rabbhaban

স্বপন হত্যা মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তার সাক্ষ্য সম্পন্ন


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:২২ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
স্বপন হত্যা মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তার সাক্ষ্য সম্পন্ন

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত কাপড় ব্যবসায়ী স্বপন কুমার সাহা হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার সাক্ষ্য গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ওই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আদালতে মামলার আসামী পিন্টু দেবনাথ ও রত্ম চক্রবর্তী ও মোল্লা মামুন উপস্থিত ছিলেন

বেলা দেড়টা হতে আদালতে আসামীদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেয়া মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মফিজুল ইসলামকে জেরা করেন আসামী পক্ষের আইনজীবীরা। সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আগামী ২৩ জুলাই মামলার আসামীদের ৩৪২ ধারা পড়ে শুনানো হবে এবং আসামীদের সাফাই সাক্ষ্য আছে কিনা সেটি জানতে চাওয়া হবে।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুলী পিপি এস এম ওয়াজেদ আলী খোকন বলেন, আজকে স্বপন হত্যার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার সাক্ষ্য প্রদান ও জেরা শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে মামলাতে আসামীর জবানবন্দী যে সাক্ষ্য প্রমাণ উপস্থাপন করা হয়েছে তাতে করে আসামীর সর্বোচ্চ সাজা দিতে আমরা সক্ষম হবো।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ শহরের মাসদাইর বাজার কাজী বাড়ির প্রবাসী আজহারুল ইসলামের ৪ তলা ভবনের ২য় তলায় হত্যার পূর্বে যৌন মিলনের প্রলোভন দেখিয়ে পিন্টু তার প্রেমিকা রত্মা রানীকে দিয়ে স্বপনকে ডেকে নেয় মাসদাইরের ওই ফ্ল্যাটে। এরপর বিছানায় বসিয়ে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি করে পূর্বে থেকে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে রাখা ফ্রুুটিকা জুস স্বপনকে পান করায় রত্মা রানী। এতে ঘুমিয়ে পড়ে স্বপন। এরপর শীল পাটা দিয়ে স্বপনের মাথায় আঘাত করে পিন্টু। পরে বাথরুমে নিয়ে বটি দিয়ে লাশ গুমের জন্য ৭ টুকরো করা হয়।

পরে রাতে ৫টি বাজারের ব্যাগে করে ওই লাশ তিন দফায় শীতলক্ষ্যা নদীতে নিয়ে ফেলে দেয় পিন্টু। সহায়তা করে রতœা সে ও পিন্টু মিলেই বাড়ির নিচে ব্যাগগুলো নামায়। মাসদাইর থেকে তিন দফায় ঘাটে ব্যাগগুলো আনা হয়। প্রথম দফায় একটি, দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফায় দুটি করে ব্যাগ কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনালের পাশে সেন্ট্রাল খেয়া ঘাটে আনে। মাসদাইর থেকে রিকশায় করে লাশবোঝাই ব্যাগগুলো যাতে কেউ বুঝতে না পারে সেজন্য উপরে দেওয়া হয় সবজি। প্রত্যেকবার সে বৈঠা চালানো নৌকা রিজার্ভ করে বন্দর ঘাটে যাওয়ার জন্য। পরে মাঝির অগোচরে ব্যাগগুলো ফেলে দেওয়া হয় শীতলক্ষ্যায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর