rabbhaban

বন্ধনের চেয়ারম্যান আইউব আলীর গাফিলতিতেই তছনছ একটি পরিবার


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৫৭ পিএম, ১৮ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার
বন্ধনের চেয়ারম্যান আইউব আলীর গাফিলতিতেই তছনছ একটি পরিবার

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে চলাচল করা বন্ধন পরিবহনের চেয়ারম্যান আইউব আলী ও তার লোকজনদের চরম গাফিলতির খেসারত দিতে হয়েছে শহরের খানপুর এলাকার একটি পরিবারকে। একটি বাসের বেপরোয়া চলাচলের কারণে এসএসসি পরীক্ষার্থীর যখন জীবন সংকটে তখন বার বার সহায়তার আশ্বাস দিয়েও পিছপা হন। চেষ্টা করেন প্রভাব আর ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে কোনভাবে এ যাত্রায় বেঁচে যেতে।

এ অবস্থায় যখন বিষয়টি নজরে আসে তখনই কিছুটা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। তড়িগড়ি করে সমঝোতা বৈঠক করে ওই পরীক্ষার্থীর পরিবারকে ৭০ হাজার টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরিবারের লোকজন অনেকটা বাধ্য হয়েই সেই প্রস্তাবে রাজী হয়।

জানা গেছে, ৩১ মার্চ বিকালে শহরের সলিমুল্লাহ সড়কে বনশ্রী ফার্নিচার দোকানের সামনে দিয়ে সাইকেল যোগে বাসায় ফিরছিলেন এসএসসি পরিক্ষার্থী বোরহান উদ্দিন ইমন। ওই সময় খালি রাস্তায় কোন হর্ণ ছাড়াই বন্ধন পরিবহনের বেপরোয়া একটি বাস ইমনকে রাস্তার আইল্যান্ড সাথে ঘেষিয়ে ডনচেম্বার মোড় পর্যন্ত টেনে নিয়ে যায়। উপস্থিত জনতা আহত ইমনকে উদ্ধার ও বন্ধন বাস (ঢাকা-ব-০১৭) চালক আমির হোসেনকে আটক করে।

ওই সময়ে বন্ধন পরিবহনের চেয়ারম্যান আইয়ূব আলী ও বাসের মালিক সালাউদ্দিন ঘটনাস্থল লোক পাঠিয়ে চিকিৎসা ব্যয় বহনের আশ্বাস দিলে বাস ছেড়ে দেয় জনতা। এরপর দুই সপ্তাহ পরেও কোন সহায়তা করেনি।

নিজামের ছোট ভাই শাহীন জানান, বন্দনের চেয়ারম্যান আইউব আলী ও মালিক সালাউদ্দিনের ফাঁকিবাজীর কারণে ইমনের বাবা নিজাম উদ্দিন নিজ খরচে একটি ক্লিনিকে ডাক্তারের তত্ত্বাবধায়নে অপারেশন করা হয়। তবে এত টাকা খরচ করে প্রথম অপারেশন করে আবার দ্বিতীয় অপারেশনের খবরেও পরিবহন নেতাদের কোন সাড়া পাননি নিজাম। ১৬ এপ্রিল রাতে মুক্তি হাসপাতালে ভর্তি ছেলেকে সেবা শেষে বাসা ফেরা পথে স্ট্রোক করে। হার্ট সেন্টারে নেয়া হলে সেখানেই তার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে।

শাহিন আরো জানান, ছেলেকে রাস্তায় টেনে হিচড়ে পর বাবাকে স্ট্রোকে মৃত্যু ঘটনায় পরিবহন চেয়ারম্যান ও মালিককে দায়ি করি

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর