শহরে এখন রীতিমতো জনস্রোত


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৭:৪৪ পিএম, ২২ মে ২০২০, শুক্রবার
শহরে এখন রীতিমতো জনস্রোত

দুই মাসেরও অধিক সময় ধরে লকডাউনে ছিল করোনাভাইরাসের হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত নারায়ণগঞ্জ। লকডাউনের এই সময়ে পাড়া মহল্লায় মানুষের সমাগম থাকলেও নারায়ণগঞ্জের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া ছিল জনশূন্য। তবে লকডাউন শিথিল করার পর থেকেই বদলাতে থাকে পরিস্থিতি। শহরে বাড়তে থাকে মানুষের সমাগম। ঈদের ঠিক শেষ মুহূর্তে এসে শহরে এখন রীতিমতো জনতার ঢল বইছে।

২২ মে শুক্রবার ২৮ তম রোজায় সরেজমিনে শহর ঘুরে দেখা যায় এমন পরিস্থিতি। শহরের মার্কেট থেকে শুরু করে, ফুটপাত, অলিগলিতে মানুষের ঢল। কোথাও পা ফেলার জায়গা নেই। কেউ কেনাকাটা করছেন কেউ চাকরির জন্য শহরে এসেছেন। আবার অনেকে অযথা শহরে ঘুরে আড্ডা দিচ্ছেন। শহরে প্রবেশ করা এসব মানুষের মধ্যে রয়েছে সকল বয়সের মানুষ। তবে শহরে প্রবেশ করা মানুষের প্রায় ৮০ শতাংশ নারী যারা ঈদের কেনাকাটা করতে শহরে এসেছেন। তবে লকডাউন শিথিলের ১২ দিন হলেও ঈদের আগে শেষ শুক্রবারে শহরে মানুষের যে জন সমাগম তা এর আগে দেখা যায়নি ।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রথম দফায় গত ২৬ মার্চ থেকে সরকারি ও বেসরকারি অফিসে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এরপর প্রথম দফায় গত ২৬ মে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন এলাকা, সদর ও বন্দর উপজেলা লক ডাউনের ঘোষণা দেয় প্রশাসন। দ্বিতীয় ধাপে ৭ এপ্রিল পুরো জেলা লকডাউনের ঘোষণা দেয় আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)। এর পর থেকে শহরে মানুষের আগমণ থেকাতে কঠোর থেকে কঠোর অবস্থানে যায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। যে কারণে জনশূন্য শহরে পরিণত হয় নারায়ণগঞ্জের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া। তবে লকডাউন উঠিয়ে নেওয়া না হলেও বর্তমান পরিস্থিতি একেবারেই ভিন্ন।

ঈদকে কেন্দ্র করে গত ১০ মে লকডাউন শিথিল করে মার্কেট বিপনী বিতান খোলার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এর পর থেকেই শহরে মানুষের সমাগম বাড়তে শুরু করে। আবারো যানজট আর কোলাহলে পূর্ণ পুরানো রূপ নিতে শুরু করে নারায়ণগঞ্জ শহর। যানবাহনে যেমন শহরের সড়কগুলোতে ব্যস্ততা ফিরে এসেছে। তেমনি জনতার ঢল সরব হয়ে উঠেছে শহরের মার্কেট, ফুটপাত, অলিগলি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর