যানজট ড্রেন রাস্তা আবর্জনা ফুটপাত স্ট্যান্ড নিয়ে যা বললেন আইভী

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫১ পিএম, ১৮ জুলাই ২০১৮ বুধবার



যানজট ড্রেন রাস্তা আবর্জনা ফুটপাত স্ট্যান্ড নিয়ে যা বললেন আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বাজেট অনুষ্ঠান শেষে জনতার মুখোমুখি অনুষ্ঠানে বিভিন্নজনের প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। তিনি কথা বলেছেন, ওয়াসা, জলাবদ্ধতা, যানজট, সড়কের বেহাল দশা সহ নানা বিষয়ে।

নতুন করে কোন কর আরোপ ছাড়াই ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের জন্য প্রস্তাবিত ৭১৫ কোটি ৫১ লাখ ২১ হাজার ৩৭৭ টাকা বাজেট ঘোষণা করেছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন।

১৮ জুলাই বুধবার সকালে সিটি করপোরেশনের নগর ভবন প্রাঙ্গনে ওই বাজেট ঘোষণা করা হয়। এবারের বাজেটে বাজেটে দারিদ্র বিমোচন, তথ্য প্রযুক্তি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং অবকাঠামোগত উন্নয়ন যথা রাস্তা, ড্রেন, ব্রিজ, কালভার্ট নির্মাণ ও পুননির্মাণ, শীতলক্ষ্যা নদীর উপর কদমরসূল সেতু নির্মাণ, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, খাল উদ্ধার, জলাশয় সংরক্ষণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সংস্কার, খেলাধুলার মানোন্নয়ন ও রাস্তার বাতি স্থাপনে বিশেষ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। বাজেট বক্তৃতায় ৫, ১০ ও ২০ বছর মেয়াদি বিভিন্ন প্রকল্পের বিষয় তুলে ধরা হয়।

বাজেট অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত জনতার মুখোমুখি হন আইভী। তিনি জবাব দেন বিভিন্ন জনের প্রশ্নের। আইভীর সঙ্গে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য হোসনে আরা বাবলী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী এহতেশামুল হক, প্যানেল মেয়র আফসানা আফরোজ বিভা। এছাড়া অনুষ্ঠানে সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

ওয়াসা প্রসঙ্গ
ওয়াসা পানির দুর্ভোগ প্রসঙ্গে মেয়র আইভী বলেন, ওয়াসা, পল্লী বিদ্যুৎ ও গ্যাস এগুলো সিটি করপোরেশনের দায়িত্বে না। এগুলো মূলত এমপি সাহেবরা দেখে থাকেন। ওয়াসার পাইপগুলো অনেক মান্ধাতা আমলের। এগুলো ভেঙে অনেক রাস্তা নষ্ট করে ফেলছে। আশা করা যাচ্ছে ২০১৯ সালের পর থেকেই ওয়াসা সিটি করপোরেশনের দায়িত্বে চলে আসবে। তখন আর কোন সমস্যা থাকবে না।

আবর্জনা
ময়লা দুর্ভোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, লিংক রোডে আমরা এখন আর ময়লা ফেলি না। এর আগে ময়লা ফেলার জন্য আমাদেরকে সব জায়গায় বাধা দেয়া হয়েছে। কাশীপুরে খাস জমিতে ময়লা ফেলতে গিয়ে সিটি করপোরেশনে লোকদের মারধর করা হয়েছে। সেখানকার চেয়ারম্যান সাইফউল্লাহ বাদল জনগণের ভোটে নির্বাচিত চেয়ারম্যান না। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় চেয়ারম্যান হয়েছে। যার ফলে জনগণের প্রতি তার মায়া নেই। আমি ইচ্ছা করলে কাশীপুরের সমস্ত কাজ বন্ধ করে দিতে পারতাম, কিন্তু তা করি নাই। সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে ডিসির বাংলোর সামনে ময়লা রাখা হয়েছিল। পরে রাতারাতি সমস্যার সমাধান হয়েছে। অনেকটা বাধ্য হয়েই সে কাজটি করতে হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে জালকুড়িতে বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের একটি প্রকল্প চুক্তি হয়েছে। জমি বুঝিয়ে দেওয়ার পরেই কাজ শুরু হবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে নগরীতে পলিথিনের সমস্যা থাকবে না। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাজ সম্পন্ন হয়ে গেলে অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশেও পলিথিন কিনে নিবে। তখন ময়লা হবে সম্পদ। ময়লা তখন কিনে নিবে।

তিন সড়ক
শহরের তিনটি সড়ক প্রসঙ্গে আইভী বলেন, হাজীগঞ্জ থেকে মেট্রোহল, মেট্রোহল থেকে কালীরবাজার ও চাষাঢ়া থেকে মেট্রোহল পর্যন্ত সড়কের টেন্ডার হয়ে গেছে। বৃষ্টির জন্য কাজ করতে ঠিকাদারকে না করা হয়েছে।  ঈদের পরেই রাস্তার কাজ শুরু হয়ে যাবে। তখন আর কোনো সমস্যা থাকবে না। এজন্য আপাতত যেখানে সমস্যা সেখানে কাজ করা হচ্ছে।

ফুটপাত
ফুটপাত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ফুটপাত নিয়ে আমি আর কোন বিতর্কে জড়াতে চাই না। নগরবাসী সবাই দেখেছে ফুটপাত নিয়ে কি হয়েছে। দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে আন্দোলন করে আসছি, এখন আর কারো বিরুদ্ধে কিছু বলতে চাই না। আপনারা দেখেছেন ফুটপাত নিয়ে হামলার ঘটনা। আমাকে ও আমার সঙ্গে থাকা লোকজনদের কিভাবে মারা হয়েছে। কিন্তু সকলের দোয়াতে আমরা সেদিন বেঁচে গেছি। যারা হামলা করেছে তারাই এখন শহরে বুক ফুরিয়ে হাঁটে। চাইলে অনেক কিছু করতে পারি কিন্তু করি না। প্রশাসনের কতিপয় লোকের জন্য হকাররা ফুটপাত দখলের সুযোগ পায়। তবে আমি সুশীল সমাজকে অনুরোধ করবো ফুটপাত দখলের বিরুদ্ধে আবারও আন্দোলনে নামার জন্য। মূলত সমষ্ঠিগত কারণেই ফুটপাত দখলমুক্ত হচ্ছে না। যে সরকারই আসে সে সরকারের আমলেই ফুটপাত দখল করে রাখা হয়।

অবৈধ স্ট্যান্ড
অবৈধ স্ট্যান্ড নিয়ে আইভী বলেন, অনেকে বলেন যানজট সিটি করপোরেশনের কাজ। কিন্তু এটা সিটি করপোরেশনের কাজ না। এটা ট্রাফিক বিভাগের কাজ। শহরের যানজটের কারণে আমাদের দোষারোপ করা হয়। অনেকে মনে করেন নির্বাচিত মেয়রের সব কাজ। কিন্তু আসলে সেটা সঠিক না। অনেক ক্ষেত্রে আমাদের হাত পা বাধা। চাষাঢ়ার যানজট কী কারণে খুঁজে দেখতে হবে। চাষাঢ়ার মোড়ে মোড়ে অবৈধ স্ট্যান্ড। এমপির নামে শহরে অবৈধভাবে লেগুনা চলে। অবৈধভাবে শহরে বাস চলাচল করে। এগুলো চাষাঢ়ায় অবৈধভাবে পার্কিং করে রাখে। আর চাষাঢ়ার কারণেই পুরো শহরে যানজট লেগে থাকে।

লিংক রোডে ড্রেন
লিংক রোডে ড্রেন নির্মাণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ড্রেনের পানি আটকে থাকার কারণে ওই এলাকার মসজিদে পানি উঠে, বায়তুল আমানে পানি উঠে। এসকল সমস্যার কারণে আমি লিংক রোডে ড্রেন নির্মাণের কাজ নিয়েছি। জনদুর্ভোগ দূর করার জন্যই আমি কাজ হাতে নিয়েছি। এখানে আমার বিরুদ্ধে কে কী বললো সেটা বড় কথা না। এসব নিয়ে আমি আর কথা বলতে চাই না কথা বাড়াতে চাই না।

প্রসঙ্গত এর আগে এমপি শামীম ওসমান বলেছিলেন, সিটি করপোরেশন কর্তৃক ড্রেন নির্মাণে ধীরগতির কারণেই লিংক রোডে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। আর সে কারণেই সড়ক ও জনপথ কাজ করতে পারছে না।

কাউন্সিলরদের গ্রেফতার
কাউন্সিলরদের গ্রেফতার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অনেক কাউন্সিলর লোকাল পলিটিক্সের শিকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলে নাই কোন কাউন্সিলরকে গ্রেফতার করার জন্য। আমিও অনেক সময়ে লোকাল পলিটিক্সের শিকার হয়েছি। এখন অনেকে একসাথে সভা সমাবেশ করে আসছেন। সুতরাং এখন আর কোনো ভয় নেই। জনগণের জন্য কাজ করেন।

এখানে উল্লেখ্য সম্প্রতি কারাভোগ শেষে জামিনে বেরিয়েছেন ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, হান্নান সরকার, ইকবাল হোসেন, সুলতান আহমেদ প্রমুখ। এর মধ্যে হান্নান ও সুলতানকে গত ২৬ জুন এমপি সেলিম ওসমানকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মঞ্চে বক্তব্য রাখেন।

শহীদ মিনার
শহীদ মিনারের নিরাপত্তা নিয়ে তিনি বলেন, প্রভাবশালী লোকের কারণে শহীদ মিনারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে কিনা এ ব্যাপারে ভয় হয়। কারণ সাংস্কৃতিক কর্মীদের উপর কয়েকবারই হামলা করা হয়েছে। আমি একজন দাড়োয়ান রাখার চেষ্টা করবো।


বিভাগ : সাক্ষাৎকার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও