ফুটপাত দখল রেস্টুরেন্টগুলোর


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:১৪ পিএম, ১৭ মে ২০২০, রবিবার
ফুটপাত দখল রেস্টুরেন্টগুলোর

লকডাউনেও থেমে নেই নগরীর ফুটপাত দখলে রেস্টুরেন্টগুলো। ফুটপাতে পসরা সাজিয়ে ইফতার বিক্রি করায় ভোগান্তিতে পরতে হচ্ছে পথচারীদের। কারণ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে চলাচল করতে হবে। এর জন্য একজনকে অন্যজনের কাছ থেকে ৩ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। কিন্তু রেস্টুরেন্টগুলো ফুটপাত দখল করে নেওয়ায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না। এ বিষয়ে সিটি করপোরেশন কিংবা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

১৭ মে রোববার দুপুরে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের উভয় পাশে দেখা গেছে এ দৃশ্য। বিশেষ করে সুগন্ধা প্লাস, হোয়াইট হাউজ, আলম কেবিন, কাবাব ঘর সহ নাম বিহীন রেস্টুরেন্টগুলো একই অবস্থা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১০ মে থেকে সরকার সীমিত পরিসরে নগরীর দোকান খুলে দেওয়ার সিদান্ত হয়। তারপর থেকেই নগরীর দোকান শপিংমল ও খাবার দোকানগুলো খুলতে শুরু করে। এর মধ্যে পবিত্র মাহে রমজান হওয়ায় ইফতার বাজার জমজমাট হতে শুরু করে। আর এসময়ে দোকানদাররা ফুটপাত দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠে। আর এসব ইফতার দোকানের সামনে ক্রেতারা ভীড় করতে থাকলে সেখান দিয়ে সাধারণ পথচারীদের চলাচলে জায়গা থাকে না। তারা ওইসব রেস্টুরেন্টের সামনে রিকশা, প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল ইত্যাদি যানবাহন পার্কিং করে রাখা হয়। ফলে এর সামনে যানজট সৃষ্টি হয়।

এদিকে ফুটপাত অবমুক্ত রাখার ঘোষণা দেন জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম। তবে এর মধ্যে হকার উচ্ছেদ অভিযান করলেও রেস্টুরেন্টগুলোর বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। তাছাড়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও এসব বিষয়ে তেমন কোন তদারকিও নেই।

পথচারীদের দাবি, এমনিতেই করোনা পরিস্থিতির জন্য নগরবাসী অতিষ্ট। জরুরী প্রয়োজনে বের হতে হচ্ছে। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতেও দোকানদারা ফুটপাত দখল করে জনসমাগম করা উচিত নয়। এ বিষয়ে জেলা পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরী হয়ে পড়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর