rabbhaban

তোলারাম কলেজের অপহৃত শিক্ষক ৩০ ঘণ্টা উদ্ধার


খবর ও একটি ছবি বাংলাট্রিবিউন হতে নেওয়া | প্রকাশিত: ০৯:২৫ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার
তোলারাম কলেজের অপহৃত শিক্ষক ৩০ ঘণ্টা উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জের তোলারাম কলেজের দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সারোয়ার জাহান কিরণকে (৫২) অপহরণের ৩০ ঘণ্টা পর উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৪)। এসময় অপহরণকারী চক্রের পাঁচ সদস্যকে আটক করেছেন র‌্যাব সদস্যরা। খবর : বাংলাট্রিবিউনের।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ভোরে রাজধানীর মিরপুর ৬০ ফিট সড়কের পাশে দক্ষিণ মনিপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৪ এর কোম্পানি কমান্ডার (সিপিসি-১) মেজর কাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আটক অপহরণকারীরা হলো ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মো. মোরশেদ আলম ওরফে জুয়েল (৩৫), মো. নাফিজ খাঁন (২০), সাহানা নাজনীন (৩৫), সাবিহা নাজনীন (২৮) এবং কুমিল্লার ফাহিজ সাদমান (২০)। তাদের কাছ থেকে নগদ ৮ হাজার টাকা, দুটি ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড, সাতটি মোবাইল ও একটি ভ্যাসপা স্কুটি উদ্ধার করা হয়।

মেজর কাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ জানান, সারোয়ার জাহান অপহরণ হওয়ার পর তার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে র‌্যাবের একটি টিম উদ্ধার অভিযানে নামে। ভুক্তভোগী সরোয়ার জাহান গত বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় তার কল্যাণপুরের বাসা থেকে ভ্যাসপা স্কুটি যোগে বন্ধুর বাসার যাচ্ছিলেন। মিরপুর ৬০ ফিট সড়কে পৌঁছালে একটি সিএনজি অটোরিকশা তার পথরোধ করে এবং তাকে অপহরণ করে।

র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা আরও জানান, সারোয়ার জাহানের ওপর মুক্তিপণের টাকার জন্য অপহরণকারীরা শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়। এরপর মোবাইলফোন থেকে ভুক্তভোগীকে মারধরের শব্দ শুনিয়ে তার পরিবারকে ভয় দেখায় এবং ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এতে ভুক্তভোগীর পরিবার দুটি বিকাশ নম্বরের মাধ্যমে ৪০ হাজার টাকা পাঠায়। এছাড়াও অপহরণকারীরা ভুক্তভোগীর ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করে নেয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা জানান, এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীর মোবাইলফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মিরপুরের ৬০ ফিট সড়কের পাশে দক্ষিণ মনিপুরের একটি বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় অপহরণকারী চক্রের পাঁচ জনকে আটক করা হয়। আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে বলে জানান মেজর কাজী সাইফুদ্দিন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর