rabbhaban

মামলার বাদীকে পিটিয়ে পুলিশে দিল ডিশ বাবুর লোকজন


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১১:২৫ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার
মামলার বাদীকে পিটিয়ে পুলিশে দিল ডিশ বাবুর লোকজন

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল করিম বাবুর বিরুদ্ধে দায়ের করা একটি মামলার বাদীকে আটক করেছে পুলিশ। ১৩ অক্টোবর দুপুরে নাজমুল হাসান বারেক নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে বাবুর অফিসে বারেককে বসিয়ে বেশ কিছুক্ষণ মারধর করে সদর মডেল থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। পুলিশ বলছে একজন শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে বারেক নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। আর বারেকের দাবী এটা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। তাকে ইচ্ছে করে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, নগরীরর নলুয়া পাড়া এলাকায় তিন বছরের শিশুকে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগে নাজমুল হাসান বারেককে আটক করে পুলিশ। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী শিশুর বাবা বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় অভিযোগ দিলে তাকে আটক করা হয়।

অভিযোগ সূত্রে  জানা যায়, ভুক্তভোগী শিশুর পরিবার গত দুই মাস ধরে ওই বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করে আসছে। রোববার দুপুরে বাড়িওয়ালা তাদের ঘরে গিয়ে তিন বছরের মেয়েকে ঘরে রেখে শিশুটির মাকে কৌশলে কোক আনতে দোকানে পাঠান। এই ফাঁকে ঘরে একা পেয়ে অশ্লীল আদর করতে থাকে। শিশুটির মা ঘরে চলে আসায় বারেক চলে যায়। এ ঘটনা শিশুটি মায়ের কাছে সব খুলে বলার পর বিষয়টি মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে এবং উত্তেজিত জনতা বাড়িওয়ালা বারেককে ধরে উত্তম মাধ্যম দিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু`র কাছে নিয়ে যায়। কাউন্সিলর বাবু ওই লম্পটকে পুলিশ হেফাজতে হস্তান্তর করে।

এদিকে বারেক জানায়, তাকে ইচ্ছে করে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার সাথে তিনি জড়িত না। পরিকল্পিতভাবে তাকে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে আব্দুল করিম বাবুর বিরুদ্ধে স্কুলের জায়গা দখল করে ক্লাব ঘর নির্মাণের অভিযোগে এ বারেকই মামলা করেছিলেন। গত ১৯ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার ও সদর থানার ওসি বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

অভিযোগে বারেক উল্লেখ করেন, দীর্ঘ ৪৮ বছর যাবত আজিজিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা পরিচালনা করে আসছি। মাদ্রাসার পাশে আমার মালিকানাধীন টিনসেট ৪ টি রুম করে একটি এনজিও সংস্থাকে শিশু কিশোরদের পড়ালেখার জন্য ভাড়া দেয়া হয়। সেই ভাড়ার টাকা মাদ্রাসায় খরচ করা হয়। গত জাতীয় নির্বাচনে বাবুর পক্ষ কাজ না করায় তার পালিত সন্ত্রাসীরা আমাকে মারপিট করে জোর করে ৬টি খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়েছে। যার কারণে গত জানুয়ারীর প্রথম দিকে সদর থানায় অভিযোগ দিলেও আমার মামলাটি নেয়নি। পরে অভিযোগের বিষয়টি বাবু জানলে রাগান্বিত হয়ে আমার এনজিও সংস্থার দুটি রুমের দুই মাসের ভাড়ার ২৬ হাজার ৫শ টাকা  নিয়ে যায়। শুধু তাই নয় আমাদের পাইকপাড়া এইচ এল মেদ ভুড়ি নামীয় একতলা ভবনের দুটি রুম সন্ত্রাসী বাহিনা দ্বারা তালা ভেঙ্গে ২ লাখ টাকার মালামাল লুট করে ক্লাব হিসেবে স্থাপন করে।

এ মামলায় বাবু গ্রেপ্তারও হন। একটি চাঁদাবাজী মামলায় তিনি কারাগারে থাকাবস্থায় এ বারেকের মামলায় পুলিশ বাবুকে শ্যোন এরেস্ট দেখায়।

আবদুল করিম বাবু গত ২৩ মে জামিনে মুক্ত হন। তার বিরুদ্ধে দায়ের করা সবগুলো মামলাতে তিনি জামিন পাওয়াতে মুক্তি পান।

১৮ এপ্রিল বিকেল ৩টায় শহরের পাইকপাড়া এলাকা থেকে বাবুকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে বন্দর থানায় হস্তান্তর করা হয়ে। বন্দর উপজেলার ফরাজিকান্দায় হাসান নামের একজন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগে ওই মামলাটি দায়ের করা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর