১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:০৩ অপরাহ্ণ

UMo

‘নারায়ণগঞ্জবাসী ত্বকী হত্যার বিচার করে ছাড়বেই’


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:১০ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২০১৮ শুক্রবার


‘নারায়ণগঞ্জবাসী ত্বকী হত্যার বিচার করে ছাড়বেই’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন,  দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে যে শিশু কিশোররা এসেছে তারা প্রকৃতভাবে ত্বকীকে বুকে ধারণ করে ও ত্বকী সম্পর্কে জেনে এখানে এসেছে তাতে আমার মনে হয় শুধু নারায়ণগঞ্জে ত্বকী হত্যার বিচার যাচ্ছে তা নয়, সবাইকে দেখে মনে হচ্ছে ত্বকী হত্যার বিচার নারায়ণগঞ্জের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, বাংলাদেশের মধ্যে, বাংলাদেশকে ছাড়িয়ে বহিবিশ্বে যে সমস্ত বাংলাদেশীরা বসবাস করছেন সেখানেও আজ ত্বকীর নাম। ত্বকী বিখ্যাত হতে পারতো যদি বেঁচে থাকতে পারতো। হয়তো এ ত্বকী একদিন একজন মেধাবী ছাত্র থেকে বিশাল কিছু হতে পারতো এ বাংলাদেশে যদি বেঁচে থাকতো। কিন্তু তার মৃত্যু তাকে বিখ্যাত করে দিয়েছে। ও মারা যাওয়ার আগে যে কবিতাগুলো লিখে গেছে সেগুলো পড়লে মনে হয় না সেগুলো ওর কবিতা বা ও লিখতে পারে এভাবে কারণ ওযেন মৃত্যুকেই আলিঙ্গন করছে ওর দুই একটা কবিতা পড়েছি। আমার মনে হচ্ছে সে জানতো তার মৃত্যুটা হবে। এ যে ১৭ বছরের বাচ্চা এরকম লিখতে পারে এটাই আমার কাছে অবাক লাগে। ও বেঁচে থাকলে বিখ্যাত হতো আর ওকে যারা কেড়ে নিয়েছে ভেবে ছিল হয়তো নারায়ণগঞ্জ স্তব্দ হয়ে যাবে কিন্তু নারায়ণগঞ্জ স্তব্ধ হয়ই নাই বরং সারা বাংলাদেশ এবং বিশ্বে যেখানে বাঙালী বসবাস করে তারাও আজকে প্রতিবাদ করছে। এবং ত্বকী আমাদের সাহস যুগিয়ে গেছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকার শাহবাগের জাতীয় যাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর ২৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় ত্বকী চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ড. আনিসুজ্জামান, ভাষা সৈনিক কামাল লোহানী, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, কবি ভূইয়া শফিকুল ইসলাম, ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি হালিম আজাদ, ত্বকী মঞ্চের আহবায়ক নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বী, মা রওনক রেহানা প্রমুখ।

মেয়র আইভী বলেন, নারায়ণগঞ্জ কিন্তু দীর্ঘদিন স্তব্দ ছিল। ত্বকী আমাদের দিক নির্দেশনা দিয়ে গেছে। এ ত্বকীর প্রতিবাদে ত্বকী মঞ্চ করে দলমত নির্বিশেষে সবাই এক মঞ্চে এসে প্রতিবাদ করতে করতে অনেকেই আজ কথা বলে। ত্বকী আমাদের কথা বলতে শিখিয়েছে, ত্বকী আমাদের সাহস যুগিয়েছে, ত্বকী আমাদের সাহসের প্রতিক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে মেয়র আইভী বলেন, আমার দৃঢ় বিশ্বাস এ নারায়ণগঞ্জবাসীই এ ত্বকী হত্যার বিচার করে ছাড়বেই ছাড়বে। আমি বিশ্বাস করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যেখানে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করেছেন, মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এ রাজাকারদের ফাঁসি দিয়েছেন। কেউ কিন্তু সাহস পায়নি এ শেখ হাসিনাই সাহস করে ফাঁসির কথা বলেছে এবং জনগনের দাবি পরিপ্রেক্ষিতে ফাঁসি দিয়েছেন। দেশের ও বিদেশের বহু ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করেই তিনি এ ফাঁসি দিয়েছেন। ২১ আগস্ট হত্যার বিচার করেছেন ও শেখ রাসেলের হত্যার বিচার করেছেন। তাহলে ত্বকী হত্যার বিচার করতে বাধা কোথায়। আমার তো মনে হয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কোনা কাজই বাধা নয়। যে কোন কৌশলগত কারণে তিনি এখন এটা করছেন না তবে আমার দৃঢ় বিশ্বাস তিনি করবেনই করবেন। আমি ওনাকে যতটা কাছ থেকে দেখেছি ওনার অসম্ভব সফটকর্নার ত্বকীর প্রতি। তিনি নিজেও বলেছেন ত্বকী হত্যার বিচার হতেই হবে। তবে যে কোন কারণেই হোক এ বিচারটা পিছিয়ে যাচ্ছে। আমরা জানি কেন বিচারটা পিছিয়ে যাচ্ছে। তবে আমরা পিছাতে চাই না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে যেমন বিচারহীনতা আছে তদরূপ বিচার যে হয়েছে তার বহু উদাহরণ আছে। নারায়ণগঞ্জেই তার উদাহারণ আছে। সাত খুনের যদি বিচার হতে পারে তাহলে ত্বকী হত্যার বিচার নয় কেন? আমার মনে হয় এ জনগনই একদিন রুখে দাঁড়াবে। সারা বাংলাদেশ রুখে দাঁড়াবে। আজকে যারা এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে তারা কিন্তু জেনে বুঝে এসেছে। এ মায়েরাই তাদের সন্তানকে নিয়ে এসেছে। সে মা বাবা ও যারা নিয়েছেন তাদের সবাইকে বলবো যাতে আমরা পিছিয়ে না যাই। বাংলাদেশ পিছিয়ে যেতে পারে না। এগিয়ে যেতে হবে এবং সারা বাংলাদেশে একজন করে ত্বকী হয়ে উঠুক। ত্বকী হত্যার বিচার আমরা দাবি করি। ত্বকী হত্যার বিচার খুব শিগ্রই হবে সেদিন বেশি দূরে নয়।

ত্বকী হত্যার বিচার দাবি করে মেয়র আইভী বলেন, বাংলাদেশ সরকারের কাছে আমরা ত্বকী হত্যার বিচার চাই। নারায়গঞ্জবাসী আমরা স্বস্তি চাই, আমরা বাঁচতে চাই, আমরা আমাদের সন্তানদের উন্মুক্ত মাঠে খেলা করাতে চাই, আমরা শহীদ মিনার যেতে চাই নির্ভয়ে, আমরা চাষাঢ়া ঘুরতে চাই নির্ভয়ে, শীতলক্ষ্যার পাড়ে নদীতে নির্ভয়ে ঘুরতে চাই। আমরা লাশ দেখতে চাই না। যদি আশ্বিক হত্যার বিচার হতো তাহলে ত্বকী হত্যা হতো না। যদি ভুল হত্যার বিচার হতো বা তারও আগে যে হত্যা হয়েছে এ হত্যাকা-ের যদি বিচার হতো তাহলে ত্বকী হত্যা হতো না। ত্বকী হত্যার প্রতিবাদ হয়েছে বলেই নারায়ণগঞ্জে অনেকের প্রাণ্য রক্ষা পেয়েছে। না হলে বহু মানুষের প্রাণ যেতো। আজকে ত্বকী মঞ্চ দাঁড়িয়ে আছে বলেই আজকে অনেক কিছুতে নারায়ণগঞ্জবাসী রক্ষা পেয়েছে। আমি মনে করি এ মঞ্চ নারায়ণগঞ্জবাসীর পাশে থাকবে এবং আমিও তাদের পাশে থাকতে চাই, ত্বকী হত্যার বিচার চাইবো। যতদিন পর্যন্ত ত্বকী হত্যার বিচার না হলে ততদিন পর্যন্ত আমি আপনাদের পাশে আছি।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সাহিত্য-সংস্কৃতি -এর সর্বশেষ