rabbhaban

নারায়ণগঞ্জে ৭ দিনে ৩ ধর্ষণ, আরো তিনটি চেষ্টা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:১৬ পিএম, ০৯ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার
নারায়ণগঞ্জে ৭ দিনে ৩ ধর্ষণ, আরো তিনটি চেষ্টা

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণ ও ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা অহরহ ঘটছে। ধর্ষণের পাশাপাশি ধর্ষণ চেষ্টার একটি ঘটনা বেশ আলোচিত হয়েছে। ভাবীকে ধর্ষণের চেষ্টায় দেবরের লিঙ্গ কর্তনের ঘটনা বেশ আলোচিত ইস্যুতে পরিণত হয়েছে। আর এভাবে ধর্ষণের ঘটনাগুলো দিনে দিনে ডাল পালা গজাচ্ছে। কিন্তু এসব ঘটনা হ্রাসে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছেনা। যেকারণে দিনে দিনে এসব ঘটনা বেড়ে চলেছে।

১ অক্টোবর থেকে ৭ অক্টোবর পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া ধর্ষণ ও ধর্ষণ চেষ্টার সচিত্র তুলে ধরা হল। এ সপ্তাহে ৩ টি ধর্ষণ ও ৩টি ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে।

৬ অক্টোবর সিদ্ধিরগঞ্জে যুব মহিলা লীগ নেত্রীসহ পৃথক দুটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। মিজমিজি ও জালাকুড়ি এলাকায় ঘটনা দুইটি ঘটে। রোববার রাতে থানায় একটি মামলা ও আরেকটি অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে যুবমহিলা লীগের এক নেত্রীর সাথে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তুলে মিজমিজি এলাকার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শরিফুর রহমান পারভেজ। এতে ওই নেত্রী দুই মাসের অন্ত:সত্তা হয়ে পড়ে। বিয়ে করার কথা বললে সে অস্বীকৃতি জানায়। তখন ওই নেত্রী গত রবিবার রাতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। পারভেজ মিজিমিজি আবদুল আলিপুল এলাকার আবদুর রহমানের ছেলে। সে একসময় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ছিল।

অপরদিকে জালকুড়ি এলাকায় সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগে মো. সেলিমকে আসামি করে রোববার রাতে মামলা করেছে ভিকটিমের মা। সেলিম জামালপুর জেলার বকশিগঞ্জ থানার মালিরচর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে। সে জালকুড়ি নাইনতার পাড়া এলাকার ভাড়াটিয়া। মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, শিশুটির মা বাবা কর্মস্থলে থাকার সুযোগে সেলিম গত ৪ অক্টোবর দুপুরে ওই শিশুকে বাসায় একা পেয়ে ধর্ষণ করে। পরে শিশুর মা বাবা বাড়িতে এসে ঘটনা জানতে পেরে থানায় অভিযোগ করে।

৫ অক্টোবর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরী প্রেমিকাকে (১৪) ধর্ষণের চেষ্টাকালে স্থানীয় জনতা লম্পট প্রেমিক আকাশকে (২২) আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। শনিবার রাতে বন্দর থানার মদনগঞ্জ শান্তিনগর এলাকাবাসী লম্পটকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এ ব্যাপারে কিশোরী মা বাদী হয়ে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে।

জানা গেছে, বন্দর থানার শান্তিনগর এলাকার রাজ্জাক মিয়ার লম্পট ছেলে আকাশ একই এলাকার ১৪ বছরের এক কিশোরী মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। প্রেমের সম্পর্ক সূত্র ধরে গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় লম্পট আকাশ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোর বসত ঘরে প্রবেশ করে ধর্ষণ করে। এর ধারাবাহিকতায় গত ৫ অক্টোবর রাতে লম্পট আকাশ কিশোরীর বসত ঘরে আবারও প্রবেশ করে ধর্ষণের চেষ্টাকালে ওই সময় স্থানীয় এলাকাবাসী লম্পট আকাশকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

৬ অক্টোবর ফতুল্লায় গার্মেন্টে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে (২৫) ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে গার্মেন্ট শ্রমিককে আটক করেছে পুলিশ। রোববার রাতে ফতুল্লার শিল্পাঞ্চল বিসিকের ২নং গেইট এলাকায় রাতুল মঞ্জিলের একটি মেচ থেকে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত মিজানুর রহমান ঠাকুরগাও জেলার রাণীশংকর থানার দক্ষিন হারিয়া গ্রামের হযরত আলীর ছেলে।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এসআই আব্দুল করিম জানান, মিজানুর রহমান বিসিকের একটি গার্মেন্টে চাকরি করে। পূর্বপরিচয়ে রাতে এক তরুণীকে গার্মেন্টে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিসিকের রাতুল মঞ্জিলের যে মেচে ভাড়া থাকেন সেখানে ডেকে আনে। সেখানে তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালালে সে চিৎকার করে। এতে আশপাশের লোকজন এসে মিজানকে গণধোলাই দিয়ে থানায় সংবাদ দেয়।

৫ অক্টোবর নিজের ভাবীকে ধর্ষণ করতে গিয়ে পুরুষাঙ্গ হারিয়েছে দেবর। শনিবার দিবাগত রাতে আড়াইহাজার উপজেলার উচিৎপুরা ইউনিয়নের জাঙ্গালিয়া বুরুমদীপাড়া গ্রামে এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মূমুর্ষূ অবস্থায় দেবর মনিরকে (৩০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, বরুমদীপাড়া গ্রামের দুবাই প্রবাসীর স্ত্রী তার দুই সন্তান সহ বাড়িতেই থাকে। ওই গৃহবধূর দেবর মনির দীর্ঘ দিন যাবত অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। শনিবার রাতে সে ঘুমন্ত অবস্থায় ভাবীকে জোর করে ধর্ষণ করতে যায়। এ সময় গৃহবধূ ভাবী আগে থেকে প্রস্তুত রাখা ধারালো ব্লেড দিয়ে মনিরের পুরুষাঙ্গ কেটে নেয়। ঘটনাটি জানতে পেরে বাড়ীর লোকজন দ্রুত তাকে প্রথমে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আনে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

এদিকে আড়াইহাজার উপজেলায় ১৪ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের ৫ দিন পর সোমবার ৩০ সেপ্টেম্বর রাতে আড়াইহাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আর ঘটনাটি ১ অক্টোবর প্রকাশ পায়। প্রভাবশালীদের চাপে পড়ে থানায় আসতে না পেরে অবেশেষ নির্যাতিত শিশুর মামা বাদী হয়ে ধর্ষক ও সহযোগির বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন। ২৬ সেপ্টেম্বর উপজেলার কালাপাহাড়ায়িা ইউনিয়নের চরলক্ষিপুরা আশ্রয় কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আশ্রয় কেন্দ্রের ১৪ বছরের কিশোরীকে ওই আশ্রয় কেন্দ্রে বসবাসরত যুবক জোহর আলীর বখাটে ছেলে সিপন (১৯) দীর্ঘদিন ধরে কু প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। ২৬ সেপ্টেম্বর রাত দেড়টায় জোরপূর্বক একটি পরিত্যাক্ত কক্ষে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এই সময় তাকে সহযোগিতা করেন তার চাচাতো ভাই জামাল (২০)। পরে একটি প্রভাবশালী মহল ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ধর্ষিতার পরিবারকে ভয়ভীতি দেখায়। ভয়ভীতির কারণে ঘটনার ৫ দিন অতিবাহিত হওয়ার পর সোমবার রাতে একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে কালাপাহাড়িয়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ বিজয় কুমার কর্মকার জেনেও ধর্ষিতার পরিবারকে কোন সহযোগিতা করেনি বলে অভিযোগ রয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর