কঠোর বার্তা ‘শহরে হকার বসতে দেওয়া হবে না’ (ভিডিও)


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:০৬ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
কঠোর বার্তা ‘শহরে হকার বসতে দেওয়া হবে না’ (ভিডিও)

নগরবাসীর নিরাপদে চলাচলের স্বার্থে সড়কে অবৈধ পার্কিং বন্ধ ও ফুটপাত হকার মুক্ত করতে দীর্ঘদিন নিরব থাকার পর আবারো কঠোর অ্যাকশনে নেমেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ। তবে নিয়মিত অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে কঠোর ব্যবস্থা না নিলে এর সুফল পাওয়া যাবে না বলে জানিয়েছেন সাধারণ পথচারীরা।

১২ নভেম্বর মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকীর নেতৃত্বে অভিযানে আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (অপরাধ) জয়নাল আবেদীন, নারায়ণগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুল হাই সহ পুলিশের টীম।

অভিযানে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পেছনের ভাষা সৈনিক সড়কের দুই পাশের অবৈধ ভ্রাম্যমাণ দোকান ও পার্কিং করা গাড়ি উচ্ছেদের মাধ্যমে শুরু করা হয়। এরপর চাষাঢ়া মোড় থেকে বঙ্গবন্ধু সড়কের দুই পাশের সব ধরনের অবৈধ ভাবে পার্কিং করা গাড়ি উচ্ছেদ করা হয়। ফুটপাত দখল মুক্ত করতে হকারদে উচ্ছেদ করা হয় এবং বিভিন্ন মার্কেট কর্তৃক ফুটপাতের উপর সাজিয়ে রাখা জিনিসপত্র ও ত্রিপল ফুটপাতের উপর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

অভিযান প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘‘শহরে কোনো ভাবেই হকার বসতে দেওয়া হবে না। রাস্তায় কোনো গাড়ি পার্কিং করতে দেওয়া হবে না। আমাদের অভিযান চলমান ছিল কিন্তু আমরা প্রয়োজন মনে করেছি তাই জোরদার করা হয়েছে এবং এটি চলমান থাকবে।’’

তিনি আরো বলেন, শহরকে যানজটমুক্ত রাখা এবং মানুষকে স্বস্তি দেওয়া এটাই হচ্ছে আমাদের মূল উদ্দেশ্য। শহর যেন হকার মুক্ত থাকে এবং রাস্তায় কোনো গাড়ি পার্কিং বন্ধ করাই হচ্ছে অভিযানের উদ্দেশ্য। গাড়ি এসে দাঁড়াবে যাত্রী নামিয়ে চলে যাবে। যদি কেউ না মানে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে পুলিশের এই উচ্ছেদ অভিযানে সন্তুষ্ট হতে পারেনি সাধারণ জনগন। নগরবাসীর দাবি পুলিশকে আরো কঠোর অবস্থানে যেতে হবে।

পথচারী বিপ্লব হোসেন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, এখানে পুলিশ আছে তাই এই জায়গা ফাঁকা। কিন্তু একটু সামনে এগিয়ে গেলেই দেখবেন ফুটপাত হকারদের দখলে। একটা হকারও সরে নাই। যেহেতু তাদের বিকল্প জায়গা থাকার পরেও তাঁরা এখানে এসে বসছে তাই তাদেরকে ফুটপাত থেকে সরানো জন্য তাঁদের মালামাল জব্দ, জরিমানা ও জেল দেওয়ার মত কঠোর শ্বাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় তাঁরা ফুটপাত থেকে সরবে না।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর