৮ আশ্বিন ১৪২৫, সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ১০:৩৯ পূর্বাহ্ণ

প্রবীর ও স্বপন হত্যার আসামীদের জামিনের সুযোগ নাই : পিপি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০৫ পিএম, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার


প্রবীর ও স্বপন হত্যার আসামীদের জামিনের সুযোগ নাই : পিপি

‘আলোচিত নিহত ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষ ও স্বপন কুমার সাহা হত্যা মামলার ৪ আসামীর জামিনের কোন সুযোগ নেই। টুকরো টুকরো করে হত্যা ঘটনায় আদালত যদি জামিন দেয়, তাহলে মানুষ হত্যা করতে আরো উৎসাহিত হবে। শুধু জেলা ও দায়রা জজ আদালত বিচারক নন উচ্চ আদালতেও তাদের জামিনের কোন সুযোগ থাকবে না। জেলা পুলিশ সুপারের প্রতি অনুরোধ থাকবে দ্রুত ডাবল হত্যা মামলার চার্জশীটটি আদালতে দাখিলের জন্য। বাকি কাজ দ্রুত আদালতে সমাপ্ত করে প্রত্যাশী রায় দেয়া হবে আশা করি।’

বুধবার ৪ সেপ্টেম্বর নিজ কক্ষে নিউজ নারায়ণগঞ্জের প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে প্রবীর ও স্বপন হত্যা মামলা নিয়ে কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ওয়াজেদ আলী খোকন।

পিপি আরো বলেন, ‘মিডিয়ায় ও নিহতের স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে আসামীরা জামিনের জন্য চেষ্টা করছে। কিন্তু জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এ হত্যাকান্ডকে চাঞ্চল্যকর হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। এখানে যে ৪ জন আসামী পিন্টু দেবনাথ, রত্মা চক্রবর্তী, আব্দুল্লাহ আল মামুন ও বাপেন ভৌমিকের জামিন নেয়ার কোন সুযোগ নেই। বিচারক মহোদয় উক্ত মামলাগুলো বিষয়ে অবগত রয়েছে এবং জামিন না মঞ্জুর ইতিমধ্যে কয়েকবার করেছে।’

বিদেশ যাত্রা নিয়ে পিপি খোকন বলেন, জামিন না পেলে তারা বিদেশ যাবে কিভাবে। বাংলাদেশের আলোচিত ৭ খুনের মামলার কোন আসামীকে এই আদালত থেকে জামিন নিতে পারেনি। ৭ খুনের আসামীরা অনেক প্রভাবশালী ও রাঘববোয়াল থাকা পরও এখনো তারা উচ্চ আদালত থেকে জামিন পায়নি। ফলে এই ডাবল হত্যা লোমহর্ষক ঘটনায় জামিন দেয়া কোন কারণ দেখি না। প্রবীর ও স্বপন হত্যা মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন দেবে না কারণ এই আদালতের কিছু বিধি নিয়ম রয়েছে। এই মার্ডারটি খুবই লোমহর্ষক, হত্যার পর টুকরো টুকরো করে সেফটিক ট্যাংকি ও নদীতে ফেলে দেয়া মর্মান্তির ঘটনা। এর থেকে মর্মান্তিক হত্যা হতে পারে না।

সিন্ডিকেট নিয়ে পিপি খোকন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে আরো বলেন, ‘‘আসামীরা যত বড়ই রাঘব বোয়াল হোক হত্যাকান্ডে কোন জামিন দিবে না। চার্জশীট দিলে জামিনের কোন আবেদনই করতে পারবে না। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এই মামলার চার্জশিট প্রদানের দাবি জানাচ্ছি।’’

নিহত প্রবীর চন্দ্র ঘোষের ভাই ও মামলা বাদী বিপ্লব চন্দ্র ঘোষ নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, জেলার এসপি বর্তমান ও সাবেকের প্রতি আমাদের পরিবারের বিশ্বাস রয়েছে। তার সাথে তদন্তকারী কর্মকর্তা যেভাবে হত্যা ক্লু খোঁজে খোঁজে বের করেছে যা প্রশংসিত। পুলিশ দ্রুত চার্জশীট দেয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছে। কিছু মামলার গুরুত্বপূর্ণ কাজ গুছিয়ে আদালত চার্জশীট দিবে জানিয়েছে। সিন্ডিকেট করে যদি আসামীরা জামিনে বের হতে পারে তাহলে আইনের মানুষ আস্থা হারিয়ে ফেলবে। তাই আদালতের বিচারক, জেলা পুলিশ সুপার, পিপি ও তদন্তকারী কর্মকর্তাদের প্রতিবাদ এখানো বিশ্বাস আছে, তারা ভাইয়ের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক সাজা প্রদান করার সহযোগিতা করবে।

প্রবীর ও স্বপন হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির উপ পরিদর্শক (এসআই) মফিজুল ইসলাম জানান, গত ১৪ জুলাই স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষকে ৭ টুকরো করে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছিল গ্রেফতারকৃত ঘাতক বন্ধু পিন্টু দেবনাথ। অপর বন্ধু কাপড় ব্যবসায়ী স্বপন কুমার সাহাকে ৭ টুকরো করে হত্যার পরে শীতলক্ষ্যা লাশ ফেলে দেয়ার বিষয়ে আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে পিন্টু। গত ২০ জুলাই শীতলক্ষ্যায় যে স্থানে ৩টি বস্তায় থাকা স্বপনের ৭ টুকরো লাশ ফেলা হয়েছিল সেখানে তল্লাশী চালানো হয়েছিল। তবে স্বপনের লাশ পাওয়া যায়নি। নিহত কাপড় ব্যবসায়ী স্বপন কুমার সাহা নারায়ণগঞ্জ শহরের নিতাইগঞ্জ কাচারীগলি এলাকার মৃত সোনাতন চন্দ্র সাহার ছেলে।

পরে ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর রাতে রত্নার ফ্ল্যাটে স্বপনকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়। ওই কিলিং মিশনে ছিল রত্মা ও তার প্রেমিক পিন্টু দেবনাথ।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাক্ষাৎকার -এর সর্বশেষ