আগুনের পর অনিশ্চয়তায় ৫০০ শ্রমিক কর্মকর্তা


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:০২ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার
আগুনের পর অনিশ্চয়তায় ৫০০ শ্রমিক কর্মকর্তা

কারখানার গুদামে আগুন লাগায় কাজের অনিশ্চয়তায় ভুগছেন ৩শতাধিক শ্রমিকসহ ইস্ট এশিয়ান কক্স কারখানার মোট ৫শতাধিক চাকরিজীবি। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুরে এপেক্স হোসেন টায়ার অ্যান্ড টিউব কোম্পানির অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ইস্ট এশিয়ান কক্স নামের কারখানার গুদামে ১২ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল ৮টায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। যার ফলে কারখানার কার্যক্রম বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার আশংকা রয়েছে।

১২ সেপ্টেম্বর বুধবার সরেজমিনে দেখা যায় কারখানার গুদামে থাকা তৈরি টায়ারসহ সমস্ত কাঁচামাল আগুনে পুড়ে গেছে এবং আগুন লাগার ফলে গুদামের ছাদের পুরো কাঠামো তার উপর ভেঙ্গে পরেছে। ফলে সেখানে ফায়ার সার্ভিসের আগুন নির্বাপনের যন্ত্র পৈাছাতে পারেনি। ফলে বাইরের আগুন নিয়ন্ত্রনে চলে এলেও ছাদের নিচে চাপা পরা রাবার ও টায়ারের আগুন সন্ধা পর্যন্ত কাজ করেও নিভাতে সক্ষম হয়নি ফায়ার সার্ভিস। পরবর্তীতে সেখানে নির্বাপনের সামগ্রী পৌছানোর জন্য গুদামের দেয়ালের একটি অংশ ভেঙ্গেছে ফায়ার সার্ভিস।

কর্তৃপক্ষ আশংকা করছেন যে ছাদ, ছাদের নিচে চাপা পরা কেমিক্যাল, ফার্নিশ অয়েল, রাবার তৈরির সামগ্রী, তৈরি রাবার ও তৈরি টায়ার ও অন্যান্য জিনিসের ক্ষতি সহ কোটি কোটি টাকার লোকশান গুনতে হবে কম্পানিকে। তবে এর থেকে অনেক বেশি লোকসান হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা যায়।

কারখানার শ্রমিক মো. জুলহাস নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘আমরা প্রতিদিনের মতোই টিফিন বক্স সহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে কাজ করতে এসেছিলাম, এসে দেখি এই অবস্থা। গুদামের ভিতরের সবকিছু নাকি পুড়ে গেছে। আর কাঁচামাল ছাড়া তো আর কারখানায় কাজ হবে না। এখন কয়দিন কাজ বন্ধ থাকে আল্লাহ্ই জানে।’

কারখানার শ্রমিক মিজানুর রহমান বলেন, ‘যে আগুন লাগছে, তাতে অনেক দিনের কাজ করার মালামাল পুইরা গেছে। এখন আবার কবে মালামাল সব আনবো, ছাদ ঠিক করবো, গ্যাস লাইন, কারেন্ট লাইন ঠিক করবো; আর কবেই বা কাজ শুরু করবো। এখন মালিক পক্ষের লোকজন কি কয় সেইটার অপেক্ষায় আছি।’

ইস্ট এশিয়ান কক্স এর ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) জাফর ইকবাল নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘১০হাজারের বেশি টায়ারের সাথে প্রায় সব কাঁচামালই পুড়ে গেছে। যদিও কোম্পানির ক্রেতারা যোগাযোগ করছেন। কাঁচামাল চলে আসবে কয়েকদিনের মধ্যে, ফলে শ্রমিকদের কাজ বেশিদিন বন্ধ থাকবে না। তাছাড়া ফ্যাক্টরির তেমন ক্ষতি হয়নি। তবে আপাতত কিছুদিন একটু কাজ করতে সমস্যা হবে, কেননা গোডাউনের ছাদের পুরো কাঠামোটাই ভেঙ্গে পরেছে। এবং কারখানা ও গুদাম ঠিকঠাক করতেও একটু সময় লাগবে। বিরাট লোকশানের গুনতে হবে কোম্পানিকে। প্রায় ৭০ থেকে ৮০ কোটি টাকার লোকশান হবে এই দুর্ঘটনায়।’

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সহকারি পরিচালক মো. আব্দুল্লাহ আল আরেফিন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘এখনি বিস্তারিত কিছু বলা যাবে না। আগুন পুরোপুরি নিভে গেলে ফায়ার সার্ভিস থেকে একটি কমিটি গঠন করা হবে। কমিটি খতিয়ে দেখবে যে কতটা ক্ষতি হয়েছে।’

পোস্ট অফিস সড়কের একটি চা এর দোকানদার সেলিম বলেন, ‘পাশেই তুলার মিল। যদি সামনের পুকুরটা না থাকতো তবে দেখা যাইতো পুরা এলাকা গেসে আগুনের মুখে। এই এলাকায় যদি বড় দুর্ঘটনা ঘটে তবে পুরা এলাকাই ভয়ের ভিতর থাকে। চাইর দিকেই মিল আর গুদাম!’

জানা গেছে, ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুরে হোসেন টায়ার অ্যান্ড টিউব কোম্পানির অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ইস্ট এশিয়ান কক্স নামের কারখানার নীচতলায় গুদামে বুধবার সকাল ৮টায় অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। পরে আগুন দ্রুত কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে। এসময় আগুনের কালো ধোঁয়ায় আশপাশের এলাকা আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। আতংকে কারখানার শ্রমিকেরা ও এলাকার মানুষ এদিক সেদিক ছোটাছুটি করতে থাকেন।

নারায়ণগঞ্জ, হাজীগঞ্জ, ফতুল্লার বিসিক, শ্যামপুর ও ঢাকা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মোট ৯টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ শুরু করে। প্রায় ৩ ঘণ্টা চেষ্টার পর বেলা পৌনে এগারোটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
-->
newsnarayanganj24_address
অর্থনীতি এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর