলিশ বাহিনীর মধ্য দিয়ে। আমরা এর নিন্দা, প্রতিবাদ ও ধিক্কার জানাই। তারা যে বর্বর আক্রমণ করছে এ আক্রমনের প্রতিবাদ যারা করছে সেই অভিভাবক শিক্ষকদের পর্যন্ত সহ্য করতে পারছে না সরকার। সরকার কতটা অসহিষ্ণু হলে একটি নিরব শান্তিপ্রিয় প্রতিবাদকেও তারা সহ্য করতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী বললেন কোটা বাতিল করা হবে। এতে আশ্বস্ত হয়ে আমাদের ছেলেমেয়েরা ঘর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানমুখী হলো। সাথে সাথেই এ সরকারের কতিপয় মন্ত্রীরা বিভিন্ন কথা বলতে থাকলেন এবং কালক্ষেপন করতে থাকলো। পরবর্তীতে আবার প্রধানমন্ত্রী আবার বললেন যে এটা সময়ের ব্যাপার এটা সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। মন্ত্রী পরিষদের সচিবরা কমিটি করে সিদ্ধান্ত নিবেন। একটা দেশের রাষ্ট্র প্রধান যখন কথা দিয়ে আবার কথার বরখেলাপ করে প্রতারণার আশ্রয় নেয় তখন আমাদের দেশে সন্তানরা শিক্ষার সাথে যারা জড়িত তাদের অবস্থানটা কি থাকে। রাষ্ট্রের প্রতি বা রাষ্ট্রের যারা মূল পদে আছে তাদের প্রতি কি শ্রদ্ধাবোধ ও কি বিশ্বাস থাকে। মিথ্যা প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে তারা কিভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করবে। মিথ্যা প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে তারা দেশটাকে কোন দিকে নিয়ে যাবে এটা বুঝতে খুব একটা কষ্ট পাওয়ার কথা না। সরকার এটা হিং¯্র কেন হলো? মনে করছি সরকার যতটা জোরে কথা বলুক না কেন তার পায়ের তলার মাটি নড়বড়ে। সেই জন্যই সে একটা মাইকের গর্জন তো দুরের কথা একটি ফিসফিস আওয়াজকেও সহ্য করতে পারে না। এটা মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত গণতন্ত্রের একটি দেশ কিন্তু আজকের সরকার পুলিশ প্রজাতন্ত্রের একটি রাষ্ট্র করেছে। আমরা এ নিন্দা ও ধিক্কার জানাই এবং ঘৃণা জানাই। সরকারকে মনে করিয়ে দিতে চাই এ দেশকে পুলিশের, সেনাবাহিনীর রাষ্ট্র বানাতে যারা যারা উদ্যোগ নিয়েছে চেষ্টা করেছে তারা আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। সুতরাং এ পিছনের লেখনটি সরকার অনুধাবন করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। নির্বাচন যত কাছে আসছে ততই সরকার সহিংশ হয়ে উঠছে ততই তারা সেখানে স্বৈরাচারী রূপ ধারণ করছে। এটি দেশের মানুষের জন্য রাষ্ট্রের জন্য যেমন মঙ্গল নয় এবং এ সরকারের জন্য আওয়মীলীগের জন্যও একটি খারাপ উদাহরণ হিসেবে থাকবে। এ কলঙ্ক সরকারকে দলকে বহন করতে হবে।’

বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের কোটা প্রথা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত নেতৃবৃন্দের উপর হামলার প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জে আয়োজিত প্রতিবাদ মানববন্ধন পুলিশের বাধায় পণ্ড হয়ে গেছে। একই সঙ্গে কেড়ে নেওয়া হয়েছে মানববন্ধনের ব্যানারও।

৪ জুলাই বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরে চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে ‘কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতৃবৃন্দের উপর সন্ত্রাসী হামলা, গ্রেফতার নির্যাতন ও প্রশাসন নিষ্ক্রিয়তার প্রতিবাদে মানববন্ধন’ লেখা ব্যানারে ওই কর্মসূচির আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ জেলা গণসংহতি আন্দোলন। পরে নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাবের হানিফখান মিলনায়তনে সাংবাদ সম্মেলন করে এ তীব্র নিন্দা জানান। 

গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সভাপতি অঞ্জন দাস জানান, বিকেল ৪টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে অংশগ্রহণে নেতাকর্মী, ডাক্তার, শিক্ষক, শিক্ষার্থী সহ সাংস্কৃতিক জোটের নেতারা হাজির হলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। পরে পুলিশ বাধায় ব্যানার সহ দাঁড়াতে চেষ্টা করলে ব্যানার কেড়ে নিয়ে সবাইকে সেখান থেকে সরে যেতে বাধ্য করে। এর প্রতিবাদে পরে প্রেসক্লাবে সাংবাদ সম্মেলন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা গণসংহতি আন্দোলনের সভাপতি তরিকুল সুজনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক নিখিল দাস, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সহ সভাপতি মণি সুপান্থ, প্রবীন সাংবাদিক অহিদুল হক খান, বিপ্লবী নারী সংহতি নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি পপি রানী সরকার, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি মশিউর রহমান রির্চাড প্রমুখ।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ