বিতর্কে বিঁধছে পুলিশের এসআই এএসআই


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:২৯ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
বিতর্কে বিঁধছে পুলিশের এসআই এএসআই

নারায়ণগঞ্জে পুলিশ প্রশাসনের দীর্ঘদিনের অর্জনগুলো কতিপয় অসাধুদের জন্য ম্লান হয়ে যাচ্ছে। বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে একের পর এক সমালোচনার জালে আটকা পড়ে জরাজীর্ণ হচ্ছে। এতে করে প্রশাসনের উপর জনগণের আস্থা দিনে দিনে কমে যাচ্ছে। কারণ সম্প্রতি নারী কেলেঙ্কারী সহ নানা অনিয়মের জালে আটকা পড়ছে।

এতে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘জনগণের বন্ধু পুলিশ এখন বিতর্কিত কর্মকান্ডের ফলে আতঙ্কের মূর্তমান প্রতিক হিসেবে গণ্য হচ্ছে। কতিপয় পুলিশ প্রশাসনের ধারাবাহিক বিতর্কের ফলে জনমনে এই ধারণা জন্মেছে।’

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলের ভূমি আবাসন এলাকার গাড়ি চালক কে এম দেলোয়ার আহমেদ (আকাশ) অভিযোগে জানান, অনৈতিক কর্মকান্ডের কারণে ২০১৭ সালের ২৩ জানুয়ারী সাবেক স্ত্রী ফারজানা আক্তার নিজেই বিবাহ বিচ্ছেদের তালাকনামা প্রদান করে। পরে ২০১৮ সালের ৫ অক্টোবর শ্রাবণ নামের আরেক নারীর সঙ্গে বিয়ে হয়। এর মধ্যে ফারাজানা ডিবি দিয়ে কয়েক দফা হয়রানি করায়। এর মধ্যে ফারজানার সঙ্গে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার আবুল কালাম আজাদ, শাহাদাত, বেলায়েত, রফিকুল ইসলামের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত ১৫ অক্টোবর ছেলের অসুস্থতার খবরে ফারজানার বাসায় গেলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এএসআই বেলায়েত ও এএসআই শাহাদত রুমে ঢুকে গ্রেপ্তার করে। তখন বেলায়েত আমার কাছ থেকে ১৭ হাজার ২২৫ টাকা, মোবাইল ফোন, ড্রাইভিং লাইসেন্স সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে নেয়।

২২ অক্টোবর জেল থেকে বের হওয়ার সময় গেট থেকে সেই দুই দারোগা বেলায়েত ও শাহাদাত আমায় ধরে নিয়ে যায়। ওই সময়ে বেলায়েত আমাকে অনেক ধরনের হুমকি ভয় দেখাতে থাকে। ওই ঘটনায় আমাকে ৫৪ ধারার গ্রেপ্তার দেখায়। ২ অক্টোবর জামিনে মুক্তি পায়। গ্রেপ্তারের পর সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোনটি পুলিশ জব্দ করে ফারজানার কাছে দিয়ে দেয়। ওই মোবাইলের মেমোরি কার্ডে আমার দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে বেশ কিছু ঘনিষ্ঠতার ছবি ছিল। ফারজানা ও পুলিশ কর্মকর্তা বেলায়েত ওইসব ছবি আমার মোবাইলের ইমু থেকে সবাইকে সেন্ড করে দেয়।

প্রথম আমি থানায় যোগাযোগ করে জব্দ করা জিনিসপত্র চাইলে বেলায়েত উল্টো আমাকে হুমকি দিতে থাকে। সেই হুমকি এখনো অব্যাহত থাকে। পরবর্তীতে আমার বর্তমান স্ত্রী শ্রাবণ জানতে পেরে থানায় পুলিশ কর্মকর্তা বেলায়েতের সঙ্গে যোগাযোগ করে। তিনি জব্দ করা মোবাইল ফোন সহ অন্যান্য জিনিসপত্র ফেরত চাইলে তাকে নানা ধরনের অশ্লীল ও কুপ্রস্তাব প্রদান করে (অডিও সিডি করে দেওয়া)। এক পর্যায়ে দ্বিতীয় স্ত্রীকে বেলায়েত সিদ্ধিরগঞ্জের হিরাঝিল এলাকার একটি ফ্ল্যাটে যেতে বলে এবং সেখানে তার সঙ্গে রাত কাটানোর প্রস্তাব দেয়। এছাড়া আরো অনেক কুরুচিপূর্ণ কথা রয়েছে যা লেখার মত শালীনতা নাই। বেলায়েত তার বিছানায় চায় এবং তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়তে চায়। পরে প্রায়শই আমার স্ত্রীর নাম্বারে বেলায়েত ফোন করতে থাকে।

এ ব্যাপারে এএসআই বেলায়েত হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে রাজী হয়নি।

এদিকে ২ ডিসেম্বর শহরের চাষাঢ়ায় দুই পরিবারের সম্মতিতে ইসলাম ধর্মের ছেলে ও হিন্দু ধর্মের মেয়ের বিয়ে নিয়ে বসা শালিসে দুইজনকে আটকে মারধরের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার এএসআই আমিনুর রহমান আমানকে সাময়িক প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ব্যাংক কলোনী এলাকা স্থানীয় বাসিন্দা জাহাঙ্গিরের ছেলে রফিক (২১) ও স্থানীয় এক হিন্দু মেয়ের (১৫) মধ্যকার প্রেম ছিল। সম্প্রতি তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। তাঁরা বিয়ে করতে চায় এবং কোর্ট থেকে নিজেদের ইচ্ছায় অনুমতি নিয়ে আসে। এঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটি দুই পরিবারকে একত্রিত করে এবং তাদের মতামত জানতে চায়। এসময় দুই পরিবারের সদস্যরাই রাজি হয়।

তবে রোববার রাত ৯টায় সদর মডেল থানার এস আই আমিনুর রহমান আমানের নেতৃত্বে ৩জন সাদা পোশাকের কনস্টেবল ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের সদস্যরা ছেলে মেয়ে দুইজনের হাত পেছনে দিয়ে হাতকড়া লাগিয়ে রাস্তার উপর মারতে মারতে নিয়ে যেতে থাকে। রাস্তার উপর ছেলে মেয়েকে মারতে দেখে এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁদেরকে আটকে একটি দোকানের ভেতরে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরবর্তিতে দোকানের মধ্যে আটকে রেখে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানাতে বলে। পরে সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জয়নাল গিয়ে আটকে রাখা পুলিশ সদস্যদেরকে ছাড়িয়ে যায়।

সূত্র বলছে, এর আগেও বিভিন্ন সময় পুলিশ প্রশাসনের বিতর্কিত কর্মকান্ড গণমাধ্যমে উঠে এসেছে। শহরের খানপুর এলাকায় অটোরিকশা থেকে চাঁদাবাজির ঘটনা গোপন ক্যামেরায় ধরা পড়ে দুজন পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজড হয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি চাঁদাবাজির অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বদলী হয়েছে। যদিও দীর্ঘদিন পুলিশ প্রশাসন হার্ডলাইনে অবস্থান করে বেশ সুনাম অর্জন করেছিল। কিন্তু পরবর্তীতে কতিপয় পুলিশ প্রশাসনের বিতর্কিত কর্মকা-ের ফলে সেসব অর্জন ম্লান হয়ে যায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর