নিষেধাজ্ঞা মানছেন না : ক্রেতা বিক্রেতাদের নেই সচেতনতা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৫১ পিএম, ২৪ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার
নিষেধাজ্ঞা মানছেন না : ক্রেতা বিক্রেতাদের নেই সচেতনতা

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সরকার যেখানে জনসমাগম না করার নিষেধাজ্ঞার নির্দেশনা দিয়েছেন সেখানে নারায়ণগঞ্জের বাজারগুলোতে সেই নিষেধাজ্ঞা মানছেন না বেশীরভাগ মানুষই। বরং বাজার করতে আসা লোকজনের মধ্যে নেই সচেতনতাও। বাজারে আসা লোকজন যেমন দোকানগুলোতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন তেমনি মাস্ক ব্যবহার না করাসহ সচেতনতারও অভাবও রয়েছে ক্রেতা বিক্রেতাদের মধ্যে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা এবং সেনাবাহিনী মাঠে নামার খবরে বাজারে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি কিছুটা কমলেও সব ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যই অধিক মূল্যে বিক্রি হচ্ছে। তবে সচেতনতা না থাকার কারণে করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব বাজার থেকেও ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সাধারণ মানুষ।

২৪ মার্চ মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের অন্যতম বৃহৎ দ্বিগুবাবুর বাজার ও কালিরবাজার এলাকা ঘুরে দেখা গেছে বাজারগুলোতে লোকে লোকারন্য। প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত সামগ্রী ক্রয় করছেন সাধারণ মানুষ। বেশীরভাগ মানুষই মাস্ক ছাড়ায় ঘোরাফেরা করছে। দোকানে নিত্যপণ্য সামগ্রী ক্রয়ের জন্য হুমড়ী খেয়ে পড়ছে সাধারণ মানুষ। শুধু পুরুষরাই নয় নারীরাও ভীড় করছেন বিভিন্ন দোকানে। হাচি কাশি দেয়ার ক্ষেত্রেও অনেককেই অসতর্ক দেখা গেছে। এছাড়া বিক্রেতারাও হ্যান্ড গ্লাভস ও মাস্ক ছাড়াই পণ্য সামগ্রী বিক্রি করছেন।

ক্রেতাদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, আগামী এক সপ্তাহ নারায়ণগঞ্জ লক ডাউন থাকবে অর্থাৎ কেউ বাড়ির থেকে বাইরে বের হতে পারবেনা। এমন খবরে তারা বাজারগুলোতে ভীড় করছেন। অতিরিক্ত দর দিয়েও পণ্য সামগ্রী ক্রয় করছেন।

বিক্রেতারা জানান, মার্কেট বন্ধ থাকবে এবং এক সপ্তাহ কোন ধরনের পণ্যবাহী গাড়ি আসতে পারবেনা এমন খবরে বাজারে ক্রেতাদের প্রচুর ভীড়। তারাও ভীড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন।

জানা গেছে, দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪ জন মারা গেলেন। এছাড়া দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৯ জনে। ইতিপূর্বে নারায়ণগঞ্জে ২ জন আক্রান্ত হলেও তারা বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জে আরো একজন করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। গত ১ মার্চ থেকে ২৩ মার্চ পর্যন্ত বিদেশ থেকে নারায়ণগঞ্জে এসেছে ৫ হাজার ৯৬৮ জন। যার মধ্যে ১৮৬ জন হোম কোয়ারেন্টিনে আছে। এখানে নতুন যুক্ত হয়েছে ৩৮ জন। তবে ১৪ জনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার সময় শেষ হয়েছে।

এদিকে করোনা ভাইরাসের ইস্যুতে গত ১৮ মার্চ থেকে নারায়ণগঞ্জসহ সারাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এছাড়া করোনা ভাইরাস আতঙ্কে আগামী ২৫ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সারা দেশের ওষুধের দোকান, নিত্যপণ্যের দোকান ও কাঁচাবাজারের দোকান ছাড়া সব ধরণের মার্কেট বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি সব ধরনের গণপরিবহন, ট্রেন ও লঞ্চে চলাচল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। পাশাপাশি বাজারগুলোতেও লোক সমাগম কম হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর