rabbhaban

ছেলে ধরা সন্দেহে নারীকে গণপিটুনি, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া পুলিশের গুলি


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০১:৫৮ পিএম, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার
ছেলে ধরা সন্দেহে নারীকে গণপিটুনি, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া পুলিশের গুলি

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে এবার ছেলে ধরা সন্দেহে শারমিন (২০) নামে এক নারীকে গণপিটুনি দেয়া হয়েছে। পরে পুলিশ তাকে আটক দেখিয়ে চিকিৎসার জন্য গুরুতর আহত অবস্থায় শহরের খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করে।

২০ জুলাই শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী শাপলা চত্ত্বর এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। আটক শারিমন ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকার সালমান মিয়ার স্ত্রী। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করতে গেলে এলাকাবাসীর সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ এক রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে ও লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে ওই নারীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শাপলা চত্ত্বর এলাকায় ওই নারী ৫ বছরের এক শিশুকে খেলনা ও খাবার দিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে শিশুটি চিৎকার শুরু করে। এতে এলাকাবাসী ছেলে ধরা সন্দেহে ওই নারীকে গণপিটুনি দেয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীকে আটক দেখিয়ে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম জানান, ছেলে ধরা সন্দেহে এলাকাবাসী এক নারীকে গনপিটুনি দিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নারীকে আটক করা হয়। ওই নারীর মাথা দিয়ে রক্ত ঝরছিল। তাই চিকিৎসার জন্য শহরের খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, একই দিনে মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে সকাল ৮টায় সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাগলাবাড়ির সামনে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে অজ্ঞাত পরিচয়ে (২৫) এক যুবক নিহত হয়।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি শাহিন শাহ পারভেজ জানান, ছেলে ধরা সন্দেহ ওই নারীকে গণপিটুনী দিয়ে আটক করে রাখে। পরে আমরা তাকে উদ্ধার করতে গেলে উত্তেজিত জনতা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এ সময় টিল ছুড়ে পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যানের কাঁচ ভাংচুর করে।

তিনি আরো জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করা হয় এবং হালকা লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তিনি আরো বলেন, বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করছে। এটি গুজব না কি অন্য কোন কারণে হয়েছে তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুবাস চন্দ্র সাহা জানান, ছেলেধরা গুজবে গণপিটুনির এসব ঘটনা ঘটছে। সিদ্ধিরগঞ্জে গণপিটুনিতে এক যুবক নিহত ও এক নারী আহত হওয়ার ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ব্যপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

একই সাথে তিনি এসব গুজবে কান না দিয়ে এমন কোন ঘটনা ঘটলে আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে থানা পুলিশকে অবহিত করার জন্য অনুরোধ জানান।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর