rabbhaban

প্রকাশিত ৩২ মাদক ব্যবসায়ীর দুইজন ক্রসফায়ারে নিহত


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৫৬ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত ৩২ মাদক ব্যবসায়ীর দুইজন ক্রসফায়ারে নিহত

নারায়ণগঞ্জকে মাদক মুক্ত করার লক্ষ্যে ৩২জন মাদক ব্যবসায়ীর প্রকাশকৃত তালিকা অনুযায়ী অভিযান শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। যার ধারাবাহিকতায় ইতোমধ্যে মাদকের গডফাদার একজন ও মাদক ব্যবসায়ী ইতোমধ্যে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। আর এ অভিযান ধারাবাহিকভাবে চলবে বলেও ঘোষণা দিয়েছে এসপি হারুন অর রশীদ যিনি বিগত কয়েক মাস ধরেই চাঁদাবাজ, সন্ত্রাস, ভূমিদস্যূ, হকার সহ মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ জানান, সন্ত্রাসী, মাদক, জঙ্গীবাদ, চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে জেলা পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে বিপ্লবের ঘটনাটি ঘটে। অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ীদের কোন ছাড় নাই। মাদকের সাথে কোন আপোষ নাই।

২০১৮ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর তৎকালীন পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশে নারায়ণগঞ্জ শহর ও ফতুল্লা থানা এলাকার ৩২ মাদক ব্যবসায়ীর ছবি সহ তালিকা পোস্টার আকারে প্রকাশ করেন। এদের প্রত্যেককে ধরিয়ে দেয়ার উপর আর্থিক পুরষ্কার ঘোষণা করে নারায়ণঞ্জ পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, ‘এরা (মাদক ব্যবসায়ী ও গডফাদারেরা) ৩২ বা ৪০ জনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। এদের সংখ্যা আরও বেশি। আমাদের এই তালিকা তৈরির প্রক্রিয়া ধারাবাহিকভাবে চলমান থাকবে। আমরা নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি নাগরিকের সহায়তা আশা করছি। আপনারা তথ্য দিন আমরা ব্যবস্থা নিবো। আমাদের পক্ষ থেকে তথ্য প্রদাণকারীর পরিচয় গোপন রাখা হবে পাশাপাশি তাকে পুরষ্কৃত করা হবে। আমরা নারায়ণগঞ্জকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে চাই।’

আনিসুর রহমান প্রকাশ করলেও তিনি অভিযান চালাতে পারেননি। তবে গত ডিসেম্বরে পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ যোগাদানের পর থেকে প্রথমে জুয়ারীদের আড্ডা, মাদক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, ভূমিদস্যূদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেন। তার অভিযানে নগরীর দীর্ঘ দিনের দখল থাকা ফুটপাত হকার মুক্ত করা হয়। নগরীর যানজট কমে আসে।

এর ধারবাহিকতায় ১৬জুলাই ভোরে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মাদকের গডফাদার বিপ্লব নিহত হয়। এর আগে ২০ জুন ভোরে নিহত হয় লিপু ওরফে ডাকাত লিপু।

নারায়ণগঞ্জ ডিবির এসআই কামরুল হাসান জানান, মঙ্গলবার ভোর ৩টায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশে চাঁদমারী এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক বিরোধী অভিযানে গেলে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় গুলিবিদ্ধ হয়ে বিপ্লব পড়ে আছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় তৈরি ওয়ান শুটার গান উদ্ধার করা হয়। পরে বিপ্লবকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটার গান উদ্ধার করা হয়।

নিহত বিপ্লব ফতুল্লার চাঁদমারী এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১৪টির বেশি মাদক মামলা রয়েছে। এসব মামলায় সে দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিল। তাকে ধরিয়ে দিতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়।

এর আগে ২০ জুন ভোর ৩টায় ফতুল্লার দাপা বালুর মাঠ এলাকায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সঙ্গে ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ লিপু ওরফে বোমা লিপু (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়। নিহত লিপু পিলকুনি এলাকার মৃত শামসুল হকের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, মাদক, অস্ত্র, বোমা ও নারী নির্যাতন সহ ১৬টির বেশি মামলা রয়েছে। এসব মামলায় সে দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিল। তাকে ধরিয়ে দিতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ৫ হাজার টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল হাসান জানান, লিপুকে গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানায় তার কাছে বিপুল পরিমাণ মাদক ও অস্ত্র রয়েছে। তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রাতে দাপা বালুর মাঠ এলাকায় অভিযান গেলে লিপুর সহযোগিরা তাকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে লিপুর সহযোগিরা তাকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় গুলিবিদ্ধ হয় লিপু। পরে কাছে গিয়ে দেখা যায় গুলিবিদ্ধ হয়ে লিপু পড়ে আছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় তৈরি ওয়ান শুটার গান ও শুটার গানের এক রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। পরে লিপুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

সদর থানার ১৬ জন মাদক ব্যবসায়ী ও গডফাদারের তালিকা

নারায়ণগঞ্জ শহরের ২নং বাবুরাইল এলাকার কালাচান মিয়ার ছেলে মো: বাদশা (৪০), পাইকপাড়া এলাকার মৃত মুরাদ মিয়ার ছেলে মো: শহিদুল ইসলাম উরফে রুমান (৪৮), ১৯২ নং দেওভোগ পাক্কা রোড এলাকার মৃত সাদেক আলীর ছেলে বাদল ওরফে বাদলা ওরফে মকবুল হোসেন (৫১), সৈয়দপুর এলাকার শামসুদ্দিনের ছেলে কালা মিয়া ওরফে হামিদ ওরফে কালাই (৩৮), বেপারীপাড়া এলাকার মৃত মুনু মিয়ার ছেলে মো: রানা (৩৫), দক্ষিণ রেলি বাগান এলাকার মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে মো: শেখ ফরিদ (২৭), নারায়ণগঞ্জ থানা পুকুর পাড় রয়েল ট্যংক রোড রেলি বাগানের মৃত অর্জুন চন্দ্র পালের ছেলে কার্তিক চন্দ্র পাল (২৮), দেওভোগ আখড়া মসজিদ হোল্ডিং নং ৫২ এলএন রোড এলাকার মৃত কালাচাঁন মিয়ার ছেলে দিপু (৩৬), ২নং রেল গেইট বিবি রোড এলাকার হারুন রশিদের ছেলে সোয়াদ হোসেন ওরফে বান্টি (২৫), পাইকপাড়া এলাকার জয়নাল আবেদিনের ছেলে মহিউদ্দিন (৩৫), দেওভোগ পানির ট্যাংকি এলাকার মৃত এনায়েত আলির ছেলে আওলাদ (৩২), পাইকপাড়া এলাকার সালাউদ্দিনের ছেলে রাজু আহমেদ (৩৫), সৈয়দপুর আল-আমিন নগরের মৃত খালেক বেপারীর ছেলে জাবেদ বেপারী (৪০), দক্ষিণ রেলী বাগানের মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে মো: বাদল (৩৭), রেলী বাগানের ওয়াজউদ্দিনের ছেলে সালাউদ্দীন (৩১), শহরের মেট্রো হল সংলগ্ন কুমুদিনী বাগানের মৃত বাবুল মিয়ার ছেলে মাসুদ ওরফে সিআডি মাসুদ।

ফতুল্লা থানার ১৬ মাদক ব্যবসায়ী ও গডফাদারদের তালিকা

দাপা মসজিদ এলাকার মৃত মতলব কাজীর ছেলে রিপন কাজী, মাসদাইর গুদারা ঘাট এলাকার রফিকুল ইসলাম ভেন্ডারের ছেলে নাদিম (৩০), দাপা ইদ্রাকপুরের হাবিবুর রহমানের ছেলে মন্টু মিয়া (৪২), একই এলাকার শাহআলমের স্ত্রী পারভীন ওরফে নাইট পারভীন, খোচপাড়ার মৃত ফজলুল হকের ছেলে টিকি মরা লিটন (৪৫), রাম নগরের মৃত সাবেদ আলির ছেলে রহিম বাদশা (৪৮), মাসদাইরের মজিবরের ছেলে হিটলার (৪৮), একই এলাকার গোলাম মোস্তফা রনির স্ত্রী পারুল ওরফে পারুলী, দাপা ইদ্রাকপুরের সাইফুল ইসলামের ছেলে লিটন ওরফে সাইকেল লিটন (৪৮), আব্দুল রশিদ মিস্ত্রির ছেলে মানিক রতন, মাসদাইরের ফজলুল হকের ছেলে হান্ড্রেড নাসির, ফাজিলপুরের সামসুল হকের ছেলে সানি, দাপা মসজিদের ছেলে মতলব কাজির ছেলে সেন্টু কাজি (৩৪), দাপা মসজিদ এলাকার আলী নূর বেপারীর ছেলে উজ্জল, দাপা মসজিদ এলাকার মৃত সেকান্দারের লতিফ (৩৪), দাপা ইদ্রাকপুরের মৃত সামসুল হকের ছেলে লিপু ওরফে ডাকাত লিপু (৩২)।

তালিকার প্রথম ৮ জনকে ধরিয়ে দিতে পারলে প্রত্যেকের জন্য ১০ হাজার ও পরবর্তী ৮ জনকে ধরিয়ে দিতে পারলে প্রত্যেকের জন্য ৫ হাজার করে আর্থিক পুরষ্কার ঘোষণা করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর