rabbhaban

ভীত অভিভাবকেরা সন্তানদের নিরাপত্তায় শঙ্কিত


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:২৯ পিএম, ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার
ভীত অভিভাবকেরা সন্তানদের নিরাপত্তায় শঙ্কিত

একের পর এক গুজব ও গণপিটুনিতে ছেলেধরা গুজবে আতঙ্কিত নারায়ণগঞ্জবাসী। বিশেষ করে সন্তানদের নিয়ে ব্যাপক চিন্তিত নারায়ণগঞ্জের অভিভাবকেরা। পাশাপাশি নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে ভীত তারা। এই আতঙ্কে অভিভাবকরা এখন সন্তানদের স্কুলে আনা নেয়া করছেন তবুও ঘরে বাইরে অজানা শঙ্কা কাজ করছে সকলের মধ্যে।

নারায়ণগঞ্জে গত কয়েকদিন ধরেই চলছে নানা অঘটন। এর মধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জে একজন বাক প্রতিবন্ধীকে হত্যা ও মানসিক প্রতিবন্ধীকে ছেলেধরা আখ্যা দিয়ে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। এদের দুজনের হত্যা ও আহতের জন্য এলাকাবাসীর গুজবে কান দেয়াকে দায়ী করছেন পুলিশ। ইতোমধ্যে দুটি ঘটনায় ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এছাড়া ফতুল্লায় দুই ব্যক্তিকে ছেলেধরা আখ্যা দিয়ে পিটিয়ে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। আড়াইহাজারেও এক নারীকে গণপিটুনী দেওয়া হয়।

অভিভাবকেরা জানান, আমরা ছেলেধরা আতঙ্কে রয়েছি। এর মধ্যে আরেক আতংক হচ্ছে কখন কাকে ছেলেধরা বলে পিটিয়ে হত্যা করা হয় সেটি। সব মিলিয়ে এখন এক আতঙ্কের নগরীতে পরিণত হয়েছে নারায়ণগঞ্জ। গত কয়েকদিন ধরেই চলছে এমন ঘটনা। শেষ পর্যন্ত ফতুল্লায়ও দুজন ছেলেধরাকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

তারা জানান, স্কুল কলেজ কিংবা বাইরে এখন ছেলেমেয়েদের নিয়ে তারা নিরাপদ নন। এই যে গুজবে হত্যাকান্ড শুরু হয়েছে এতে যেন আর কোন নিরীহ মানুষ হত্যাকান্ডের কিংবা পিটুনীর শিকার না হন সেজন্য তারা সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) হারুনুর রশিদ জানান, ছেলেধরা হচ্ছে নিছক একটি গুজব। একটি চক্র এ গুজব ছড়িয়ে নাশকতা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। মানুষকে ছেলেধরা আখ্যা না দিয়ে না পিটিয়ে ছেলেধরা হলে পুলিশে দিন। যদি আর কাউকে এভাবে হত্যা করা হয় তাহলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। গুজবে কান দেবেন না। ইতোমধ্যে একজনকে হত্যার জন্য ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরো অভিযান চলছে। যারা এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর