আমাকে মনোনয়ন দেয়া না হলে নারায়ণগঞ্জবাসী কষ্ট পাবে : এটিএম কামাল

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৩৮ পিএম, ১১ নভেম্বর ২০১৮ রবিবার

আমাকে মনোনয়ন দেয়া না হলে নারায়ণগঞ্জবাসী কষ্ট পাবে : এটিএম কামাল

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। এমনটাই ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় ঐক্যজোট। দুটি অংশেই প্রধান দল হিসেবে রয়েছে বিএনপি। এদিকে বিএনপির নির্বাচনী ঘোষণায় নড়েচড়ে বসেছে দলের নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ও জেলা মহানগর বিএনপি এবং অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। দ্রুত লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের প্রত্যাশা করে মাঠে নির্বাচনী নামার প্রস্তুতিও রয়েছে তাদের।

১২ নভেম্বর সোমবার থেকে দলীয় মনোনয়ন বিক্রি শুরু করবে দলটি। দলের নয়াপল্টন কার্যালয় থেকে ৫ হাজার টাকা ও অফেরতযোগ্য ২৫ হাজার টাকা দিয়ে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ফর্ম কিনতে পারবেন।

নির্বাচন নিয়ে কথা হয় নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী বিভিন্ন হেভিওয়েট প্রার্থী ও দলের জেলা মহানগরের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে। আলাপকালে নিজেদের অবস্থান ও নির্বাচন নিয়ে নেতারা তুলে ধরেন তাদের অবস্থান।

সকলের কাছেই প্রশ্ন ছিল বর্তমান মামলা, গ্রেফতার অভিযান, নেতাকর্মীদের আত্মগোপনে থাকা ও প্রতিটি আসনে আওয়ামীলীগের অবাদ প্রচারণা সভা সমাবেশের মধ্যেই নির্বাচনের যাবার ঘোষণা দিয়েছে দল, এমন অবস্থায় নির্বাচনের পরিবেশ ও এলাকায় পরিবেশ বুঝে নেতাকর্মীরা কি নির্বাচনের মাঠে কাজ করতে পারবে কিনা?

নির্বাচনে মনোনয়নের ব্যাপারে নেতারা কতটা প্রত্যাশী এবং নির্বাচনের কেন্দ্রে শেষ পর্যন্ত দলের নেতাকর্মীরা অবস্থান করতে পারবে কিনা? নেতারাও নিজেদের মত করে প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন।

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সোনারগাঁ বিএনপির অন্যতম নেতা এটিএম কামাল নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, প্রথম আমরা নিজেদের রক্ষা করবো। জেলমুক্ত কারামুক্ত করা নেতাকর্মীদের। মামলা লড়তে সহযোগিতা করা এবং নেতাকর্মীদের কিভাবে নিরাপদ রাখা যায় তা চিন্তা করছি। আমাদের আগামীর কর্মসুচী নিয়েও আমরা ভাবছি এবং নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা সব কিছু পালন করবো। আন্দোলন ও নির্বাচন একসাথে চলবে।

কামাল আরো বলেন, ‘গায়েবি মামলায় যারা জর্জরিত তাদের আইনি সহায়তার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা আমাদের চলছে। পরিস্থিতি বুঝেই আমরা আমাদের করণীয় আমরা সময় সময় অবস্থা বুঝে পরিবর্তন করবো। সোনারগাঁয়ে আমি মনোনয়নের জন্য আমি দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করছি। আমি সোনারগাঁয়ের উন্নয়নের জন্য সব সময় সোনারগাঁবাসীর পাশে আছি ছিলাম। নির্বাচন এর একটা অংশ কিন্তু আমার ভালোবাসার স্থান সোনারগাঁ। কাজ করেছি করছি, এখন দল মূল্যায়ন করবে প্রত্যাশা করি। আমি একসাথে মহানগর বিএনপির দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সোনারগাঁবাসীর সুখে দুখে দুর্যোগে সব সময় পাশে থেকে আসছি। আগামীতেও নির্বাচনের সময় আমার দুই দায়িত্ব একসাথে পালন করতে সমস্যা হবেনা। আমাকে মনোনয়ন দেয়া না হলে নারায়ণগঞ্জবাসী কষ্ট পাবে।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী ভোটগ্রহণ করা হবে ২৩ ডিসেম্বর। সংসদ নির্বাচনের মনোনয়পত্র দাখিলের শেষ সময় ১৯ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৯ নভেম্বর। আর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৩ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ ৩০ নভেম্বর।


বিভাগ : সাক্ষাৎকার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও