রোগীর মৃত্যুতে ডাক্তারদের গায়ে হাত দিবেন না (ভিডিও)


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৩১ পিএম, ১২ জুলাই ২০২০, রবিবার
রোগীর মৃত্যুতে ডাক্তারদের গায়ে হাত দিবেন না (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জের করোনা হাসপাতালের আইসিইউতে রোগী মৃত্যুর ঘটনায় কর্তব্যরত চিকিৎসককে লাঞ্ছনার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন চিকিৎসকেরা। ওই ঘটনার পর রোগী এবং চিকিৎসকদের সুরক্ষায় অতি দ্রুত স্বাস্থ্য সুরক্ষা আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের চিকিৎসক এবং চিকিৎসকদের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

১২ জুলাই রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ করোনা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ককের কক্ষে চিকিৎসক লাঞ্ছনার ঘটনায় আয়োজিত এক আলোচনা সভায় ওই দাবি জানানো হয়।

এসময় উপিস্থত ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক ডা. গৌতম রায়, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সামসুদ্দোহা সঞ্চয়, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) নারায়ণগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. বিধান চন্দ্র পোদ্দার, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক ডা. দেবাশীষ সাহা প্রমুখ।

নারায়ণগঞ্জ করোনা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সামসুদ্দোহা সঞ্চয় বলেন, ‘গত বুধবার আইসিইউতে এক রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে আইসিইউ মেডিকেল অফিসারকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। সেই ঘটনায় তিনি আহত হন। সেই ঘটনার পর থেকেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, জেলা বিএমএ এবং স্বাচিপ এর নেতৃবৃন্দরা মিলে সচেষ্ট হই। এর প্রেক্ষিতে হাসপাতালে সার্বক্ষণিক পুলিশ টহল দিচ্ছে। সভায় এই ঘটনায় ছাড় দেওয়া হবে না- এই মর্মে জেলা প্রশাসক মহোদয় বক্তব্য পেশ করেছেন।

তিনি বলেন, ‘হাসপাতালের সভাপতি মাননীয় এমপি সেলিম ওসমান কিন্তু এই ঘটনায় বিন্দুমাত্র ছাড় না দেওয়ার কথা বলেছেন এবং মামলা করার জন্য বলেছেন। স্বাচিপের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরাও বলেছেন চিকিৎসক লাঞ্ছনার ঘটনায় কোনো পিছু হটার নয়, কোনো ছাড় নয় মামলা করো। মামলাই যে সবকিছুর সমাধান দিয়ে দিবে তা না। রোগীর লোক এসেছে আজকে। তাঁর মা মারা গেছে। লাঞ্ছিত চিকিৎসকের কাছে তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। মানবিক চিকিৎসক হিসেবে তিনিও ক্ষমা করে দিয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এই মেসেজটি দিতে চাই যে আপনারা হাসপাতালে এসে এইটুকু অনুধাবন করবেন যে স্বাস্থ্যকর্মী যারা আছেন তাঁরা কিন্তু আপনার স্বজনকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য মানসিকতা নিয়ে এখানে আছেন। মৃত্যু আমাদের হাতে নাই। সেটা উপরওয়ালার হাতে। তাই একজন রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে কখনই কোনো স্বাস্থ্যকর্মীর গায়ে হাত দেবেন না। কখনই কোনো স্বাস্থ্যকর্মীকে শারীরিক বা মানসিকভাবে হ্যারেজ করবেন না।’

এসময় তিনি আরো বলেন, ‘আমি একজন সাধারণ ডাক্তার হিসেবে আমি অতি দ্রুত স্বাস্থ্য সুরক্ষা আইন যে আইনটি হলে রোগীরা এবং ডাক্তাররায সুরক্ষা পাবে সেই আইন দ্রুত প্রনোয়নের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।’

স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) নারায়ণগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. বিধান চন্দ্র পোদ্দার বলেন, ‘আমরা স্তম্ভিত হয়ে যাই যে নানা অপ্রতুলতা ও সীমাবদ্ধতার মধ্যে করোনার মত মহামারি পরিস্থিতিতে যখন নারায়ণগঞ্জের চিকিৎসকরা কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে এবং আইসিইউ শুরু হওয়ার পর থেকে করোনা রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এরকম পরিস্থিতিতে একজন রোগী মৃত্যুবরণ করেছে। যে রোগীর অবস্থা খুব খারার ছিল। রোগী মারা গেছেন এতে আমরাও ব্যাথিত। সেই ঘটনার কারণে রোগীর আত্মীয় ও সন্তানরা ডাক্তারকে লাঞ্ছিত করেছেন। সকলের সাথে কথা বলে মামলার প্রস্তুতি নিলেও যিনি ঘটনা ঘটিয়েছেন তিনি আমাদের কাছে এসে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে আমরা সবার সম্মতিক্রমে সবার মতামতে ওনাকে মাফ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই।’

তিনি বলেন, ‘সকলকে বলতে চাই চিকিৎসা সেবার সাথে যারা জড়িত আছে তাঁদেরকে উৎসাহ দিবেন। এই ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা যাতে আর না ঘটে সেই আবেদন করি।’

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক ডা. দেবাশীষ সাহা বলেন, ‘যে চিকিৎসকরা জীবনের বাজি রেখে করোনা মোকাবিলায় নিজেদেরকে উৎসর্গ করে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন। সেই চিকিৎসকরা যখন অকারণে নির্যাতিত হন তখন আসলে দুঃখের সীমা থাকে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যদি চিকিৎসকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে না পারি। তাঁদের উদ্বিগ্নতা দূর করতে না পারি। সে ক্ষেত্রে আরো ভয়াবহতা থাকবে। আজকে যদি কোনো চিকিৎসক সঠিক ভাবে চিকিৎসা দিতে না পারে। উদ্বিগ্নতায় থেকে সতস্ফুর্ত চিকিৎসা দিতে না পারে। তাহলে রোগীর সেবা ব্যাহত হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এই অবস্থা যাতে নিয়মিত না ঘটে। এই ঘটনা বাংলাদেশের কোনো প্রান্তে আবারো না ঘটে। সেই জন্য একটি সুন্দর রোগী সুরক্ষা আইন ও চিকিৎসক সুরক্ষা আইন যদি না প্রনোয়ন করা হয় তাহলে এই ঘটনা আবারো পুনরাবৃত্তি হবে। আর এই ধরণের ঘটনা ঘটলে স্বাস্থ্য সেবা ক্ষুণœ হবে। রোগীদের সেবায় নিজেদেরকে ওতটা মেলে ধরতে পারবো না। সরকারের প্রতি অনুরোধ রাখবো যাতে চিকিৎসক সুরক্ষা আইন প্রনোয়ন করে।’

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর