rabbhaban

শিক্ষাক্ষেত্রে নবযুগে পদার্পণ করছে নারায়ণগঞ্জ কলেজ


হাফসা আক্তার, স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:২৮ পিএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার
শিক্ষাক্ষেত্রে নবযুগে পদার্পণ করছে নারায়ণগঞ্জ কলেজ

নারায়ণগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের নতুন ভবন শুধু নারায়ণগঞ্জ কলেজে নয় বরং পুরো নারায়ণগঞ্জে একটি নতুন উন্নয়ন উন্মোচন করবে বলে আশা করছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। আর এর মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জে শিক্ষাক্ষেত্রে নবযুগে পদার্পণ করতে যাচ্ছে কলেজটি।

নতুন ভবনের ৭ তলা পর্যন্ত প্রায় সম্পূর্ন হলেও কিছু কাজ এখনো চলছে। পুরো ভবনে ৪৮টি কক্ষ আছে। নিচ তলায় ৬টা এবং উপর তলাগুলোতে ৭টি করে কক্ষ রয়েছে। প্রতিটি কক্ষই মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম করা হবে। প্রতিটি কক্ষে থাকবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রষের ব্যবস্থা। যার ফলে ক্লাসরুমের সংকট নিরসন হবে এবং শিক্ষা কার্যক্রমে নতুন গতি আসবে বলে মনে করেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ কর্তৃপক্ষ আরো মনে করেন, নারায়ণগঞ্জের ৩ কলেজের মাধ্যমিকের সারাবছরই কোনো না কোনো পরীক্ষা থাকে যার ফলে পরিক্ষার সময় অন্যন্য বিভাগের এবং অনার্সের শিক্ষার্থীদের নিয়োমিত ক্লাস করতে সমস্যা হয়। ফলে নারায়ণগঞ্জে সতন্ত্র পরিক্ষার হল দরকার। এবং এই নতুন ভবন সেই চাহিদা মেটাতে সক্ষম হবে।

নতুন ভবনকে কেন্দ্র করে কলেজে কিছু নতুন বিষয়ও যোগ করার প্রক্রিয়া চলছে। গভর্নিং বডি থেকে এর অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বিষয়গুলো হলো প্রফেশনাল বিবিএ, হোটেল ম্যানেজমেন্ট, কম্পিউটার সাইন্স, ফিন্যান্স, ফ্যাশন ডিজাইনিং, নিটওয়্যার মেনুফ্যাকচারিং টেকনোলোজি। এই কোর্স গুলো মানসম্মত ভাবে শিক্ষার্থীদের কাছে উপস্থাপন করা হবে।

কলেজের গত ২ বছরের নিজস্ব আয় এবং কিছু অর্থ লোন নিয়ে ৭তলা নতুন ভবনটির কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। কলেজ সূত্রে জানা যায় মূলত আর্থিক নিরাপত্তা ও সময়ের দিক বিবেচনা করে কলেজের চলমান আয় থেকেই করা হয়েছে এই ভবন। সরকারি অর্থায়নে সম্পূর্ন কাজ সম্পন্ন করতে হলে সরকারি অনুদানের অপেক্ষায় থাকতে হতো, যা সময়সাপেক্ষ। তবে ৮ থেকে ১০ তলা সরকারি অনুদানে করা হবে বলে জানা যায়।

এ সম্পর্কে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রুমন রেজা নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘কলেজের নিজস্ব আয় ও সরকারি অনদান মিলিয়েই আমাদের ১০তলা ভবনটি নির্মাণের কথা ছিল। কিন্তু সরকারি অনুদান পাওয়া সময়ের ব্যাপার। দেখা যাবে কয়েক বছর ধরে কিছুটা করে অনুদান আসতো। ফলে ভবন নির্মাণে অনেক সময় লাগতো। অন্যদিকে আমাদের ক্লাসরুমের সংকটের কারণে ভবনটির প্রয়োজনীয়তা ছিল অনেক দ্রুত। ফলে আমরা কলেজের চলমান ২ বছরের আয় থেকে নিজস্ব অর্থায়নে ৭তলা ভবনটি নির্মান করে আপাত প্রয়োজন মিটিয়েছি। যদিও জরুরি প্রয়োজনে কলেজের অন্য খাত থেকে কিছু লোন নিতে হয়েছে। তবে তা কলেজের নিজস্ব আয় থেকে আগামী কিছু সময়ের মধ্যেই পরিশোধ করা সম্ভব। এটা কলেজ তথা নারায়ণগঞ্জের জন্য বড় ব্যপার যে এখানে এক সাথে ৪৮টি মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম হবে এবং প্রত্যেকটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রীত। যেহেতু এখনি বাকি ৩ তলার তেমন প্রয়োজন পরছে না তো তার জন্য সরকারি অনুদানের অপেক্ষায় আছি।’

তিনি আরো জানান, বর্তমানে নারায়ণগঞ্জে কলেজে সব মিলিয়ে কমবেশি ১০ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে। নারায়ণগঞ্জে সর্বপ্রথম জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নতুন ৫টি বিষয়ের উপর কোর্স চালু সহ অনার্স বিভাগে আরো ৫টি বিষয় সংযোজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অতিথি শিক্ষক হিসেবে পাঠদানের ব্যবস্থা করা হবে। যার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ কলেজ শুধু নারায়ণগঞ্জেই নয় সমগ্র বাংলাদেশের মধ্যেই একটি অন্যতম বিদ্যাপীঠে পরিনত হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এসব কিছু বাস্তবায়ন করা হলে আমার বিশ্বাস নারায়ণগঞ্জের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের শিক্ষার্থীরা মানসম্মত পড়ালেখার জন্য আর কষ্ট করে আর ঢাকা যেতে চাইবে না।

এর আগে ৮ আগষ্ট নারায়ণগঞ্জ কলেজের পরিচালনা পর্ষদের মাসিক সভায় জানানো হয়, এখন পর্যন্ত সরকারীভাবে কোন সহযোগীতা ছাড়াই কলেজের নিজস্ব তহবিল থেকে ভবনটির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। তবে ভবনে লিফট, এসি এবং প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র স্থাপনের জন্য নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ীদের কাজে সহযোগীতা নেওয়া হবে বলে সভায় সর্বসম্মতিক্রমে প্রস্তাব রাখা হয়েছে। কলেজ কর্তৃপক্ষের আহবানে সাড়া দিয়ে যদি কোন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানটিকে সহযোগীতা করে তাহলে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে সেটি সানন্দে গ্রহণ করা বলে সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারীতে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানকে এডহক কমিটির মাধ্যমে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। ঠিক এক বছর পর অর্থাৎ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারীতে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে এমপি সেলিম ওসমানের হাত ধরে প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়নের যাত্রা শুরু করে। এরপর থেকে প্রতিষ্ঠানটিকে আধুনিকায়নের উন্নয়ন কাজ এক মুহূর্তের জন্য থেমে থাকেনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
rabbhaban
আজকের সবখবর