rabbhaban

আসলাম সানির বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৩:৩৮ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার
আসলাম সানির বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় হরিহর পাড়ায় এমপির প্রভাব খাটিয়ে একটি পরিবারের ১০ দশমিক ৫০ শতাংশ জমি দখল করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার ১৪ নভেম্বর সকালে এ অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে ফতুল্লার এনায়েতনগর, শাসনগাঁওয়ের বাসিন্দা মোঃ সোলেমান দেওয়ান।

এ সময় তার সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন, তার পিতা সুরুজ দেওয়ান, ফুপা আ.গনি, জেঠা মো.ওলি দেওয়ান ও বড় ভাই মাহফিন দেওয়ান।

এ সময় অভিযোগে করা হয়েছে, এমপির প্রভাব খাটিয়ে বিকেএমইএ’র সাবেক সহ-সভাপতি এ এইচ আসলাম সানি ৪বছর ধরে ওই জমি দখল করে রেখেছেন।

তিনি উল্লেখ করেন, ১৯৪৪ সালের জুলাইয়ের ২২ তারিখে তার দাদা মরহুম বাদশা মিয়া দেওয়ান পূর্বপুরুষ সূত্রে ঢাকা মুন্সিগঞ্জ রাস্তার পাশে অবস্থিত ঐ জমির রেজিস্ট্রিকৃত জমির মালিক হন। তার পর থেকেই তারা স্বপরিবারে সেখানে বসবাস করে আসছেন। পরবর্তী সময়ে ২০১৩ সালে আমাদের পাশ্ববর্তী কিছু জমি ক্রয় করেন ক্রোনি গ্রুপের মালিক আসলাম সানি। সেসময় আমরা আমাদের জমি চিহ্নিত করে বাশের বেড়া দিলেও তার লোকজন সে বেড়া ভেঙে দেয়। এ ঘটনায় আমরা কয়েকদফায় ফতুল্লা থানা ও আদালতে কয়েকটি মামলাও দায়ের করি। এসব কিছুর পরেও আসলাম সানি ধারাবাহিকভাবে তার তৎপরতা চালিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, এদিকে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলীর মধ্যস্থতায় এই দ্বন্দ্বের একবার মিমাংসা করার চেষ্টা করা হলেও আসলাম সানি তা উপেক্ষা করে পেশাদার সন্ত্রাসী দিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। এরপর চার বছর কেটে গেলেও আমরা আমাদের জমির দখল ফিরে পাইনি। তাই বর্তমানে জমির দখল ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রী ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

আসলাম সানি বিকেএমইএ’র সাবেক সহ-সভাপতি ও ফতুল্লার শিল্পনগরী সংলগ্ন ক্রোনি গ্রুপের মালিক। আসলাম সানি নরংসিদী-৪ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে ইতিমধ্যে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

তবে এ বিষয়ে এ এইচ আসলাম সানির মুঠোফোনে কল করা হলে তিনি জানান, দেশে আইন আছে আদালত আছে। যে পরিবার অভিযোগ উত্থাপন করেছে তাদের যদি জমির মালিকানার কাগজপত্র থেকে থাকে তাহলে তারা যেন আদালতে যায়। আমি ওই জমি বহুগুন দাম দিয়েই ক্রয় করেছি। সরকার ও প্রশাসন আমাকে মিউটেশন দিয়েছে। বর্তমানে আমি ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে সেখানে কারখানাও করেছি। আমার যদি জমির মালিকানার কাগজ না থাকতো তাহলে সরকারও আমাকে মিউটেশন দিত না এবং ব্যাংকও আমাকে ঋন দিত না। আমি দীর্ঘদিন ধরেই স্বচ্ছতার সঙ্গে ব্যবসা করে আসছি। এখন যারা অভিযোগ করছে তারা কোন অসৎ উদ্দেশ্য নিয়েই আমাকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর