rabbhaban

মর্গ্যানে নির্বাচনের আগেই দাতা সদস্য নির্বাচিত আহসান হাবিব!


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:২৩ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার
মর্গ্যানে নির্বাচনের আগেই দাতা সদস্য নির্বাচিত আহসান হাবিব!

মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের গভর্নিংবডি নির্বাচন ৫ অক্টোবর শুক্রবার। এর আগেই নির্বাচনের দাতা সদস্য (ডোনার মেম্বার) নির্বাচিত হয়েছেন বর্তমান গভর্নিংবডি মেম্বার ও মহানগর আওয়ামীলীগ নেতা আহসান হাবিব। এ নিয়ে স্কুলে নির্বাচন পরিচালনা নিয়ে সমালোচনা সৃষ্টি হয়েছে। স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রায় ৩৩০০ শিক্ষার্থীর অভিভাবক ও দেওভোগে প্রভাবশালী থাকতে মাত্র ২০ হাজার টাকা বিনিময়ে আহসান হাবিব নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনের আগে তিনি কিভাবে নির্বাচিত হলেন তা নিয়ে সমালোচনা মুখে পড়েছে বর্তমান গভর্নিংবডি।

স্কুলের উন্নয়নের বঙ্গমাতা’র নামে একটি ভবন নির্মাণের জন্য এমপি সেলিম ওসমানের ৩ কোটি টাকা অনুদানের পর থেকে শহরে আলোচনায় আসে মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজ। তার মধ্য গভর্নিংবডি সভাপতি পদে রয়েছেন রাজনীতিবিদদের গুরু মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন। তারই খুব আস্থাভাজন হলেন মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব। এই আহসান হাবিব জেলা পরিষদের ২নং ওয়ার্ড নির্বাচন কোন ভোট পায়নি। হেরে যান তার বন্ধু জাহাঙ্গীর আলমের কাছে।

স্কুলের নির্বাচনের অংশ গ্রহণের অনুযায়ী টানা পর পর অভিভাবক সদস্য হওয়ায় আহসান হাবিব এবার প্রার্থী হতে পারবে না। কারণ তার মেয়ে এবার দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। তাই তিনি ভোট দিতে পারবেন নির্বাচনের প্রার্থী হতে পারবে না। তাই প্রিয়ভাজন হওয়ায় ৩৩০০ শিক্ষার্থীর অভিভাবক ও প্রভাবশালীদের টপকিয়ে আহসান হাবিব এবার ডোনার মেম্বার (দাতা সদস্য) নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু গভর্নিংবডি কমিটির বাকি পদে নির্বাচত হতে যাচ্ছে ৫ অক্টোবর।

স্কুলের একাধিক অভিভাবক জানান, মাত্র ২০ হাজার টাকা মনোনয়নে ডোনার মেম্বার হলেন আহসান হাবিব। এর ফলে মর্গ্যান এই পদ থেকে আর কোন টাকা থেকে বঞ্চিত হল। কারো প্রিয়ভাজন হওয়ায় এভাবে কেউ বিজয় হওয়াটা গৌরবের বিষয় নয়, লজ্জা বিষয় হিসেবে বিবেচিত হবে। অনেকে জানিয়েছে ক্লাসে ও নোটিশ বোর্ডে এই ডোনার মেম্বার নির্বাচন নিয়ে জানানো হয়েছে। কিন্তু আমাদের অবগত মনে এই রকম ঘটনা আমাদের জানা নেই। অপর দিকে ডোনার মেম্বার নির্বাচনের বিজয়ী করার পর অনেক বর্তমান সদস্যরা নাখোশ প্রকাশ করেছে অন্যদিকে অনেকে বিষয়টি জানেও না।

এ ব্যাপারে বর্তমান সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক ও নাসিক মহিলা কাউন্সিলর শারমিন হাবিব বিন্নী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘গভর্নিংবডির সদস্য হিসেবেও আমাকে এ ব্যপারে জানানো হয়নি। আমি একজন জনপ্রতিনিধি সে কারণে আমি তেমন সময় পাইনি যে গিয়ে নোটিশ বোর্ডের সামনে দাড়িয়ে নোটিশ পরবো। গভর্নিংবডিকে যখন আমি নিজে থেকে দাতা সদস্য নির্বাচনের কথা জিজ্ঞেস করেছি তখন তারা বলেছে যে নির্বাচন অনেক আগেই হয়ে গেছে। তবে আমি বলবো যে গভর্নিংবডির সদস্য হয়েও এটা আমারই ব্যর্থতা যে আমি অন্য অভিভাবকদের মতো নোটিশ বোর্ড থেকে নোটিশ পরিনি।’

গভর্নিংবডি সভাপতি আনোয়ার হোসেন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘নিয়ম অনুযায়ী একটি নির্দিষ্ট সময় দেয়া হয়েছিল যে সময়ের মধ্যে দাতা সদস্য হতে আগ্রহী অভিভাবকদের টাকা জমা দিয়ে সদস্য হতে হবে। এ সময়ের মধ্যে যে টাকা জমা দিয়েছেন তিনি সদস্য হয়েছেন আর যারা টাকা জমা দেননি তারা বাদ পড়েছেন’।

নিউজ নারায়ণগঞ্জকে তিনি বলেন, ‘কেউ যদি বলে থাকেন যে আমার আস্থভাজন হওয়ায় তিনি নির্বাচিত হয়েছেন তাহলে তা ভূল ধারনা। আসলে যারা নির্বাচিত হন তারা প্রত্তেকেই আমার আস্থাভাজন। প্রত্তেককে নিয়েই আমরা চলি, আমাদের চলতে হয়।’

মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের গভর্নিংবডি নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার ও সদর উপজেলার নির্বাচন অফিসার মোঃ মমিন মিয়াকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং কলেজের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলার পরামর্শ দিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, অভিভাবক, সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক, সাধারণ শিক্ষক, সংরক্ষিত মহিলা শিক্ষক ও দাতা সদস্য মনোয়নপত্র বিতরণ ও জমা ১৫, ১৬, ১৭ সেপ্টেম্বর। মনোয়ন বাছাই ২০ সেপ্টেম্বর, প্রত্যাহার ও বৈধ প্রার্থীগণের তালিকা প্রকাশ ২৩ সেপ্টেম্বর ও নির্বাচন ৫ অক্টোবর।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর