rabbhaban

এক মাসে ১০ দণ্ডে শীর্ষ মাদক কারবারীরা


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৫৪ পিএম, ০৯ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার
এক মাসে ১০ দণ্ডে শীর্ষ মাদক কারবারীরা

নারায়ণগঞ্জে অপরাধ বৃদ্ধি পাচ্ছে আশঙ্কা জনক হারে। এসকল অপরাধের তুলনায় বিচার প্রাপ্তির তালিকা খুবই নগণ্য। তবে বিগত কয়েক মাসের তুলনায় গত জুনে ৩০ দিনে ১০টি অপরাধের দন্ডের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এদের ভেতর মাদক এবং নারীঘটিত অপরাধের পরিমানই বেশী।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জে মাদকের ছড়াছড়ি ও ধর্ষণ আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। লোহমর্ষক এসকল ধর্ষনের ঘটনায় আতঙ্কিত অভিভাবকরা। আর এসব ধর্ষণের পেছনে যেমন রয়েছে মানসিক বিকলঙ্গতা তেমনি রয়েছে মাদকের প্রভাব। উভয়ের যৌথ ছোবলে অপরাধের মহামারী ছড়িয়ে পড়ছে নারায়ণগঞ্জ জুড়ে। এর মাঝে মাদকের কয়েকজন গডফাদার ক্রসফায়ারে নিহত হলেও মাদকের প্রকোপ কমছে না।

গত ১৯ জুন আড়াইহাজারে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে আনোয়ার হোসেনকে হত্যার ঘটনায় শ্যামল মোল্লা নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেয় অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত।

একই দিন এক হাজার পিছ ইয়াবা উদ্ধারের মামলা এক তরুণীসহ ৩ জনকে দশ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ৬ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেয় জেলা যুগ্ম দায়রা জজ আদালত। তবে এসময় দন্ডিত আসামীরা অনুপস্থিত ছিলেন। শহিদুল ইসলাম সোহেল (২৩), আমিনুর ইসলাম (৩০) ও সাথী বেগম ওরফে রোজিনা (২০)।

২৭ জুন চাঞ্চল্যকর কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা রণদাপ্রসাদ সাহা ও তাঁর ছেলে ভবানী প্রসাদ সাহাকে অপহরণ ও হত্যা এবং গণহত্যার তিনটি ঘটনায় করা মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মাহবুবুর রহমানের ফাঁসির আদেশ দেয় মানবতা বিরোধী ট্যাইবুন্যালের একটি আদালত। আসামি মাহবুবুর রহমান ১৯৭১ সালের ৭ মে মধ্যরাতে নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় রাজাকারদের সহায়তায় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর ২০ থেকে ২৫ জন সদস্যকে রণদাপ্রসাদ সাহা, তাঁর ছেলে ভবানীপ্রসাদ সাহা, রণদাপ্রসাদের ঘনিষ্ঠ সহচর গৌর গোপাল সাহা, রাখাল মতলব, রণদাপ্রসাদ সাহার দারোয়ানসহ সাতজনকে অপহরণ করে নিয়ে যান। পরে সবাইকে হত্যা করে মরদেহ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। এরপর তাঁদের মরদেহ আর পাওয়া যায়নি।

একই দিন নারায়ণগঞ্জে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় সালমা বেগম নামে এক নারীকে অর্থদন্ড ও অনাদায়ে ৭ দিনের কারাদ- দেয়ার আদেশ দেয় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। একই সঙ্গে এ মামলার ২ আসামী স্বামী স্ত্রীকে খালাস প্রদান করে আদালত।

৩০ জুন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় দুই ছিনতাইকারীকে অস্ত্র আইনের মামলায় ১৪ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দেয় জেলা যুগ্ন দায়রা জজ আদালত। তবে সাজাপ্রাপ্ত দুই ছিনতাইকারী আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। পলাতক আসামীরা হচ্ছে আওলাদ হোসেন (৩০) ও বিল্লাল হোসেন (৩৬)।

১০ জুলাই নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় সাড়ে ৭ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় মোরশেদুল হক গেঞ্জু (৩২) নামে এক মাদক ব্যাবসায়ীকে ১৪ বছরের জেল ও ৫ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেয় জেলা যুগ্ন দায়রা জজ আদালত।

একই দিন নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ইভটিজিংয়ের অপরাধে সাইফুল ইসলাম (২১) নামে বখাটেকে ৩ মাসের কারাদন্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোনারগাঁ মোগড়াপাড়া ওভারব্রিজের নীচে এক স্কুল ছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের অপরাধে তাকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়। এসময় আদালত তাকে তিন মাসের কারাদন্ড প্রদান করেছে।

১৭ জুলাই ৬৬ হাজার পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট পাচারের মামলায় তিন মাদক কারবারীকে ১০ বছরের জেলা ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করে জেলা ও দায়রা জজ আদালত। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো ফোরকান উদ্দিন (২১), হারুন (২১) ও শাহাজাহান (২৫)।

একই দিন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় মাদক সেবন ও সংরক্ষণের অপরাধে তিনজনকে ৩মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সাজাপ্রাপ্তরা হলেন স্থানীয় বাসিন্দা মাসুদ (২৩), শান্ত (১৯) ও আকাশ (২০)। গাঁজা সেবনের উদ্দেশ্যে সংরক্ষণ ও বহন করার অপরাধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে প্রত্যেককে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

একই দিনে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় বাল্য বিয়ে পড়ানোর অপরাধে কাজীসহ ৪ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাল্য বিয়ে পড়ানোর খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে কাজী হাবিবুর রহমান, তার সহযোগি আতাউর, কাউসার গাজী ও শফিকুলকে হাতেনাতে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কাজী হাবিবুর রহমানকে ১ বছর, তার সহযোগী আতাউর ও শফিকুলকে ১ বছর এবং কাউসার গাজীকে ৬ মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া কাজী হাবিবুর রহমানের লাইসেন্স বাতিলের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

স্থানীয়রা বলছেন, একের পর এক অপরাধ সংঘঠিত হয়ে আসলেও বিচারর দীর্ঘসুত্রতার ফলে অপরাধীরা জামিনে বেরিয়ে পুনরায় অপরাধ করছে। ফলে আসামীরা অপরাধ পুনরায় করতে ভয় পায় না। যে হারে অপরাধ সং ঘটিত হয় তার অনুরূপ আদালতে আসামীদের দন্ড দেয়া প্রয়োজন। এজন্য আদালত সংশ্লিষ্ট সকলকেই আরও আন্তরিক ভাবে দেখতে চান তারা।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর