চাষাঢ়ায় একই পরিবারের ৪ সদস্য নিখোঁজ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৪৩ পিএম, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার
চাষাঢ়ায় একই পরিবারের ৪ সদস্য নিখোঁজ

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ রয়েছে ব্যবসায়ী, তার স্ত্রী ও স্কুল পড়ুয়া দুই মেয়ে। গত ১৩ ফেব্রুয়ারী ভাড়া বাসা থেকে মিরপুরে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। বন্ধ রয়েছে তাদের ব্যবহৃত মুঠোফোনও। গত এক সপ্তাহেও তাদের কোন হদিস না পেয়ে বুধবার ১৯ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিখোঁজের জিডি দায়ের করেছেন ওই ব্যবসায়ীর শাশুড়ি।

নিখোঁজদের স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়া বাগে জান্নাত মহল্লায় সিরাজুল ইসলামের বাড়ির নিচতলার একটি ফ্ল্যাটে স্বপরিবারে ভাড়া থাকতো ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী তোবারক হোসেন (৪৪)। তিনি শহরের বঙ্গবন্ধু রোডস্থ লুৎফা টাওয়ার সংলগ্ন সড়কের ফুটপাতে অস্থায়ী দোকানে গার্মেন্টের তৈরী পোশাকের বেচাঁকেনা করতেন।

ওই ফ্ল্যাটে তোবারক হোসেনের সঙ্গে তার স্ত্রী মুক্তা (৩০) ও দুই মেয়ে ফারিয়া(৯) ও ফাহমিদা (৬) থাকতো। বড় মেয়ে ফারিয়া চাষাঢ়া বন্ধু স্মৃতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী ও ফাহমিদা একই স্কুলের ১ম শ্রেনীর ছাত্রী ছিল।

তোবারক হোসেন মিরপুর ব্লক বি গাবতলী ১ম কলোনী জব্বার হাউজিং বাড়িনং ১৭ সি/ডি এলাকার রেজাউল হকের পুত্র। তোবারকের বাবা মা বর্তমানে মিরপুর সেকশন ৬ এর কেন্দ্রীয় মসজিদের বিপরীতে সুমন সোহেলদের বাড়িতে ভাড়া থাকতো। গত ১৩ ফেব্রুয়ারী ব্যবসায়ী তোবারক, তার স্ত্রী মুক্তা ও দুই মেয়ে ফারিয়া ও ফাহমিদাকে সঙ্গে নিয়ে মিরপুরে বেড়ানোর উদ্দেশ্যে চাষাঢ়ার বাসা থেকে বের হন। তবে এক সপ্তাহেও তারা আর ওই বাড়িতে ফিরে আসেনি। তোবারক ও মুক্তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় মুক্তার মা মেহের বেগম ১৯ ফেব্রুয়ারী বুধবার সদর মডেল থানায় একটি জিডি দায়ের করেন। পরে সদর মডেল থানার এসআই সাব্বির ঘটনাস্থলে তদন্তে যান।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই সাব্বির জানান, কি কারণে তারা স্বপরিবারে নিখোঁজ সেটা এখনো স্পষ্ট নয়। বুধবার বিকেলে জিডি দায়ের হয়েছে। নিখোঁজের ঘটনার তদন্ত চলছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর