rabbhaban

৩০ টাকা ভাড়া বাস্তবায়নে এসপির দিকে তাঁকিয়ে নারায়ণগঞ্জবাসী


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:১৪ পিএম, ২৭ আগস্ট ২০১৯, মঙ্গলবার
৩০ টাকা ভাড়া বাস্তবায়নে এসপির দিকে তাঁকিয়ে নারায়ণগঞ্জবাসী

নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা রুটে বাস ভাড়া ৩০ টাকা বাস্তবায়ন করতে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের দিকে তাঁকিয়ে আছেন গোটা নারায়ণগঞ্জবাসী। ইতোমধ্যে এ ভাড়া কার্যকরের উদ্যোগ নিয়েছেন উৎসবের সাবেক চেয়ারম্যান কামাল মৃধা।

ইতোমধ্যে জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ এবার বাস ভাড়া কমানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। তবে যদি পরিবহন খাতে চাঁদাবাজি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ভাড়া কমানো যাবে বলে বাস মালিক পক্ষ ইতোমধ্যে জানিয়েছেন। এর ধারাবাহিকতায় এবার এসপি হারুন অর রশিদ চাঁদাবাজি বন্ধ করে ভাড়া কমানোর বিষয় উল্লেখ করেছেন।

জানা গেছে, দীর্ঘ এক যুগে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে লাফিয়ে লাফিয়ে বাস ভাড়া দফায় বেড়েছে। প্রায় এক যুগ আগে ৮ টাকা থেকে শুরু করে দফায় দফায় বাস ভাড়া বাড়তে বাড়তে ৩৬ টাকায় গিয়ে ঠেকেছে। ৪ গুণ বেশি ভাড়া বাড়লেও যাত্রী সেবার মান তলানিতে রয়েছে। বাড়তি বাস ভাড়া কমানোর দাবিতে বছর দশেক আগে বাম দল নেতাদের সাথে মেয়র আইভী আন্দোলন করে বেশ আলোচনায় আসলেও আন্দোলন ফলপ্রসু হয়নি। এর ধীরে ধীরে বাস ভাড়া বেড়েই চলেছে। অন্যদিকে আন্দোলনকারীরা ধীরে ধীরে চুপশে গেছে। এবার অনেকটা দেরিতে হলেও বাস ভাড়া কমানোর প্রত্যয়ে মাঠে নেমেছেন এসপি হারুন।

গত ২২ আগস্ট এসপি হারুন অর রশিদ হাজীগঞ্জ-ঢাকা রুটে বেকার পরিবহন বাস চালু করে বলেন, নারায়ণগঞ্জের সকল মানুষের দাবী হচ্ছে ভাড়া কমানো। কিন্তু অনেক জায়গায় চাঁদাবাজী হয়ে থাকে কেউ কিছু বলতে পারে না। ফলে বাসের ভাড়া কমাতে পারছেন না। আমি বলবো যারা বাসের মালিক আছে, তারা যেন কাউকে চাঁদা না দেয়। রোডে বাস চলবে। কাউকে চাঁদা দিতে হবে না। যেহেতু চাঁদা দিতে হবে না, তাহলে বাস ভাড়া অবশ্যই কমাবেন। আপনাদের কাছে যদি কেউ কোন বাহিনীর নামে চাঁদা চায় সেটা আমাকে জানাবেন।

এর আগে গত ১২ আগস্ট এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পরিবহন মালিকদের উদ্দেশ্যে এসপি হারুন বলেন, ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জের মানুষ বাস ভাড়া নিয়ে অভিযোগ করেছে। টোল সহ বিভিন্ন ভাবে এখানে বাসের ভাড়া বেশি নেয়া হচ্ছে। আপনারা রাস্তার দূরত্ব অনুযায়ী হিসেব করে সহনীয় পর্যায়ে ভাড়া কমিয়ে আনবেন। এছাড়াও এলোপাতাড়ি বাস রেখে বিশৃঙ্খলা করবেন না।

বর্তমানে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে নন এসি বাসগুলোতে ৩৬ টাকা করে বাস ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। আর এসি বাস গুলোতে ৫০-৫৫ টাকা করে ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। রাজধানীতে চলাচলাকারী বাস পরিবহনের চেয়ে এই ভাড়া অনেকটা বেশি। বিগত দিনে দফায় দফায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাস ভাড়া নানা কারণে বেড়ে গেছে।

এর আগে উৎসব পরিবহনের চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা কামাল উদ্দিন মৃধা জানান, কাজল মৃধা বর্তমানে নিজেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক পরিচয় দিয়ে নারায়ণগঞ্জের পরিবহন সিন্ডিকেট সাথে যুক্ত হয়ে প্রতিদিন লাখ টাকা চাঁদাবাজি করছে। ফলে প্রকৃত বাস মালিকরা তেমন কোন লভ্যাংশ পাচ্ছেনা। এছাড়া উৎসব পরিবহন যেখানে সরকারি ভাড়ার ৮০ শতাংশ নেয়ার কথা সেখানে অতিরিক্ত ভাড়া ৩৬ টাকা আদায় করছে। যেকারণে জনস্বার্থে উক্ত উৎসব পরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধ, রোড ব্যবস্থাপনার দখলমুক্ত ও ভাড়া ৩৬ টাকার পরিবর্তে ৩০ টাকা বাস্তবায়নের জন্য আবেদন জানাচ্ছি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর